NRC তালিকায় নাম নেই, তাই ভোটে গুরুত্বও নেই...ব্রাত্য শিলচরের দেশবন্ধুনগর

এভাবে আর কত দিন? আশা-আশঙ্কার দোলাচলেই দিন কাটছে চল্লিশ লক্ষ অসমবাসীর।

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Apr 16, 2019 02:29 PM IST
NRC তালিকায় নাম নেই, তাই ভোটে গুরুত্বও নেই...ব্রাত্য শিলচরের দেশবন্ধুনগর
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Apr 16, 2019 02:29 PM IST

#শিলচর: ভোটযুদ্ধে সরগরম দেশ। সব দলই ভোট পেতে নানা প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে। জিতলে হয়তো কিছু পূরণ হবে, কিছু পূরণ হবে না। তবে সব যেন এসে থমকে গিয়েছে শিলচরের দেশবন্ধুনগরে। প্রান্তিক এই জনপদে ভোটের কোন ছাপই নেই। এনআরসির তালিকায় নাম না থাকায় রাজনৈতিক দলগুলির কাছেও হঠাৎই গুরুত্ব হারিয়েছেন এখানকার বাসিন্দারা।

এনআরসি। এই একটি শব্দই তাড়া করছে প্রায় চল্লিশ লক্ষ অসমবাসীকে। ঘাড়ের ওপর খাঁড়ার মত ঝুলছে দেশ ছাড়ার আশঙ্কা। বিজেপি, কংগ্রেসের মত দেশের প্রধান রাজনৈতিক দলগুলির প্রচারের অন্যতম ইস্যু জাতীয় নাগরিকপঞ্জীর মত এই স্পর্শকাতর বিষয়। অথচ শিলচরের দেশবন্ধু নগরে এসে যেন সব থমকে গিয়েছে। প্রান্তিক এই গ্রামে এসে বোঝা দায় দেশে ভোট চলছে।

যাঁদের নিয়ে রাজনৈতিক দলগুলির এত মাথাব্যথা প্রচারে কিন্তু তাঁরাইত্য। অসমে প্রথম দফার ভোট শেষ। দ্বিতীয় দফার ভোটও দোড়গোড়ায়। অথচ দেশবন্ধু নগরের মত এলাকাগুলিতে প্রচারে আসেনি কোনও রাজনৈতিক দল। মিটিং নেই, মিছিল নেই। দেখা নেই ব্যানার-ফেস্টুনের ৷

বিভিন্ন কারণে এনআরসি খসড়া তালিকায় জায়গা হয়নি অনেকের। এরমধ্যে ডি-ভোটার বা সন্দেহভাজন ভোটার হওয়ায় অনেকের নাম তালিকা থেকে বাদ গিয়েছে। অনেকের উনিশের লোকসভায় ভোটাধিকার থাকলেও ৩১ জুলাই পূর্ণাঙ্গ তালিকা প্রকাশের পর কী হবে তা নিয়ে সন্ধিহান এঁরা। তাঁদের প্রতি কেন এই অনীহা? ক্ষোভে ফুঁসছে দেশবন্ধুনগরের মত একাধিক এলাকার বাসিন্দারা। যাঁদের এখনও ভোটাধিকার রয়েছে তাঁরা এই ভোটে জবাব দিতে চান।

এভাবে আর কত দিন? আশা-আশঙ্কার দোলাচলেই দিন কাটছে চল্লিশ লক্ষ অসমবাসীর।

First published: 02:29:55 PM Apr 16, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर