‘রেস্তোরাঁ বন্ধ হোক, গ্রেফতার করা হোক মালিককে...’ দিল্লিতে অক্সিজেন কালোবাজারি কাণ্ডে ক্ষোভ নেটিজেনদের

Photo Source: Twitter

দিল্লির খান মার্কেটের মতো জায়গায় এমন কাণ্ডে হকচকিয়ে গিয়েছেন প্রত্যেকেই ৷ সোশ্যাল মিডিয়ায় ওই রেস্তোরাঁর নামে নেগেটিভ কমেন্টে ভরিয়ে দিয়েছেন নেটিজেনরা ৷

  • Share this:

    নয়াদিল্লি: দেশজুড়েই এখন অক্সিজেনের চরম সংকট ৷ রাজধানী দিল্লির অবস্থা আরোই ভয়ঙ্কর ৷ এই অবস্থায় সম্প্রতি দিল্লির বেশ কয়েকটি নামী বিলাসবহুল রেস্তোরাঁ থেকে উদ্ধার হয়েছে পাঁচশোর বেশি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর ৷ ঘটনায় মূল অভিযুক্ত রেস্তোরাঁগুলির মালিক নবনীত কালরা ৷ তিনি এখন পলাতক ৷ দিল্লির খান মার্কেটের মতো জায়গায় এমন কাণ্ডে হকচকিয়ে গিয়েছেন প্রত্যেকেই ৷ সোশ্যাল মিডিয়ায় ওই রেস্তোরাঁর নামে নেগেটিভ কমেন্টে ভরিয়ে দিয়েছেন নেটিজেনরা ৷

    হাতে আসা একটি অডিও ক্লিপ থেকেই পুলিশ জানতে পারে, রেস্তোরাঁর মালিক নবনীত তার চেনা পরিচিত বন্ধু-মহলের মধ্যে অক্সিজেন কনসেনট্রেটর চড়া দামে বিক্রি করছিলেন ৷ সম্প্রতি দিল্লির খান মার্কেটের কাছে খান চাচা এবং টাউন হল রেস্তোরাঁ থেকে মোট ১০৫টি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর উদ্ধার করা হয়। তার আগে লোধি কলোনির একটি রেস্তোরাঁ থেকেও ৪১৯টি কনসেনট্রেটর পাওয়া গিয়েছিল। ঘটনায় অভিযুক্ত গৌরব, সতীশ শেঠি, বিক্রান্ত এবং হিতেশ নামের চার ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে ৷ অক্সিজেনের এই চরম সংকটের সময় কিছু অসাধু মানুষের এই কারবার দেখে সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেদের ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন নেটিজেনরা ৷

    ট্যুইটারে একজন লিখেছেন, ‘‘ অত্যন্ত নক্কারজনক কাজ ৷ এখনই বন্ধ করা হোক খান চাচা ! আর কোনওদিন ওই রেস্তোরাঁয় যাব না ৷ খাবার অর্ডারও দেব না ৷ রেস্তোরাঁকে পুরোপুরি বয়কট করা উচিৎ ৷ ’’ আরও একজন লেখেন, ‘‘ রেস্তোরাঁর মালিককে জেলে পাঠানো হোক ৷ বন্ধ করা হোক রেস্তোরাঁ ৷  জোম্যাটো-সুইগির মতো ফুড ডেলিভারি অ্যাপগুলিও এদের বয়কট করুক ৷’’

    পুলিশ জানিয়েছে, উদ্ধার হওয়া অডিও ক্লিপে রেস্তোরাঁর মালিক নবনীত কালরাকে বলতে শোনা গিয়েছে,  ‘‘আমায় দিনে ২ লক্ষ ফোন তুলতে হয়। সবার প্রশ্নের উত্তর দিতে পারব না। এত চাপের মধ্যে সবাইকেই মেশিন দেওয়া সম্ভব নয়। বাকিদের প্রত্যেককে একটু জানিয়ে দিন।’’

    Published by:Siddhartha Sarkar
    First published: