• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • চাপ বাড়াচ্ছেন কৃষকরা, আসরে নামতে হল মোদিকেও! শাহ, রাজনাথের সঙ্গে জরুরি বৈঠক

চাপ বাড়াচ্ছেন কৃষকরা, আসরে নামতে হল মোদিকেও! শাহ, রাজনাথের সঙ্গে জরুরি বৈঠক

কৃষক আন্দোলন নিয়ে জরুরি বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী৷ Photo-File, PTI

কৃষক আন্দোলন নিয়ে জরুরি বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী৷ Photo-File, PTI

শনিবারের বৈঠকে সমাধান সূত্র না বেরোলে হরিয়ানা সীমান্ত থেকে দিল্লির যন্তর মন্তরের দিকে এগিয়ে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়ে রেখেছেন কৃষকরা৷

  • Share this:

    #দিল্লি: সরকারের উপরে চাপ বাড়িয়ে ক্রমশ আন্দোলনের তীব্রাতা বাড়াচ্ছেন কৃষকরা৷ আগামী ৮ ডিসেম্বর ভারত বনধেরও ডাক দিয়েছেন তাঁরা৷ এই পরিস্থিতিতে শনিবার ফের সরকারের সঙ্গে পঞ্চম দফার বৈঠকে বসার কথা কৃষকদের৷ কিন্তু তাতেও সমাধান সূত্র না বেরোলে পরিস্থিতি আরও ঘোরাল হতে পারে৷ এই অবস্থায় এ দিন সকালেই কৃষকদের আন্দোলন নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং এবং কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমারের সঙ্গে জরুরি বৈঠকে বসলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷

    নয়া কৃষি আইন প্রত্যাহার করতে হবে৷ নিজেদের এই দাবিতে এখনও অনড় কৃষকরা৷ দিল্লি- হরিয়ানা সীমান্তে জাতীয় সরক অবরুদ্ধ করে বসে রয়েছেন তাঁরা৷ কিন্তু সরকার আইন সংশোধনে রাজি হলেও প্রত্যাহারে নারাজ৷ এই কারণেই দু' পক্ষে বেশ কয়েক দফা আলোচনার পরেও সমাধান সূত্র বেরোয়নি৷ উল্টে সরকারের রক্তচাপ বাড়িয়ে দেশের বিভিন্ন অংশে ছড়িয়ে পড়ছে কৃষক বিক্ষোভের আঁচ৷ এমন কি, কানাডাতে ভারতীয় দূতাবাসের বাইরেও বিক্ষোভ হয়েছে৷ বিরোধী দলগুলি তো বটেই, সমাজের বিভিন্ন মহল থেকে কৃষকদের আন্দোলনে সমর্থন জানানো হচ্ছে৷ আবার প্রতিদিনই দিল্লি- হরিয়ানা সীমান্তে বিক্ষোভকারী কৃষকদের সংখ্যা বাড়ছে৷ কৃষকদের পাশে দাঁড়িয়ে ইতিমধ্যেই পদ্ম বিভূষণ পুরস্কার ফিরিয়ে দিয়েছেন পঞ্জাবের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী প্রকাশ সিং বাদল৷ সরকারি সম্মান ফেরানোর কথা জানিয়েছেন পঞ্জাবের বেশ কয়েকজন ক্রীড়াবিদ৷

    আন্দোলনকারী কৃষক সংগঠনগুলি ৮ ডিসেম্বর ভারত বনধের ডাক দিয়েছে৷ আবার শনিবারের বৈঠকে সমাধান সূত্র না বেরোলে হরিয়ানা সীমান্ত থেকে দিল্লির যন্তর মন্তরের দিকে এগিয়ে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়ে রেখেছেন কৃষকরা৷ সংসদ ভবনের বাইরেও বিক্ষোভ দেখানোর পরিকল্পনা রয়েছে তাঁদের৷ কৃষকরা সত্যিই এই পথে এগোলে আরও উত্তপ্ত হয়ে উঠতে পারে পরিস্থিতি৷

    ফলে শান্তিপূর্ণ ভাবে সমাধান সূত্র বের করাই এখন সরকারের লক্ষ্য৷ খোদ প্রধানমন্ত্রী বার বার দাবি করেছেন, নতুন কৃষি আইনে কৃষকদেরই উন্নতি হবে, আয় বাড়বে৷ তার পরেও নিজেদের অবস্থানেই অনড় কৃষকরা৷ শেষ পর্যন্ত মোদি মন্ত্রে সরকার কৃষকদের বোঝাতে সক্ষম হয় কি না, এ দিনের বৈঠকে সেটাই দেখার৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: