• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • ‘মেরা বাপ চোর হ্যায়’, পণ দিতে না পারায় মহিলার দেহে ট্যাটু !

‘মেরা বাপ চোর হ্যায়’, পণ দিতে না পারায় মহিলার দেহে ট্যাটু !

 পণ মেলেনি ঠিকঠাক ৷ তাই শশ্বুর বাড়িতে এসে প্রথম দিন থেকেই নানা অত্যাচার সহ্য করতে হচ্ছে ২৮ বছর বয়সি জয়পুরের এক মহিলাকে ৷

পণ মেলেনি ঠিকঠাক ৷ তাই শশ্বুর বাড়িতে এসে প্রথম দিন থেকেই নানা অত্যাচার সহ্য করতে হচ্ছে ২৮ বছর বয়সি জয়পুরের এক মহিলাকে ৷

পণ মেলেনি ঠিকঠাক ৷ তাই শশ্বুর বাড়িতে এসে প্রথম দিন থেকেই নানা অত্যাচার সহ্য করতে হচ্ছে ২৮ বছর বয়সি জয়পুরের এক মহিলাকে ৷

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #জয়পুর: পণ মেলেনি ঠিকঠাক ৷ তাই শশ্বুর বাড়িতে এসে প্রথম দিন থেকেই নানা অত্যাচার সহ্য করতে হচ্ছে ২৮ বছর বয়সি জয়পুরের এক মহিলাকে ৷ প্রথমে মারধর ৷ তারপর স্বামী, দেওর মিলে গণধর্ষণ ! বছরের পর বছর এই অত্যাচার সহ্য করছিলেন জয়পুরের এই মহিলা ৷ তবে অত্যাচার শুধু মারপিট, গণধর্ষণ নয় ৷ মহিলার অভিযোগ, মহিলাকে জোর করে তাঁর শরীরের নানা জায়গায় অশ্রাব্য ভাষায় ট্যাটু করা হয় ৷ কপালে ট্যাটু করে লিখে দেওয়া হয়, ‘মেরা বাপ চোর হ্যায় !’

    খবর অনুযায়ী, ২০১৪ সালে জয়পুরের রেনি গ্রামে জগন্নাথ নামে এক ব্যক্তির সঙ্গে বিয়ে হয় মহিলার৷ পণ হিসেবে জগন্নাথ দাবি করেছিল ৫১ হাজার টাকা ৷ কিন্তু মহিলার বাবা সেই টাকা দিতে পারেনি ৷ তারপর থেকেই মহিলার প্রতি অত্যাচার শুরু হয় ৷

    মহিলা জানান, ‘বিয়ের প্রথম দিন থেকেই শশ্বুর বাড়ির সবাই আমার সঙ্গে খারাপ ব্যবহার শুরু করে৷ দেওর ও স্বামী মিলে বহুবার আমাকে গণধর্ষণ করেছে ৷ মারধর করেছে ৷ তারপর সারা দেহে অশ্রাব্য ভাষায় ট্যাটু এঁকে দিয়েছে ৷ কপালে লিখে দিয়েছে মেরা বাপ চোর হ্যায় ৷ প্রতিবাদ করতে ভয় পাই ৷ তারপর সুযোগ পেয়ে পালিয়ে বাড়িতে পালিয়ে আসি !’

    ২৮ বছর বয়সি এই মহিলা আপাতত আছেন নিজের বাবার বাড়িতে ৷ জগন্নাথ ও তাঁর পুরো পরিবারের নামে পুলিশে অভিযোগও করা হয়েছে ৷

    First published: