মাত্র ১৮ ঘণ্টায় ২৫ কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ, বিশ্ব রেকর্ড NHAI-এর

মাত্র ১৮ ঘণ্টায় ২৫ কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ, বিশ্ব রেকর্ড NHAI-এর

মাত্র ১৮ ঘণ্টায় ২৫ কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ, বিশ্ব রেকর্ড NHAI-এর

বিজয়পুর-সোলাপুর (Vijaypur-Solapur) ৫২ নম্বর ন্যাশনাল হাইওয়ের ফোর লেন প্রজেক্টের একটি ২৫.৫৪ কিলোমিটার সিঙ্গল লেন তৈরি করতে সময় লেগেছে মাত্র ১৮ ঘ?

  • Share this:

#বেঙ্গালুরু: মাত্র ১৮ ঘণ্টার মধ্যে ২৫ কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ করে বিশ্ব রেকর্ড গড়ল ন্যাশনাল হাইওয়ে অথরিটি অফ ইন্ডিয়া (National Highway Authority of India)। সম্প্রতি এক ট্যুইট করে একথা জানালেন কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহন মন্ত্রী নীতিন গড়কড়ি ( Nitin Gadkari)। এক্ষেত্রে বিজয়পুর-সোলাপুর (Vijaypur-Solapur) ৫২ নম্বর ন্যাশনাল হাইওয়ের ফোর লেন প্রজেক্টের একটি ২৫.৫৪ কিলোমিটার সিঙ্গল লেন তৈরি করতে সময় লেগেছে মাত্র ১৮ ঘণ্টা।

ট্যুইটে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী আরও জানান, এই দ্রুততম কাজের প্রচেষ্টা শীঘ্রই লিমকা বুক অফ রেকর্ডসে (Limca Book of Records) নথিভুক্ত হবে। রাস্তা তৈরির কাজের সঙ্গে যুক্ত সকলকে আমার আন্তরিক অভিনন্দন। এই বিষয়ে NHAI-এর এক শীর্ষ আধিকারিক জানিয়েছেন, এই রাস্তাটি বেঙ্গালুরু-চিত্রদুর্গা-বিজয়পুরা- সোলাপুর-ঔরঙ্গাবাদ-ধুলে-ইন্দোর-গোয়ালিয়র করিডরেরই (Bengaluru-Chitradurga-Vijayapura-Solapur-Aurangabad-Dhule-lndore-Gwalior) একটি অংশ। রাস্তাটি তৈরির পিছনে প্রায় ৫০০ শ্রমিক দিনরাত পরিশ্রম করেছেন। তবে একটি নির্দিষ্ট রাস্তা তৈরি হয়নি। একই সময়ের মধ্যে পাঁচটি আলাদা জায়গায় এই রাস্তা তৈরির কাজ হয়েছে। যা সব মিলিয়ে ২৫.৫৪ কিমি। এক্ষেত্রে প্রথমে ২০ কিমি সিঙ্গল লেনের পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছিল। লক্ষ্য ছিল ১২ ঘণ্টার মধ্যে কাজ শেষ করা। কিন্তু পরে আরও ৫.৫ কিলোমিটার রাস্তা ও অতিরিক্ত ছয় ঘণ্টা সময় লেগে যায়।

NHAI-এর কাজের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন কর্নাটকের উপ-মুখ্যমন্ত্রী গোবিন্দ কার্জল (Govind Karjol)। তিনি জানান, এই কাজ আগামী রোড প্রোজেক্টগুলির জন্য একটি দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। মাত্র ১৮ ঘণ্টার মধ্যে ২৫.৫৪ কিলোমিটার রাস্তা তৈরির জন্য নিঃসন্দেহে কঠিন ও নিরন্তর পরিশ্রম করতে হয়েছে। সে জন্য পুরো টিমকে আমার ধন্যবাদ। সংশ্লিষ্ট হাইওয়ে দক্ষিণ ও উত্তর ভারতের জন্য অত্যন্ত উল্লেখযোগ্য। এটি দুই প্রান্তের ভারতকে মেলাতে সাহায্য করবে। তাছাড়া ন্যাশনাল হাইওয়েজ ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রামের (National Highways Development Programme) নর্থ-সাউথ করিডোরের জন্যও বিকল্প রুট হিসেবে ব্যবহৃত হবে এটি।

তিনি আরও জানান, পুরো প্রজেক্ট মহারাষ্ট্র ও কর্নাটকের পরিকাঠামোগত উন্নয়নেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেবে। সোলাপুর (Solapur), বিজাপুরের (Bijapur) বাইপাস, ছয়টি ফ্লাইওভারের নির্মাণ ও সামগ্রিক ভাবে এই ফোর লেন প্রোজেক্ট যাতায়াতের ক্ষেত্রে একটা নতুন দিগন্তের সূচনা করবে। এক কথায় বলতে গেলে যাত্রার সময় কমার পাশাপাশি ভাড়া এবং গাড়ির জ্বালানি খরচও কমবে।

এক্ষেত্রে বিজয়াপুর-সোলাপুর (Vijayapur-Solapur) জাতীয় সড়কের মোট পাঁচটি সেকশনে কাজ করেছে NHAI। এর মধ্যে তিনটি সেকশন পড়ছে কর্নাটকের ধুলকেড় (Dhulked), হোরাট্টি তান্ডা (Horatti Tanda) ও টিডাগুন্ডিতে (Tidagundi)। বাকি দু'টি সেকশন রয়েছে মহারাষ্ট্রে। আর এই নির্মাণ কাজের তত্ত্বাবধানে রয়েছেন NHAI-এর প্রজেক্ট ডিরেক্টর সঞ্জয় কদম (Sanjay Kadam), IGM ডিরেক্টর ভেঙ্কটেশ রাও (Venkatesh Rao) ও IGM টিম লিডার কে সিদ্দানাগৌড়া (K. Siddanagouda)।

তবে, এর আগেও একটি বিশ্ব রেকর্ড হয়েছিল। সেবার পেভমেন্ট কোয়ালিটি কংক্রিট (PQC) প্রজেক্টের অধীনে ২৪ ঘণ্টায় ২,৫৮০ মিটার দীর্ঘ ফোর লেন হাইওয়ে তৈরি হয়েছিল। দিল্লি-ভদোদরা-মুম্বই (Delhi-Vadodara-Mumbai) জুড়ে গ্রিনফিল্ড এক্সপ্রেসওয়ের সূত্র ধরেই এই রাস্তা নির্মিত হয়েছিল।

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published:
0

লেটেস্ট খবর