দেশের বাজারে এল Royal Enfield Himalayan, দাম শুরু ২ লক্ষ টাকা থেকে!

দেশের বাজারে এল Royal Enfield Himalayan, দাম শুরু ২ লক্ষ টাকা থেকে!
নতুন এই Royal Enfield Himalayan বাইকে মূল মডেলের লুক অর্থাৎ অরিজিনাল ডিজাইনই বজায় থাকবে। তবে নতুন সংযোজন হল ব়য়্যাল এনফিল্ড ট্রিপার নেভিগেশন।

নতুন এই Royal Enfield Himalayan বাইকে মূল মডেলের লুক অর্থাৎ অরিজিনাল ডিজাইনই বজায় থাকবে। তবে নতুন সংযোজন হল ব়য়্যাল এনফিল্ড ট্রিপার নেভিগেশন।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: এবার দেশের বাজারে এল Royal Enfield Himalayan। আজ সংস্থার তরফে এক ঘোষণায় জানানো হয়েছে, ইয়োরোপের বেশ কয়েকটি দেশ ও ব্রিটেনের পাশাপাশি ভারতের বাজারেও লঞ্চ করল Royal Enfield Himalayan। এক্ষেত্রে নতুন তিনটি অর্থাৎ গ্র্যানাইট ব্ল্যাক, মিরাজ সিলভার ও পাইন গ্রিন কালার অপশনে পাওয়া যাবে এই বাইক। সঙ্গে রয়েছে ট্রিপার নেভিগেশন সিস্টেম। আসুন জেনে নেওয়া যাক বিশদে!

নতুন এই Royal Enfield Himalayan বাইকে মূল মডেলের লুক অর্থাৎ অরিজিনাল ডিজাইনই বজায় থাকবে। তবে নতুন সংযোজন হল ব়য়্যাল এনফিল্ড ট্রিপার নেভিগেশন। এক্ষেত্রে রিয়েল টাইম ডিরেকশনের জন্য একটি যথাযথ নেভিগেশন ডিসপ্লে ডিভাইজ থাকছে। Google Map প্ল্যাটফর্মের সাহায্যে তৈরি এই ডিভাইজে পেয়ারিংয়ের ব্যবস্থাও রয়েছে। এক্ষেত্রে Royal Enfield অ্যাপ ও বাইক-আরোহীর স্মার্টফোনের সাহায্যে পেয়ারিং করা যাবে ডিভাইজটি।

সিটিং অ্যারেঞ্জমেন্টের দিক থেকে বাইকটিতে একটু পরিবর্তন আনা হয়েছে। এক্ষেত্রে পিছনের সিটে অর্থাৎ রেয়ার কেরিয়ারে একটি অতিরিক্ত প্লেট যুক্ত করা হচ্ছে। এর জেরে যে কোনও লাগেজ ব্যাগ বা অন্যান্য জিনিস আরও ভালো ভাবে নিয়ে যাওয়া যাবে। এর পাশাপাশি রেয়ার কেরিয়ারের উচ্চতাও খানিকটা কমানো হয়েছে। প্রস্ততকারীসংস্থা সূত্রে খবর, আরোহীর পাশাপাশি অন্যদের যাতে বাইকে উঠতে সুবিধা হয়, সে কথা মাথায় রেখেই রেয়ার কেরিয়ারের ক্ষেত্রে এই পরিবর্তন আনা হয়েছে। এছাড়াও নতুন Himalayan মডেলে অপেক্ষাকৃত পাতলা ও একটি নতুন ফ্রন্ট ব়্যাক যুক্ত করা হয়েছে।


বাইকের ইঞ্জিনে তেমন কোনও পরিবর্তন আসছে না। এক্ষেত্রে ২০২১ Royal Enfield Himalayan মোটর সাইকেলে ৪১১ CC সিঙ্গল সিলিন্ডার ইঞ্জিন রয়েছে। যা ৬৫০০ rpm হারে ২৪.৩ BHP ও ৪০০০- ৪৫০০ rpm হারে ৩২ NM টর্ক পর্যন্ত ক্ষমতা সরবরাহ করতে পারে। ইঞ্জিনের সঙ্গে থাকছে ফাইভ স্পিড গিয়ারবক্স। শোনা যাচ্ছে, ২,০১,৩১৪ টাকার আশপাশে হতে পারে এই মোটর সাইকেলের দাম।

এই বিষয়ে, Royal Enfield-এর CEO বিনোদ কে দাসারি (Vinod K Dasari) জানিয়েছেন, মাত্র পাঁচ বছরেরও কম সময়ে বিশ্ববাজারে একটি নতুন সেগমেন্ট তৈরি করে ফেলেছে Royal Enfield Himalayan। ২০১৬ সাল থেকে ক্রমেই ক্রেতাদের চাহিদা বেড়েছে। গ্রাহকদের কথা মাথায় রেখে এই বাইকে বার বার নানা ধরনের আপগ্রেডেশন ও পরিবর্তন আনা হয়েছে। বাইকের লুক আরও আকর্ষণীয় করে তোলার চেষ্টা করা হয়েছে। আশা করি, নতুন বাইকটিও ক্রেতাদের নজর কাড়বে!

Published by:Piya Banerjee
First published: