Home /News /national /
J & K: মর্মান্তিক! মা, ওঠো, আমাকে স্কুলের জন্য তৈরি করবে না? মায়ের নিথর দেহকে জড়িয়ে শিশুর অঝোর কান্না

J & K: মর্মান্তিক! মা, ওঠো, আমাকে স্কুলের জন্য তৈরি করবে না? মায়ের নিথর দেহকে জড়িয়ে শিশুর অঝোর কান্না

প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

J & K: একজন আদর্শ স্ত্রী, একজন স্নেহশীল মা এবং একজন যত্নশীল শিক্ষক ছিলেন তিনি। সবার প্রিয় ছিলেন৷ আর্থিকভাবে সমর্থ নয় এমন শিশুদের পাশে ছিলেন তিনি। তাও কেন প্রাণ দিতে হল তাঁকে?

  • Share this:

    শ্রীনগর বুধবার ছিল তার জীবনের প্রথম সকাল যেদিন মা তার ঘরে আসেননি৷ তৈরি করে দেয়নি স্কুলের জন্য৷ বরং পরিবারের সদস্যদের কান্নায় ঘুম ভেঙেছিল তার। ১৩বছরের চেরি  দৌড়ে গিয়েছিল সেই ঘরে যেখানে তার মা রজনী বালার প্রাণহীন দেহ রাখা ছিল৷ নিথর৷ নিশ্চুপ৷ মাকে জাগানোর আপ্রাণ চেষ্টা করছিল মেয়েটি৷ কাতর, অসহায় কণ্ঠে বলছিল একটাই কথা, "মা, প্লিজ ওঠো, আমাকে স্কুলের জন্য তৈরি করবে না? ক্লাসে দেরি হয়ে যাচ্ছে তো!" এ দৃশ্য চোখে দেখা যায় না৷

    আরও পড়ুন- আগামী ৪৮ ঘণ্টায় বাংলায় বর্ষা ঢুকছে, দক্ষিণবঙ্গে আজ আবহাওয়ার কী পূর্বাভাস? জেনে নিন

    চেরি মাকে হারিয়েছে৷ আর একজন প্রিয় শিক্ষিকাকে হারিয়েছে অগণিত পড়ুয়া৷ মঙ্গলবার সকালে দক্ষিণ কাশ্মীরের কুলগাম জেলার গোপালপুরা এলাকায় ৩৬ বছরের শিক্ষিকাকে স্কুলের বাইরে গুলি করে হত্যা করেছে সন্ত্রাসবাদীরা। কেন তার মাকে হত্যা করা হল এটা বোঝা খুব কঠিন চেরির কাছে৷ সে শুধু এটুকু বুঝতে পারছে যে, প্রতি সকালে মা ঘুম থেকে উঠতেন, সবার জন্য প্রাতরাশ তৈরি করতেন, স্কুলের জন্য তৈরি করতেন এবং তারপর নিজে কাজে যেতেন। সে কখনই মা ছাড়া জীবন কল্পনা করতে পারে না। কিন্তু না ফেরার দেশ থেকে মাকে কী করে ফেরাবে সে?

    আরও পড়ুন-চেকআপ না করানোই কি ভুল ছিল কেকে-র? ময়নাতদন্তে উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য 

    স্ত্রীর অন্ত্যেষ্টির পরেই তাঁর স্বামী রাজ কুমার ভেঙে পড়েন। কীভাবে আশেপাশের সবাইকে ভালবাসা আর যত্নে ভরিয়ে রেখেছিলেন তাঁর স্ত্রী, সে কথাই বলছিলেন কেবল। একজন আদর্শ স্ত্রী, একজন স্নেহশীল মা এবং একজন যত্নশীল শিক্ষক ছিলেন তিনি। সবার প্রিয় ছিলেন৷ আর্থিকভাবে সমর্থ নয় এমন শিশুদের পাশে ছিলেন তিনি। তাও কেন প্রাণ দিতে হল তাঁকে?

    Published by:Rachana Majumder
    First published:

    Tags: Jammu And Kashmir

    পরবর্তী খবর