'জম্মু-কাশ্মীরে যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ থাকলে যদি মানুষের জীবন বাঁচে তাতে সমস্যা কোথায়', মন্তব্য রাজ্যপালের

'জম্মু-কাশ্মীরে যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ থাকলে যদি মানুষের জীবন বাঁচে তাতে সমস্যা কোথায়', মন্তব্য রাজ্যপালের

গত ১০ দিনে একটি মৃত্যুও ঘটেনি কাশ্মীরে, যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রাখলে যদি জীবন বাঁচে তাতে সমস্যা কী', প্রশ্ন তুলেছেন মালিক

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: কাশ্মীরের পরিস্থিতি নিয়ে ফের উত্তপ্ত জাতীয় রাজনীতি | গতকাল বিমানবন্দরে বিরোধীপক্ষকে আটকানোর পর নেতাদের তরফ থেকে দাবি করা হয়েছে পরিস্থিতি অত্যন্ত উদ্বেগজনক । ব্যাহত যানচলাচল ও যোগাযোগ ব্যবস্থা । ওষুধ ও খাবার সহ একাধিক নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের সরবরাহ বন্ধ । এই অবস্থায় মোবাইল ও ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন রাখার সিদ্ধান্তকে সমর্থন করেছেন রাজ্যপাল সত্যপাল মালিক ।

'গত ১০ দিনে একটি মৃত্যুও ঘটেনি কাশ্মীরে, যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রাখলে যদি জীবন বাঁচে তাতে সমস্যা কী', প্রশ্ন তুলেছেন মালিক । কাশ্মীরে যেরকম পরিস্থিতি থাকত তাতে প্রত্যেক সপ্তাহে অন্তত ৫০ জনের মৃত্যু হত কিন্তু কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তে মানুষের জীবন বাঁচানোকেই প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে । '১০ দিন ধরে ফোনে কথা বলতে পারছেন না, ঠিক আছে, আমরা খুব শীঘ্রই স্বাভাবিক অবস্থা ফিরিয়ে আনব', সংবাদ সংস্থাকে জানিয়েছেন মালিক ।

ওষুধ ও খাদ্যসামগ্রী সরবরাহের ঘাটতির রিপোর্টও খারিজ করে দিয়েছেন মালিক । 'ইদের দিন মানুষের বাড়িতে মাংস, ডিম ও সবজিও সরবরাহ করা হয়েছে', বক্তব্য মালিকের । ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের আগে ৪ অগাস্ট থেকেই কাশ্মীর উপত্যকায় বন্ধ টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থা । সীমান্তে উপদ্রবের আশঙ্কায় বাতিল করে দেওয়া হয় অমরনাথ যাত্রাও

First published: 03:39:41 PM Aug 25, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर