অযোধ্যায় রামমন্দির তৈরির জন্য ১ লক্ষ টাকা অনুদান মুসলমান ব্যবসায়ীর

অযোধ্যায় রামমন্দির তৈরির জন্য ১ লক্ষ টাকা অনুদান মুসলমান ব্যবসায়ীর
রামমন্দিরের জন্য অনুদান

সম্প্রীতির বার্তা দিতে এগিয়ে এসেছেন এক মুসলিম ব্যবসায়ীও। চেন্নাইয়ের এক ব্যবসায়ী এক লক্ষ টাকা অনুদান দিয়েছেন অযোধ্যায় রামমন্দির তৈরির জন্য। পাশাপাশি, উত্তরপ্রদেশ ও তামিলনাড়ু থেকেই বহু মানুষ এই আর্থিক অনুদানের জন্য এগিয়ে এসেছেন।

  • Share this:

    #চেন্নাই: অযোধ্যায় রামমন্দির তৈরির জন্য হরিদ্বারের শ্রী পঞ্চবটি নিরঞ্জনি আখড়া ২১ লক্ষ টাকা অনুদান দিয়েছে। সেখানেই সম্প্রীতির বার্তা দিতে এগিয়ে এসেছেন এক মুসলিম ব্যবসায়ীও। চেন্নাইয়ের এক ব্যবসায়ী এক লক্ষ টাকা অনুদান দিয়েছেন অযোধ্যায় রামমন্দির তৈরির জন্য। পাশাপাশি, উত্তরপ্রদেশ ও তামিলনাড়ু থেকেই বহু মানুষ এই আর্থিক অনুদানের জন্য এগিয়ে এসেছেন। দিন আনা শ্রমিক থেকে জুতো সেলাই করা মুচিও নিজেদের সামর্থ মতো মন্দির তৈরির অনুদান দিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে।

    কেন্দ্রের তৈরি করা শ্রী রাম জন্মভূমি তীর্থক্ষেত্র (SRJTK)-এর এই তহবিলে ১০ থেকে ১০০০ পর্যন্ত টাকা অনুদান দেওয়ারও সুযোগ রয়েছে। ফলে বহু মানুষ এই তহবিলে টাকা অনুদান দেওয়ার জন্য এগিয়ে এসেছেন। জানিয়েছেন, এস ভি শ্রীনিবাসন। তিনি মন্দির কমিটির সভাপতি। তাঁর কথায়, 'প্রত্যেক মানুষ যাঁদেরকে আমরা আবেদন জানিয়েছিলাম, প্রত্যেকেই টাকা অনুদানের বিষয়ে এগিয়ে এসেছেন।' তেমনই ভাবেই ওয়াই এস হাবিবকেও অনুরোধ করেছিল মন্দির কমিটি। তিনি শোনামাত্রই ১ লক্ষ টাকা তহবিলে জমা দিয়েছেন।

    হাবিবের কথায়, 'হিন্দু-মুসলিমের মধ্যে যে কোনও তফাৎ নেই, এবং পুরোটাই সম্প্রীতি সেটিই বার্তা দিতে চেয়েছিলাম। আমার নিজের ভালোবাসা থেকে যা পেরেছি তাই অনুদান দিয়েছি। দেশে মুসলিমদের হিন্দুবিরোধী বলে দেগে দেওয়া হয়। সেটি আমাকে খুবই বেদনা দেয়।' ভালো কোনও কাজের জন্য অনুদান দেওয়ার দাবি করে হাবিবের বক্তব্য, 'অন্য কোনও মন্দিরের জন্য না হলেও রামমন্দিরের জন্য অনুদান দিয়েছি। এত বছরের একটা সমস্যার সমাধান তো হয়েছে।'


    চেন্নাইয়ের জাগরণ মঞ্চের আহ্বায়ক কে ই শ্রীনিবাসনের কথায়, বহু দরিদ্র মানুষও এই কাজে এগিয়ে এসেছেন। অনেকেই ১০ টাকা করেও অনুদান দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন তিনি। বহু ছোট ছোট দোকানের ব্যবসায়ীরাও এগিয়ে এসেছেন। মন্দিরের কাছেই বসা এক মুসলিম টিপ বিক্রেতাও রামমন্দিরের জন্য ২০০ টাকা অনুদান দিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। ২০২০ সালের ৫ অগস্ট প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি অযোধ্যায় রামমন্দির তৈরির জন্য শিলান্যাস করেছিলেন।

    Published by:Raima Chakraborty
    First published: