corona virus btn
corona virus btn
Loading

আবার উত্তরপ্রদেশ! খুনে অভিযুক্তকে পুলিশের সামনে পিটিয়ে মেরে দিল জনতা

আবার উত্তরপ্রদেশ! খুনে অভিযুক্তকে পুলিশের সামনে পিটিয়ে মেরে দিল জনতা

জানা গিয়েছে, এ দিন সকালে কুশীনগরের রামপুর বাংরা এলাকায় এক ব্যক্তিকে গুলি করে খুন করে ২ বাইক আরোহী৷

  • Share this:

#কুশীনগর: ফের পিটিয়ে মেরে ফেলার ঘটনা৷ এবারও অকুস্থল উত্তরপ্রদেশ৷ এক সন্দেহভাজন খুনিকে পুলিশের সামনে পিটিয়ে খুন করল জনতা৷ সোমবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের কুশীনগরে৷

জানা গিয়েছে, এ দিন সকালে কুশীনগরের রামপুর বাংরা এলাকায় এক ব্যক্তিকে গুলি করে খুন করে ২ বাইক আরোহী৷ পেশায় শিক্ষক সুধীর সিং নামে ওই ব্যক্তিকে তাঁর বাড়ির সামনে গুলি করা হয়৷ শিক্ষককে গুলি করার পরে ওই শিক্ষকের বাড়ির ছাদে উঠে শূন্যে গুলি ছুড়তে থাকে এক দুষ্কৃতী৷ খবর পেয়ে তখন ঘটনাস্থলে পুলিশ এসে গিয়েছে৷ খুনের অভিযোগে তাকে হেফাজতে নেয় পুলিশ৷

শিক্ষকের মৃত্যুর খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়তেই উত্তেজিত জনতা পুলিশের হাত থেকে অভিযুক্ত খুনিকে ছাড়িয়ে নিয়ে গণপিটুনি দিতে শুরু করে৷ পুলিশ যতক্ষণে ঘটনাস্থলে এসেছে, ততক্ষণে শিক্ষকের বাড়ি ঘিরে ফেলেছে জনতা৷ অভিযুক্ত খুনি পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করে৷ কিন্তু জনরোষ৷ জনতা পুলিশের হাত থেকে ওই ব্যক্তিকে ছাড়িয়ে নেয়৷ তারপর পুলিশের সামনেই গণপিটুনি শুরু করে লাঠি, বাঁশ দিয়ে৷

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, উত্তেজিত জনতা মারতে আসছে দেখেই অভিযুক্ত খুনি পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করে৷ কিন্তু ক্ষুব্ধ গ্রামবাসী তাকে পুলিশের হাত থেকে ছিনিয়ে নেয়৷ পুলিশ অনেক চেষ্টা করে জনতাকে হঠানোর৷ কিন্তু পারেনি৷ পুলিশের সামনেই ওই ব্যক্তিকে পিটিয়ে মেরে ফেলে তারা৷

এসপি বিনোদ মিশ্র জানিয়েছেন, তদন্ত শুরু হয়ে গিয়েছে৷ যারা ই কাজ করল, তাদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করা হবে৷

দিন দুয়েক আগেই উত্তরপ্রদেশে চোর সন্দেহে পিটিয়ে খুন করা হয় এক ব্যক্তিকে। বৃহস্পতিবার রাতে উত্তরপ্রদেশের বরেলি জেলার একটি গ্রামের ঘটনা৷ ৩২ বছরের বসিদ খান নামে ওই ব্যক্তিকে এতটাই মারধর করা হয়, পরে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের ফলে মারা যান তিনি। ঘটনার ভিডিও–ছবি ভাইরাল হয়। জানা যায়, বসিদ নামে ওই ব্যক্তি আসলে মদ্যপ অবস্থায় ছিলেন। কিন্তু তাঁর আচরণের জন্য ঘটনাস্থলে উপস্থিত এক নিরাপত্তাকর্মীর মনে হয় তিনি আসলে চোর। এরপরই আশেপাশের লোকজন মিলে বসিদকে পাকড়াও করে। তারপর চোর সন্দেহে সামনের একটি গাছের সঙ্গে বেঁধে চলতে থাকে বেধড়ক মারধর।

Published by: Arindam Gupta
First published: September 7, 2020, 3:34 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर