Covid alert: করোনা সংক্রমণ দ্রুত বাড়ছে, পরিস্থিতি সামলাতে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত নয়া নিয়ম কেজরিওয়াল সরকারের

Covid alert: করোনা সংক্রমণ দ্রুত বাড়ছে, পরিস্থিতি সামলাতে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত নয়া নিয়ম কেজরিওয়াল সরকারের

পরিস্থিতি সামলাতে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত বড় সিদ্ধান্ত কেজরিওয়াল সরকারের

করোনা সংক্রমণ আবার নতুন করে বাড়ার পরে এটাই দিল্লি সরকারের সবচেয়ে কড়া সিদ্ধান্ত।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: ক্রমশ বেড়ে চলেছে করোনা (Corona) সংক্রমণ। সারা দেশেই ফের চিন্তা বাড়াচ্ছে কোভিড ১৯ (Covid-19)। তাই করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আনতে বড় সিদ্ধান্ত নিল দিল্লি সরকার (Delhi Government)। আজ থেকে শুরু হল নাইট কার্ফু। এএনআই সূত্রে জানা যাচ্ছে রাত ১০টা থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত চলবে এই নাইট কার্ফু। এই সময়ের জন্য বেশ কিছু নিষেধাজ্ঞা জারি থাকবে। আগামী ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত এই নাইট কার্ফু জারি থাকবে।

    করোনা সংক্রমণ আবার নতুন করে বাড়ার পরে এটাই দিল্লি সরকারের সবচেয়ে কড়া সিদ্ধান্ত। গত শুক্রবার দিল্লির মুখ্যিমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল (Arvind Kejriwal) বলেছেন, রাজধানীতে এটা করোনার চতুর্থ ঢেউ চলছে। তবে এখনও সম্পূর্ণ লকডাউন ঘোষণা করার মতো পরিস্থিতি আসেনি। কেজরিওয়ালের কথায়, পরিস্থিতি এখন যা, তাতে এখনই আমরা লকডাউন ঘোষণা করছি না। আমরা পরিস্থিতি খুব কাছ থেকে পর্যবেক্ষণ করছি। মানুষের কথা ভেবে চিন্তেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

    সোমবার দিল্লিতে নতুন করে আক্রান্ত হন ৩৫৪৮ জন। মৃত্যু হয় ১৫ জনের। এর পরেই নড়েচড়ে বসে কেজরিওয়াল সরকার। অবশেষে মঙ্গলবারই এই নাইট কার্ফুর সিদ্ধান্ত নেয় কেজরিওয়াল সরকার। কোভিড নিয়ন্ত্রণের জন্য রেস্তোরাঁ, নাইট ক্লাব, ব্যানকোয়েট হলের উপর কিছু নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে।

    প্রসঙ্গত, দিল্লিতে শেষ বার লকডাউন ঘোষণা হয়েছিল ২০২০-র ৩১ ডিসেম্বর ও ১ জানুয়ারি। এই দুই দিনে ভিড় নিয়ন্ত্রণে আনতেই নাইট কার্ফু ঘোষণা করেছিল দিল্লি সরকার।

    উল্লেখ্য, করোনার দ্বিতীয় ঢেউ নিয়ে চিন্তায় গোটা দেশ। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক সূত্রে জানানো হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশজুড়ে করোনায় (Corona) আক্রান্ত হয়েছেন ৯৬ হাজার ৯৮২ জন। অন্যদিকে, কোভিড ১৯ (Covid-19)-এ মৃত্যু হয়েছে ৪৪৬ জনের। মঙ্গলবার দেশের ১১টি রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে জরুরি ভিত্তিতে বৈঠক করবেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডক্টর হর্ষবর্ধন

    Published by:Swaralipi Dasgupta
    First published: