কোভিড কার্ফুতে ত্রাতা রূপে মুম্বইয়ের ক্যাফে, পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য বেনজির পদক্ষেপ

কোভিড কার্ফুতে ত্রাতা রূপে মুম্বইয়ের ক্যাফে, পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য বেনজির পদক্ষেপ

কোভিড কারফিউতে ত্রাতা রূপে দেখা দিল মুম্বইয়ের কাফে, পরিযায়ী শ্রমিকরা পেলেন বিনামূল্যে খাবার!

পশ্চিম মুম্বইয়ের বান্দ্রা অঞ্চলে অবস্থিত আর্থ কাফে এগিয়ে এসেছে আর্তদের সাহায্যে।

  • Share this:

#মুম্বই: কোভিডের প্রভাবে মুম্বই এখন বিপর্যস্ত। ধীরে ধীরে ছন্দে ফিরছিল মায়া নগরী। কিন্তু দ্বিতীয় ঢেউ সহ দ্বিগুণ শক্তিশালী হয়ে ফিরে এসেছে ভাইরাস। তাই বাধ্য হয়ে মুম্বই শহরে রাত্রিকালীন কারফিউ চালু করতে বাধ্য হয়েছেন সরকার। এতে সমস্যায় পড়েছেন কর্মহীন মানুষ ও পরিযায়ী শ্রমিকদের দল। তাঁদেরকে সাহায্য করার জন্য এগিয়ে এল মুম্বইয়ের একটি ভেগান কাফে। মুম্বইতে গত বুধবার থেকে চালু হয়েছে ১৪৪ ধারা, যেখানে একটি জায়গায় চারজনের বেশি জমায়েত হওয়ায় বাধা আছে। এই নিয়ম চলবে পয়লা মে পর্যন্ত।

পশ্চিম মুম্বইয়ের বান্দ্রা অঞ্চলে অবস্থিত আর্থ ক্যাফে এগিয়ে এসেছে আর্তদের সাহায্যে। এই কাফে অঞ্চলের বেকার মানুষ ও পরিযায়ী শ্রমিকদের পরিবারকে বিনামূল্যে খাবার সরবরাহ করছে। রেস্তরাঁর মালিক ভি খাটওয়ানি বলেছেন যে তাঁরা প্রতি দিন ১৫০টি খাবারের প্যাকেট সরবরাহ করছেন।

তিনি বলেছেন যে গত রবিবার থেকে তাঁদের ক্যাফের এই খাদ্য অভিযান চালু হয়েছে। প্রতি দিন ১৫০ জন কর্মহীন মানুষ, পরিযায়ী শ্রমিক ও তাঁদের সন্তানদের নিরামিষ পোলাও দেওয়া হচ্ছে। এই পোলাও স্বাস্থ্যসম্মত খাবার হিসেবে সব রকমের কোভিড সুরক্ষা বিধি মেনে তৈরি করেছেন রেস্তোরাঁর শেফ।

রমজান মাস শুরু হয়েছে বলে রেস্তোরাঁর স্বেচ্ছাসেবকরা মাহিমের দরগা ও মাহিম গির্জার সামনে গিয়েও খাবার বিলি করে আসছেন।

এই কাজে বাহবা দিচ্ছেন সবাই। কারণ মহারাষ্ট্র সরকার এখন কোভিড সামলাতে উইকেন্ড লকডাউন ও নাইট কারফিউ চালু করেছেন। এ হেন অবস্থায় অসংখ্য অভুক্ত মানুষের মুখে অন্ন যোগান দিয়ে দারুণ কাজ করছে এই রেস্তোরাঁ।

সর্বশেষ নির্দেশিকা অনুসারে, বৈধ কারণ ব্যতীত কোনও ব্যক্তিকে প্রকাশ্য স্থানে থাকতে দেওয়া হচ্ছে না। প্রয়োজনীয় পরিষেবাগুলি বাদে সমস্ত জায়গা, পাবলিক স্পেস, ক্রিয়াকলাপ এবং পরিষেবা বন্ধ থাকবে। চলচ্চিত্র, সিরিয়াল এবং বিজ্ঞাপনের শ্যুটিং বন্ধ থাকবে এবং কেবল ২৫ জনকে কোনও বিয়ের অনুষ্ঠানে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হবে।

বৃহস্পতিবার, মহারাষ্ট্রে ৬১,৬৯৫টি নতুন করোনাভাইরাস আক্রান্ত ব্যক্তির খবর পাওয়া গেছে এবং মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩৯,৮৫৫। গত ২৪ ঘন্টার মধ্যে প্রায় ৩৪৯ জন ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন এবং মৃতের সংখ্যা ৫৯,১৫৩-এ পৌঁছে গিয়েছে। রাজ্যে মোট ৬,২০,০৬০ জন করোনা ভাইরাস পজিটিভ রোগী আছেন।

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published: