বেঙ্গালুরু, দিল্লি, মুম্বই, এনআরএস কাণ্ডের প্রতিবাদে একজোট গোটা দেশের চিকিৎসকরা

News18 Bangla
Updated:Jun 14, 2019 11:10 AM IST
বেঙ্গালুরু, দিল্লি, মুম্বই, এনআরএস কাণ্ডের প্রতিবাদে একজোট গোটা দেশের চিকিৎসকরা
News18 Bangla
Updated:Jun 14, 2019 11:10 AM IST

#নয়াদিল্লি: এনএরএস কাণ্ডের আঁচ এবার গোটা দেশে ৷ প্রতিবাদে গর্জে উঠল বেঙ্গালুরু, হায়দরাবাদ, দিল্লি, মুম্বইয়ের চিকিৎসকরা ৷ হাতে প্ল্যাকার্ড, মুখে স্লোগান, মাথায় ব্যান্ডেজ লাগিয়ে, এনআরএসের ডাক্তারদের আন্দোলনের পাশে দাঁড়াল দেশের চিকিৎসকরা ৷

এনআরএস হাসপাতালে জুনিয়র ডাক্তারদের আন্দোলনের পাশে দাঁড়িয়েছে দিল্লির অল ইন্ডিয়া ইন্সস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্সেস (AIIMS)৷ এনআরএস কাণ্ডের প্রতিবাদে আগামিকাল শুক্রবার ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে AIIMS-এর চিকিত্‍‌সক সংগঠন৷ অন্যদিকে হায়দরাবাদের NIMS-এর চিকিৎসকরা প্রতিবাদে সরব হয়েছে ৷

64224667_713685769086324_6695905536891682816_n

সোমবার রাতে রোগী মৃত্যু ঘিরে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে এনআরএস হাসপাতাল। দু’পক্ষের গোলমালে জখম হন দুই জুনিয়র ডাক্তার। তারপর থেকেই কর্মবিরতি শুরু করেন চিকিৎসকরা। হাসপাতালের গেটে তালা লাগিয়ে দেওয়া হয়। বন্ধ করে দেওয়া হয় জরুরি বিভাগ। সুপারের ঘরের সামনে অবস্থানে বসেন জুনিয়র ডাক্তাররা। মঙ্গলবার পরিস্থিতি সামাল দিতে হাসপাতালে যান স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিকর্তা। এনআরএসে যান স্বাস্থ্য দফতরের তিন সদস্য। কথা বলেন জুনিয়র ডাক্তারদের সঙ্গে। পরে প্রিন্সিপ্যাল শৈবাল মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গেও বৈঠকে বসেন স্বাস্থ্য দফতরের আধিকারিকরা। প্রিন্সিপ্যালের ঘরে যাওয়ার সময়ে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিকর্তাকে ঘিরে স্লোগান দিতে থাকেন জুনিয়র ডাক্তাররা।

fe40cb9059e75491947f9b030669c903

Loading...

দফায় দফায় বৈঠকেও কোনও সমাধান মেলে না। পর্যাপ্ত নিরাপত্তার আশ্বাস দিয়ে চিকিৎসকদের কাজে ফিরতে অনুরোধ করেন স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্যও। সিসিটিভি ফুটেজ দেখে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়ারও আশ্বাস দেন তিনি। কিন্তু তাতেও অনড় চিকিৎসকরা। জুনিয়র ডাক্তারদের সঙ্গে কথা বলেন শিক্ষাস্বাস্থ্য আধিকারিকও।

দুপুরে এনআরএসে যান পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মাও। স্বাস্থ্য প্রতিন্ত্রী ও হাসপাতাল সুপারের সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি। বৈঠকে থাকেন স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিকর্তাও। বৈঠকের পর বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে কথা বলেন পুলিশ কমিশনার। কিন্তু অবস্থান তুলতে রাজি হননি জুনিয়র ডাক্তাররা। মুখ্যমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ দাবি করেন তাঁরা।

এদিকে সিসিটি ফুটেজ দেখে চিকিৎসকদের মারধরের ঘটনায় পাঁচজনকে গ্রেফতার করে এন্টালি থানার পুলিশ। তাঁরা সকলেই রোগীর পরিবারের সদস্য। আরও কয়েকজনের খোঁজে তল্লাশি চলছে।

First published: 11:01:16 AM Jun 14, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर