অগ্নি নির্বাপন ব্যবস্থা সঠিক না থাকায় ভুবনেশ্বর SUM-এ আগুন, রিপোর্টে দাবি

নির্দিষ্ট জায়গায় ছিল না ফায়ার এক্সটিংগুইশার। জেনারেল ওয়ার্ড ও ওটির আগুন নেভানোর যন্ত্রও ছিল অকেজো। তারপরও কীভাবে

নির্দিষ্ট জায়গায় ছিল না ফায়ার এক্সটিংগুইশার। জেনারেল ওয়ার্ড ও ওটির আগুন নেভানোর যন্ত্রও ছিল অকেজো। তারপরও কীভাবে

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #ভুবনেশ্বর: নির্দিষ্ট জায়গায় ছিল না ফায়ার এক্সটিংগুইশার। জেনারেল ওয়ার্ড ও ওটির আগুন নেভানোর যন্ত্রও ছিল অকেজো। তারপরও কীভাবে সাম হাসপাতালকে সেফটি সার্টিফিকেট দেওয়া হল? প্রশ্ন তুলে মামলা দায়ের হল হাইকোর্টে। হাসপাতাল পরিদর্শনের পর অব্যবস্থা নিয়ে সরব কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী। হাসপাতাল মালিককে গ্রেফতারের দাবিতে চাপ বাড়ছে রাজ্য সরকারের ওপর।

    সাম হাসপাতালে অগ্নিকাণ্ডে রোগীমৃত্যু ৷ অগ্নি নির্বাপণ ব্যবস্থায় বহু ক্রুটি ৷ প্রাথমিক তদন্ত রিপোর্টে দাবি ৷ সার্টিফিকেট নিয়ে প্রশ্ন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর ৷

    নির্দিষ্ট জায়গায় ছিল না ফায়ার এক্সটিংগুইশার। বেশ কিছু অক্সিজেন সিলিন্ডার ছিল ফাঁকা। অপারেশন থিয়েটারেও আগুন নেভানোর যন্ত্র বিকল হয়েছিল বহুদিন। আগুন লাগার পর তাই যা ঘটার ছিল, তাই ঘটেছে। গত সেপ্টেম্বরে এই হাসপাতালকেই ফিট সার্টিফিকেট দেয় দমকল বিভাগ। ঘটনায় নবীন পট্টনায়েক সরকারের কৈফেয়ৎ চেয়ে মামলা দায়ের হল হাইকোর্টে।

    বুধবার হাসপাতাল পরিদর্শনের পর সুরক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে ক্ষোভ উগরে দেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী জেপি নাড্ডা। রাজ্য প্রশাসনের সঙ্গে বৈঠকে হাসপাতালের লাইসেন্স বাতিলেরও ইঙ্গিত দেয় তিনি। তবে তদন্ত রিপোর্ট হাতে পাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে চায় স্বাস্থ্যমন্ত্রক।

    হাসপাতালে অগ্নিকাণ্ডে সরকারকে নোটিস দিয়েছে জাতীয় মানবাধিকার কমিশন। চলতি সপ্তাহে হাসপাতাল পরিদর্শনেও আসছে কমিশন। বুধবার সকাল থেকেই সাম হাসপাতালের সামনে দফায় দফায় বিক্ষোভ দেখায় রোগীর আত্মীয়রা। দাবি, মৃতদের পরিবারপিছু অন্তত ১৫ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ। ইতিমধ্যেই মৃতদের পরিবারপিছু ৫ লক্ষ অর্থসাহায্যের ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়ক। সময় যত গড়াচ্ছে, সাম হাসপাতালের মালিককে গ্রেফতার চাপও বাড়ছে রাজ্য সরকারের ওপর।

    First published: