Home /News /national /
Narendra Modi: করোনার বৈঠকে পেট্রোল-ডিজেল নিয়ে নিশানা, মমতা সহ বিরোধীদেরই দায়ী করলেন মোদি!

Narendra Modi: করোনার বৈঠকে পেট্রোল-ডিজেল নিয়ে নিশানা, মমতা সহ বিরোধীদেরই দায়ী করলেন মোদি!

বিরোধীদের নিশানা করলেন প্রধানমন্ত্রী৷

বিরোধীদের নিশানা করলেন প্রধানমন্ত্রী৷

নরেন্দ্র মোদি অভিযোগ করেন, বিশ্ববাজারে তেলের দাম বাড়ছে দেখে গত নভেম্বর মাসেই পেট্রোল- ডিজেলের উপরে রাজস্ব শুল্ক কমিয়েছিল কেন্দ্রীয় সরকার৷

  • Share this:

    #কলকাতা: বৈঠক ডাকা হয়েছিল করোনা অতিমারির চতুর্থ ঢেউ আটকানো নিয়ে৷ সেই বৈঠকেই পেট্রোল- ডিজেলের দাম নিয়ে কার্যত বিরোধী শাসিত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের অস্বস্তিতে ফেলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ পেট্রোল- ডিজেলের উপরে কর না কমানোর জন্য মহারাষ্ট্র, কেরলের মতো বিরোধী শাসিত রাজ্যগুলির সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গের নামও৷ অবিলম্বে পেট্রোল- ডিজেলের উপর থেকে কর কমানোর জন্য রাজ্যগুলিকে অনুরোধও করেছেন নরেন্দ্র মোদি৷ প্রধানমন্ত্রীর এই অনুরোধ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সহ বিরোধী শাসিত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরা রাখেন কি না, সেটাই দেখার৷

    করোনার চতুর্থ ঢেউ কীভাবে রোখা যায়, তা নিয়ে আলোচনা করতে এ দিন সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের নিয়ে ভার্চুয়াল বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও৷ করোনার চতুর্থ ঢেউ আটকাতে কেন্দ্র- রাজ্যের সমন্বয়ের উপরে জোর দেন মোদি৷ এই প্রসঙ্গে কথা বলতে বলতেই পেট্রোল- ডিজেলের চড়া দামের বিষয়টি উত্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী৷

    আরও পড়ুন: ফাইল ফেরত পাঠালেন রাজ্যপাল, আটকে গেল বাবুলের শপথগ্রহণ! ফের সংঘাত?

    নরেন্দ্র মোদি অভিযোগ করেন, বিশ্ববাজারে তেলের দাম বাড়ছে দেখে গত নভেম্বর মাসেই পেট্রোল- ডিজেলের উপরে রাজস্ব শুল্ক কমিয়েছিল কেন্দ্রীয় সরকার৷ রাজ্যগুলিকেও নিজেদের প্রাপ্য কর কমানোর অনুরোধ করেছিল তারা৷ মোদির অভিযোগ, কিছু রাজ্য কেন্দ্রের অনুরোধে সাড়া দিলেও অনেক রাজ্য সেই পথে হাঁটেনি৷ ফলে সেই রাজ্যগুলির মানুষকে বেশি দামে পেট্রোল- ডিজেল কিনতে হচ্ছে৷ প্রধানমন্ত্রীর অভিযোগ, কর না কমিয়ে আসলে নিজেদের রাজ্যের বাসিন্দাদের সঙ্গে অন্যায় করছে এই রাজ্যগুলি৷

    উদাহরণ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'আমি কারও সমালোচনা করছি না৷ কিন্তু কর্ণাটক, গুজরাত যদি পেট্রোল- ডিজেলের করে ছাড় না দিত, তাহলে হয়তো তারা এই ছ' মাসে আরও সাড়ে পাঁচ হাজার কোটি থেকে সাড়ে তিন- চার হাজার কোটি টাকা অতিরিক্ত রাজস্ব আদায় করতে পারত৷ কিন্তু তারা এই ক্ষতি স্বীকার করেছে৷ তার সুবিধা পেয়েছে সেই সমস্ত রাজ্যের মানুষ৷ কিন্তু পশ্চিমবঙ্গ, মহারাষ্ট্র, কেরল, অন্ধ্র প্রদেশ, তামিলনাড়ু, ঝাড়খণ্ড, তেলেঙ্গানার মতো রাজ্য কর কমায়নি৷' ঘটনাচক্রে প্রধানমন্ত্রী যে সাতটি রাজ্যের নাম নিয়েছেন, তার সবই বিরোধী শাসিত৷

    আরও পড়ুন: সনিয়ার প্রস্তাবে না প্রশান্ত কিশোরের, কংগ্রেসে যোগদান জল্পনায় ইতি

    পেট্রোলের দামের তুলনা টেনে মোদি আরও বলেন, 'মুম্বাইতে পেট্রোল বিক্রি হচ্ছে ১২০ টাকায়, অথচ মুম্বাইয়ের কাছেই দামান-দিউতে সেই পেট্রোল বিক্রি হচ্ছে ১০২ টাকায়৷ কলকাতায় পেট্রোলের দাম ১১৫ টাকার বেশি, লখনউ-গৌহাটিতে তা বিক্রি হচ্ছে ১০৫ টাকায়৷ উত্তরাখণ্ডের মতো ছোট রাজ্যের দেহরাদুনেও পেট্রোল ১০৩ টাকায় বিক্রি হচ্ছে৷ তাই আপনারা যারা এখনও কর কমাননি, তাঁদের কাছে অনুরোধ, এই ছ' মাসে আপনারা অতিরিক্ত রাজস্ব আদায় করেছেন৷ এবার অন্তত দেশের স্বার্থে কর কমিয়ে সাধারণ মানুষকে তার সুবিধে দিন৷ ' রাশিয়া- ইউক্রেন যুদ্ধ পরিস্থিতির জন্যই যে জ্বালানির দাম বেড়েছে, তাও জানাতে ভোলেননি প্রধানমন্ত্রী৷

    পেট্রোল- ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধির জন্য বার বারই বিরোধীদের তোপের মুখে পড়তে হয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারকে৷ উত্তর প্রদেশ সহ পাঁচ রাজ্যে ভোটের ফল প্রকাশের পরই লাগাতার বেড়েছে পেট্রোল- ডিজেলের দাম৷ এ দিনের বৈঠকে কৌশলে প্রধানমন্ত্রী পেট্রোল- ডিজেলের চড়া দামের দায় বিরোধী শাসিত রাজ্যগুলির উপরেই চাপিয়ে দিলেন কি না, সেই প্রশ্ন উঠছে৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published:

    পরবর্তী খবর