• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • মানবিক পদক্ষেপ, এইচআইভি পজিটিভদের জন্য় নয়া ম্য়াট্রিমনিয়াল সাইট

মানবিক পদক্ষেপ, এইচআইভি পজিটিভদের জন্য় নয়া ম্য়াট্রিমনিয়াল সাইট

Representational Image

Representational Image

  • Share this:

    #আহমেদাবাদ: বেঙ্গলি ম্যাট্রিমনি কিংবা জীবন সাথী ৷ এই সমস্ত সাইটগুলির সঙ্গে তো আমরা সকলেই পরিচিত ৷ কিন্তু এইচআইভি আক্রান্তদের জন্য ম্যাট্রিমনি ! এমনটা নিশ্চয়ই আপনার অজানা ৷

    আহমেদাবাদে এমনই একটি দৃষ্টান্তমূলক উদ্যোগ নিল গুজরাত স্টেট নেটওয়ার্ক অফ পজিটিভ পিপল, ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ ম্যানেজমেন্ট, আহমেদাবাদ অ্যান্ড শ্রী রাম কৃষ্ণ এক্সপোর্টস ৷ তারাই একে অপরের সঙ্গে হাত মিলিয়ে আইআইএম-এ ক্যাম্পাসে তৈরি করেছে এই নয়া ম্যাট্রিমনিয়াল সাইট ৷ এই বিশেষ ম্যাট্রিমনিটির নাম gsnpplus.org ৷ এই সাইটে এইচআইভি আক্রান্ত তরুণ তরুণী খুঁজে নিতে পারেন তাদের জীবনসঙ্গী ৷

    শুধুমাত্র এইচআইভি আক্রান্তদের জন্য তৈরি হয়েছে এই সাইটটি ৷ IIM-A-র সেন্টার ফর ম্যানেজমেন্ট অফ হেল্থ সার্ভিসের সভাপতি জানান, ‘এক্ষেত্রে দু’জনের পরিচয়ই একেবারে গোপন রাখা হয় ৷ খুবই গোপনীয় ভাবেই এখানে সকলে তাদের প্রোফাইল আপলোড করেছেন ৷ কারোওর পরিচয় যাতে পাবলিক না হয় ৷ সেটি দেখার দায়িত্ব অবশ্যই যারা এই সাইটে নাম নথিভুক্ত করেছেন তাদের ৷’

    আইআইএম-এ-এর ডিরেক্টর তথা প্রফেসর এরোল ডি’সুজা বলেন, আইআইএম-এ অবস্থিত সিএমএইচএস সেন্টার গত ১৯৮০ সাল থেকে কাজ শুরু করেছে ৷ সম্প্রতি বেশ কিছু ভিন্ন কাজ শুরু করেছে এই সংস্থাটি ৷ তারমধ্যেই এটি একটি যুগান্তকারী উদ্যোগ নিল এই সংস্থাটি ৷ কারণ এইচআইভি-তে যারা আক্রান্ত ৷ তারা প্রায়শই চুপ করে থাকেন ৷ নিজেরা প্রকাশ্যে বলতে পারেন না তাদের রোগের কথা ৷ ফলে দেশে আদৌ ক’জন এইচআইভি রোগে আক্রান্ত রয়েছেন ৷ সেই হিসেব পাওয়া যায়না যথাযথ ৷ তাই দেশে এইচআইভি আক্রান্তদের সুন্দর একটি পরিবেশ দিতেই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে ৷

    এই প্রসঙ্গে গুজরাত স্টেট নেটওয়ার্ক অফ পজিটিভ পিপলের প্রতিষ্ঠাতা বলেন, ‘আমি নিজে এইচআইভি আক্রান্ত ৷ ১৯৯৭ সালে ব্লাড টেস্ট করার সময় এইআইভি ভাইরাস ধরা পড়ে ৷ যার জন্য আমি আমার সন্তানকেও নষ্ট করি ৷ কিন্তু তারপরেও আমি আশা ছাড়িনি ৷ এরপর থেকেই লড়াই শুরু করি দেশের এইচআইভি আক্রান্তদের নিয়ে ৷ ২০০৫ অবধি ২৪৫ জন এইচআইভি কাপলের বিয়েও স্থির করি আমরা ৷ যার ফলে তাদের সন্তান এইচআইভি আক্রান্ত হয়না ৷’

    First published: