দেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

#News18FarmReformSurvey| নয়া কৃষি আইন কৃষক স্বার্থ বিরোধী নয়, বিক্ষুব্ধদের অবস্থান বদল জরুরি: News18 Network সমীক্ষা

#News18FarmReformSurvey| নয়া কৃষি আইন কৃষক স্বার্থ বিরোধী নয়, বিক্ষুব্ধদের অবস্থান বদল জরুরি: News18 Network সমীক্ষা

২ হাজার ৪১২ জন উত্তরদাতাদের অধিকাংশই কিন্তু মনে করছেন এই আইন কৃষকদের স্বার্থবিরোধী নয়, কৃষকদেরই উচিত নিজেদের অবস্থান প্রত্যাহার করা।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: কৃষি আইন নিয়ে উত্তাল দেশের রাজধানী। আন্দোলনকারী কৃষকরা এখনও অনড়, তাঁরা সংশোধন নয়, চান কৃষি আইন প্রত্যাহার করা হোক। জমায়েতে সারা দেশে থেকে নানা দল মতের প্রতিনিধিরা যোগ দিলেও আন্দোলনের বীজটা এসেছে পাঞ্জাব থেকে। এই অবস্থায় স্বাভাবিক প্রশ্নটাই হল গোটা দেশ কী ভাবছে? কৃষি সংস্কারকে তাঁরা কি চোখে দেখছেন? এই প্রশ্ন নিয়েই আমরা ঘুরেছিলাম ২২ রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে। ২ হাজার ৪১২ জন উত্তরদাতাদের অধিকাংশই কিন্তু মনে করছেন এই আইন কৃষকদের স্বার্থবিরোধী নয়, কৃষকদেরই উচিত নিজেদের অবস্থান প্রত্যাহার করা। #News18FarmReformSurvey নিয়ে আসছে এই সমীক্ষার রিপোর্ট৷

কেন্দ্রের নয়া কৃষি আইনের বিরোধিতা সরব বামেরা। কিন্তু তথ্য বলছে খোদ বাম রাজ্য কেরলেই অনেকে চাইছেন কৃষিক্ষেত্রে সংস্কার আসুক। কেরল, ওড়িশা এবং বিহারে মোট উত্তরদাতাদের মধ্যে যথাক্রমে ৯৬.৫৯ শতাংশ, ৮৫.৫ শতাংশ এবং ৮৪.৮৭ শতাংশ ভোট গিয়েছেন। হরিয়ানার মোট অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে ৮০ শতাংশ চাইছেন সংস্কার। যদিও অনেকটাই অনড় পাঞ্জাবের জনতা। সেখানকার অংশগ্রহণকারীদের ৫৬ .৩৬ শতাংশ মানুষ কৃষি আন্দোলন নিয়ে অন্যরকম বার্তা দিয়েছেন। ৫৬.৫৯ শতাংশ উত্তরদাতা বিশ্বাস করেন যে সময় এসেছে আন্দোলন বন্ধ হোক৷ নতুন কৃষি আইনকে সমর্থন করছে ৫৩.৬ শতাংশ অংশগ্রহণকারী৷ অন্যদিকে আবার ৩০.৬ শতাংশ এই আইনকে সমর্থন করছেন না৷ ১৫.৮ শতাংশ যদিও এই বিষয়ে নিশ্চিত নন৷

শাসক শিবির বারবারই বলছে কৃষক আন্দোলনে ঢুকছে রাজনীতির হাওয়া। বিরোধীরা ভুল বোঝাচ্ছেন আন্দোলনকারীদের। দেখা গেল, এই মতটাও পোষণ করছেন অনেকে। অংশগ্রহণকারীদের ৪৮.৭১ শতাংশই বিশ্বাস করে যে এই কৃষি সংস্কার আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ রাজনৈতিকভাবে অনুপ্রাণিত। যদিও ৩২.৫৯ শতাংশ মানুষ এই তথ্যে বিশ্বাস করেন না৷ ১৮.৭০ শতাংশ এই বিষয়ে নিশ্চিত নন৷

আমাদের প্রশ্নের উত্তরে উত্তরদাতাদের ৫২.৬৯ শতাংশ জানিয়েছেন তাঁরা বিশ্বাস করে যে প্রতিবাদী কৃষকদের এই কৃষি আইন বাতিল করার জন্য চাপ সৃষ্টি করা উচিত নয়। অন্তত ৬০.৯০ শতাংশ বিশ্বাস করে কৃষকরা নতুন আইন অনুযায়ী ফসলের ভাল দাম পেতে পারে। এই ব্যবস্থাকে একটা বড় অংশই (৭৩.০৫ শতাংশ) ভারতীয় কৃষিক্ষেত্রের সংস্কার ও আধুনিকীকরণ হিসেবেই দেখছে এই আইন প্রণয়নকে।

অন্তত ৬৯.৬৫ শতাংশ অংশগ্রহণকারীই বলছেন, কৃষকরা যদি চায় উৎপাদিত পণ্য এই নিয়মে এপিএমসি মন্ডির বাইরে বিক্রি করতে পারে। এই কারণেই এই আইনকে স্বাগত জানিয়েছেন তাঁরা। এমএসপি অব্যাহত থাকবে এমন লিখিত আশ্বাসের সরকারের প্রস্তাবকে ৫৩.৯৪% সমর্থন করেছেন নানা রাজ্যে। আগাছা পোড়ানোর বিষয়ে কেন্দ্রের নিষেধাজ্ঞাশ প্রত্যাহারের যে দাবি উঠছে আন্দোলনকারীদের পক্ষ থেকে, তাতে সায় দেননি অধিকাংশই। অন্তত ৬৬.৭১ শতাংশ বলছেন, এই নিয়ম বাতিল করা উচিত নয় কোনও মতেই।

Published by: Arka Deb
First published: December 21, 2020, 10:04 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर