দেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

সরকারি টাকায় ধর্মীয় শিক্ষা চলবে না, মাদ্রাসায় তালা পড়ছে অসমে

সরকারি টাকায় ধর্মীয় শিক্ষা চলবে না, মাদ্রাসায় তালা পড়ছে অসমে
হেমন্ত বিশ্বশর্মা। (File Photo)

রাজ্যের শিক্ষা ও অর্থমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা শুক্রবার স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিলেন জনতার করের পয়সায় ধর্মীয় শিক্ষা দেওয়া সম্ভব নয়। এই নীতি সংস্কৃত টোলগুলির ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য হতে চলেছে।

  • Share this:

#গুয়াহাটি: রাজ্য সরকারের খরচে চলা সমস্ত মাদ্রাসা বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিল অসম সরকার। রাজ্যের শিক্ষা ও অর্থমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা শুক্রবার স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিলেন জনতার করের পয়সায় ধর্মীয় শিক্ষা দেওয়া সম্ভব নয়। এই নীতি সংস্কৃত টোলগুলির ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য হতে চলেছে।

শুক্রবার সংবাদমাধ্যমের সামনে হিমন্ত বিশ্বশর্মা বলেন, আমরা অতীতে বিধানসভাতেই আমাদের সিদ্ধান্ত জানিয়েছিলাম। ধর্মীয় শিক্ষায় কোনও ভাবেই সরকারি অর্থব্যয় চাই না আমরা।"

তাহলে কি সব মাদ্রাসই বন্ধ? তালা পড়বে টোলেও? হিমন্ত বিশ্বশর্মা বলছেন, "বেসরকারি ভাবে চলা টোল মাদ্রাসা নিয়ে আমাদের কিছু বলার নেই। সেগুলি নিজেদের মতো চলতে পারে। আমরা কোনও মাদ্রাসা বা টোলের দায় নেবো না।"

কিন্তু সরকারি মাদ্রাসায় যারা ছাত্র পড়ান তাঁদের কী হবে? আশ্বস্ত করছেন হেমন্ত বিশ্বশর্মা। তাঁর কথায়, এখন ৪৮ জন মাদ্রাসা শিক্ষক রয়েছেন। তাদের সকলকেই অন্য স্কুলে বদলি করে দেওয়া হবে।

অসমে সরকারি সিদ্ধান্ত সামনে আসার পর থেকেই নানামুনির নানা মত। অল ইন্ডিয়া ইউনাইটেড ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টের প্রধান বদরুদ্দিন আজমল বলছেন, বিজেপি ক্ষমতায় থাকার সুযোগ নিয়ে যদি মাদ্রাসা বন্ধ করে তবে পরের বার বিধানসভায় ক্ষমতায় এলে তারা ফের মাদ্রাসা চালু করবেন।

তাঁর কথায়, "মাদ্রাসা বন্ধ করা চলবে না।এগুলি ৫০-৬০ বছর ধরে চলছে। বিজেপি গায়ের জোর দেখাচ্ছে।"

এই মুহূর্তে মোট ৬১৪ টি মাদ্রাসা রয়েছে অসমে। তার মধ্যে ৫৭ টি মেয়েদের, ৩টি ছেলেদের, ৫৫৪টি যৌথ শিক্ষার। এর মধ্যে ১৩টি উর্দু ভাষায় শিক্ষা দেওয়া হয়। পাশাপাশি রাজ্যে মোট ১০০০ সংস্কৃঋত টোল রয়েছে। তবে এর মধ্যে সরকারি অনুদানে চলে ১০০টি।

সরকারের দাবি প্রতিবছর ৩-৫ কোটি টাকা খরচ হয়ে যায় এই টোল চালাতে। অবিলম্বে এই খরচ বন্ধ করতে চায় রাজ্য।

Published by: Arka Deb
First published: October 10, 2020, 11:05 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर