Corona-র ৭৭১ ভেরিয়েন্ট দেশে, ১৮টি রাজ্যে শুরু ভাইরাসের 'ডাবল অ্যাটাক'

Corona-র ৭৭১ ভেরিয়েন্ট দেশে, ১৮টি রাজ্যে শুরু ভাইরাসের 'ডাবল অ্যাটাক'

মারণ ভাইরাস এখন ডাবল অ্যাটাক করছে। আর তাই সংক্রমণ হচ্ছে এত দ্রুত হারে।

মারণ ভাইরাস এখন ডাবল অ্যাটাক করছে। আর তাই সংক্রমণ হচ্ছে এত দ্রুত হারে।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: ফের সারা দেশে আগুনের মতো ছড়াচ্ছে করোনাভাইরাস। প্রায় প্রতিদিন লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণের হার। এমন পরিস্থিতিতে প্রশ্ন উঠছে, ভাইরাসের মিউটেশন-এর জন্যই কি সংক্রমণ এত দ্রুত ছড়াচ্ছে! জানা যাচ্ছে, এখনো পর্যন্ত দেশের ১৮টি জেলায় করোনাভাইরাসের ৭৭১ ভেরিয়েন্ট-এর খোঁজ পাওয়া গিয়েছে। অর্থাৎ মারণ ভাইরাস এখন ডাবল অ্যাটাক করছে। আর তাই সংক্রমণ হচ্ছে এত দ্রুত হারে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ভাইরাসের এই ডাবল অ্যাটাক থেকে ইমিউনিটি পর্যন্ত বাঁচাতে পারছে না।

    করোনা-বিধি পালকন এবং হার্ড ইমিউনিটি গঠন করতে পারলেই একমাত্র মারণ ভাইরাসের হাত থেকে মুক্তি। বিশেষজ্ঞরা এর আগেও এমনই জানিয়েছিলেন। তবে যতক্ষণ পর্যন্ত কমপক্ষে ৪০-৫০ কোটি দেশবাসীর টিকাকরণ হচ্ছে, ততক্ষণ হার্ড ইমিউনিটি তৈরির সম্ভাবনা নেই। ফলে ততদিন স্যানিটাইজার মাস্ক-এর ব্যবহার ও করোনা বিধি পালন ছাড়া অন্য কোনও রাস্তা নেই। স্বাস্থ্যমন্ত্রক দশটি ন্যাশনাল ল্যাব নিয়ে একটি গ্রুপ বানিয়েছিল। সেই গ্রুপ করোনাভাইরাসের একাধিক ভেরিয়েন্ট-এর জিনোম সিকোয়েন্সিং করেছে। ভারতে করোনাভাইরাসের ১০ হাজার ৭৮৭টি স্যাম্পেল টেস্ট করা হয়েছিল ওই ল্যাবগুলিতে। যার মধ্যে ৭৭১টি আলাদা ভেরিয়েন্ট-এর খোঁজ পাওয়া গিয়েছে। তার মধ্যে আবার ৭৩৬টি স্যাম্পেল ব্রিটেনের করোনা ভ্যারিয়েন্ট-এর। ৩৪ টি দক্ষিণ আফ্রিকা ও একটি ব্রাজিলের ভেরিয়েন্ট।

    প্রতিটি স্যাম্পেল বিদেশ ফেরত অথবা বিদেশ থেকে দেশে আসা মানুষদের সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের। পরীক্ষায় আরো একটি ব্যাপার জানা গিয়েছে। ২০২০-র ডিসেম্বরের পর থেকে এখন ভাইরাস অনেক বেশি মিউটেট। যার ফলে এই মিউটেশন থেকে ভাইরাস আরও বেশি ছড়াচ্ছে। আর এখন করোনার উপর ইউনিটির কোনও প্রভাব পড়ছে না। ভাইরাস ডাবল অ্যাটাক করছে। ফলে এখন একজন ব্যক্তি দুবার করোনায় আক্রান্ত হলেও অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না।

    Published by:Suman Majumder
    First published:

    লেটেস্ট খবর