হোম /খবর /দেশ /
ওপেন এয়ার ডাইনিং স্পেস চালানোর জন্য ২০০টি রেস্তোরাঁকে লাইসেন্স দিল্লিতে

দিল্লি: ওপেন এয়ার ডাইনিং স্পেস চালানোর জন্য এমসিডি ২০০টি রেস্তোরাঁকে লাইসেন্স দিয়েছে

এখনও পর্যন্ত প্রদত্ত লাইসেন্সগুলির মধ্যে ১৫৫টি ওপেন স্পেস ডাইনিং এর জন্য এবং বাকি ৪৫টি টেরেস ডাইনিংয়ের জন্য, এমসিডির বিবৃতিতে যোগ করা হয়েছে ।

  • Share this:

নয়াদিল্লি : দিল্লির মিউনিসিপ্যাল ​​কর্পোরেশন রাজধানী জুড়ে রেস্তোরাঁ এবং খাবারের দোকান সহ দুই শতাধিক প্রতিষ্ঠানকে টেরাইএবং তার সংযুক্ত খোলা জায়গায় ওপেন এয়ার ডাইনিং খোলার লাইসেন্স দিয়েছে।

এখনও অবধি মঞ্জুর করা লাইসেন্সগুলির মধ্যে, ১৫৫টি খোলা জায়গায় ডাইনিংয়ের জন্য এবং বাকি ৪৫টি টেরেস ডাইনিংয়ের জন্য।

একটি বিবৃতিতে বলা হয়েছে "এক সপ্তাহেরও কম সময়ের মধ্যে, দিল্লির মিউনিসিপ্যাল ​​কর্পোরেশন রেস্তোরাঁ এবং ইটারিজদের টেরেস এবং তাদের সাথে সংযুক্ত খোলা জায়গাগুলিতে ওপেন এয়ার ডাইনিং খোলার আবেদনগুলিকে অনুমতি দিয়েছে। ২০০টি প্রতিষ্ঠানকে লাইসেন্স দেওয়া হয়েছে,"

লেফটেন্যান্ট গভর্নর, ভি.কে. সাক্সেনা ৩১শে অক্টোবর, ২০২২ রেস্তোরাঁ, ভোজনশালা এবং হোটেলগুলির লাইসেন্সের প্রয়োজনীয়তা আরো সহজ করার জন্য সংশ্লিষ্ট বিভাগ/এজেন্সিগুলির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের একটি কমিটি গঠন করেছেন  এই উদ্দেশ্যের সাথে যে এটা লেট নাইট ডাইনিং, আলফ্রেস্কো ইটেরিজ , ওপেন এয়ার ডাইনিং এবং টেরাস ডাইনিং এর পথটা প্রশস্ত করবে। কমিটি ১৫ দিনের মধ্যে তার রিপোর্ট জমা দেয়, তারপরে এমসিডি ওপেন এয়ার ডাইনিং এর জন্য আবেদনগুলি আমন্ত্রণ জানাতে শুরু করে।

দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে তিনি যে পদক্ষেপ এবং নীতিগুলি প্রচারের উপর জোর দিয়েছেন যেটা অর্থনৈতিক কার্যকলাপ, কর্মসংস্থান সৃষ্টি এবং নাইট টাইম ইকোনমিকে উত্সাহিত করবে। হোটেল / রেস্তোরাঁ / আতিথেয়তা শিল্পের জন্য একটি সক্ষম ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে এবং তা নিশ্চিত করার জন্য তিনি দিল্লি পুলিশ, স্থানীয় সংস্থা এবং পরিবেশ দফতরের আধিকারিকদের সাথে গত মাসে অনেকগুলি বৈঠক করেছেন।

তিনি লাইসেন্সিং প্রয়োজনীয়তা যৌক্তিককরণ, নিষেধাজ্ঞামূলক প্রবিধান এবং প্রক্রিয়া সহজীকরণ, হয়রানি ও দুর্নীতি প্রশমিত করতে নিয়ন্ত্রক এবং উদ্যোক্তাদের মধ্যে একটি অনলাইন ইন্টারফেস নিশ্চিত করা এবং যথাযথ আইনশৃঙ্খলার মাধ্যমে নিরাপত্তা নিশ্চিত করার উপর জোর দিচ্ছেন।

এখন পর্যন্ত, বিশেষ করে যারা শহরের ছোট ও মাঝারি অংশের আতিথেয়তা প্রতিষ্ঠান/উদ্যোক্তারা, তারা দিল্লি পুলিশ, স্থানীয় সংস্থা (MCD এবং NDMC), ফায়ার ডিপার্টমেন্ট এবং DPCC দ্বারা নিবন্ধন/লাইসেন্সিং এবং পরিদর্শন প্রক্রিয়ার অধীন ছিল। এই প্রক্রিয়াগুলি প্রায়শই পুরানো, অপ্রয়োজনীয়ভাবে সীমাবদ্ধ, দমনমূলক এবং বিবেচনামূলক বলে পাওয়া গেছে। তারা প্রায়ই হয়রানি এবং দুর্নীতির অভিযোগ নিয়ে আসে যার ফলস্বরূপ, অন্যান্য বৈশ্বিক এবং ভারতীয় শহরগুলির তুলনায় , দিল্লির আতিথেয়তা সেক্টর এখনও তার সম্পূর্ণ কার্যকারিতা অর্জন করতে পারেনি।

আশা করা হচ্ছে যে এই কমিটির রিপোর্টের মাধ্যমে যে পরিবর্তন ও সংশোধনীগুলি আনা হয়েছে, তা কেবল মহামারীতে আক্রান্ত হসপিটালিটি ইন্ডাস্ট্রির জন্য অনেক সুফল আনবে এবং 'নাইট টাইম ইকোনমি'কে উত্সাহ দেবে, যার ফলে বৃহত্তর কর্মসংস্থান এবং অর্থনৈতিক উন্নতি নিশ্চিত করা যাবে।

Published by:Brototi Nandy
First published:

Tags: Delhi