Parakala Prabhakar slams Modi government: মোদি সরকার 'হৃদয়হীন, অসার'! কড়া সমালোচনা নির্মলা সীতারমণের স্বামী পরকলা প্রভাকরের

Parakala Prabhakar slams Modi government: মোদি সরকার 'হৃদয়হীন, অসার'! কড়া সমালোচনা নির্মলা সীতারমণের স্বামী পরকলা প্রভাকরের

নরেন্দ্র মোদি সরকারের কড়া সমালচোনা নির্মলা সীতারমণের স্বামী পরকলা প্রভাকরের৷

একই সঙ্গে তিনি আরও অভিযোগ করেছেন, যে সংখ্যক মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়ে দেশে মারা যাচ্ছেন, তার প্রকৃত তথ্য সামনে আনা হচ্ছে না৷

  • Share this:

    #কলকাতা: করোনা অতিমারির দ্বিতীয় ধাক্কা সামাল দিতে ব্যর্থ হওয়ায় নরেন্দ্র মোদি সরকারের কড়া সমালোচনা করলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণের স্বামী পরকলা প্রভাকর৷ নিজের সাপ্তাহিক ব্লগে কেন্দ্রীয় সরকারকে 'হৃদয়হীন, অসংবেদনশীল এবং অসার' বলেও কটাক্ষ করতে ছাড়েননি তিনি৷

    প্রভাকর নিজে একজন অর্থনীতিবিদ এবং রাজনৈতিক বিশ্লেষক৷ গত বছর লকডাউন পরবর্তী সময়েও কেন্দ্রীয় সরকারের সমালোচনায় সরব হয়েছিলেন তিনি৷ করোনার দ্বিতীয় ধাক্কার জেরে বর্তমানে দেশের যা পরিস্থিতি, সে সম্পর্কে বলতে গিয়ে প্রভাকর বলেন, 'মনে হচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর জনপ্রিয়তা এবং বাকপটুতা দিয়ে সরকারের ব্যর্থকা এবং হৃদয়হীনতাকে ঢাকা দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে৷ অসার বলেই ওরা পরিযায়ী শ্রমিকদের দুর্দশার ছবি ভুলে যেতে পেরেছে৷ কিন্তু জনপ্রিয়তা বা রাজনৈতিক পুঁজি কোনও সংকেত না দিয়েই হঠাৎ ফুরিয়ে যায়৷ এই অসারতা চিরকালীন হতে পারে না৷ স্বচ্ছতা, সহানুভূতি টিকে থাকবে৷ প্রধানমন্ত্রী অন্তত এখন বেছে নিন, তিনি কোনটা চান৷'

    একই সঙ্গে তিনি আরও অভিযোগ করেছেন, যে সংখ্যক মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়ে দেশে মারা যাচ্ছেন, তার প্রকৃত তথ্য সামনে আনা হচ্ছে না৷ আক্রান্তের সংখ্যাও অনেক বেশি বলে অভিযোগ করেছেন প্রভাকর৷ তাঁর অভিযোগ, 'চিকিৎসকরা বলছেন, পরিস্থিতি খুবই খারাপ৷ করোনার নমুনা পরীক্ষা করার ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে৷ হাসপাতাল, ল্যাবগুলিতে যা চাপ পড়ছে, তা তাদের পরিকাঠামোর তুলনায় অনেক বেশি৷ হাসপাতালের বাইরে রোগী নিয়ে অ্যাম্বুল্যান্সের অপেক্ষা, শ্মশানে চিতার সারি, হাসপাতালে বেড না থাকায় স্ট্রেচারে রোগীদের রেখে চিকিৎসা, প্রিয়জনদের হারানোর বুক ফাটা কান্নার ছবিতে আমাদের সোশ্যাল মিডিয়া ভরে যাচ্ছে৷'

    রাজনৈতিক নেতা এবং ধর্ম গুরুদের একহাত নিয়ে প্রভাকর আরও অভিযোগ করেছেন, মানুষের জীবনের থেকেও তাঁদের কাছে নির্বাচন এবং ধর্মীয় সমাগম বেশি গুরুত্বপূর্ণ৷ ক্ষুব্ধ প্রভাকর বলেন, 'মানুষের জীবনের দাম এঁদের কাছে শূন্য৷ কীভাবে বিভিন্ন মিছিল, মিটিংয়ের জন্য লোক জড়ো করা হচ্ছে, টিভি চ্যানেলগুলি তাই দেখাচ্ছে৷ প্রধানমন্ত্রী, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, মুখ্যমন্ত্রী, বিরোধী দলনেতা প্রত্যেকে৷ এ ছাড়াও কুম্ভ মেলায় িবপুল জনসমাগম তো রয়েইছে৷ যখন যা ক্ষতি হওয়ার হয়ে গেল, তার পর ধর্মগুরুরা প্রতীকী মেলার কথা বলছেন৷ কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধি নিজের জনসভা বাতিল করেছিলেন৷ কিন্তু সমস্ত বিধিকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে তৃণমূল এবং বিজেপি সব রাজনৈতিক সভা চালিয়ে গিয়েছে৷'

    প্রভাকর অবশ্য মনে করেন লকডাউন কোনও সমাধান নয়৷ কিন্তু এই মুহূর্তে যতক্ষণ না পর্যাপ্ত ভ্যাকসিন এবং চিকিৎসা পরিকাঠামো তৈরি করা যাচ্ছে, সংক্রমণের হারে লাগাম পরাতে ততক্ষণ লকডাউনই একমাত্র উপায় বলে মনে করেন তিনি৷ একই সঙ্গে তাঁর পরামর্শ, যত দ্রুত সম্ভব শিশু এবং অন্তঃসত্ত্বাদের বাদ দিয়ে দেশের জনসংখ্যার মোট ৭০ শতাংশ মানুষকে প্রতিষেধক দেওয়ার ব্যবস্থা করতে হবে৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published:
    0

    লেটেস্ট খবর