Madras HC on EC: সঠিক পদক্ষেপ না করলে ২ মে ভোট গণনা বন্ধ, কমিশনকে চরম হুঁশিয়ারি মাদ্রাজ হাইকোর্টের

Madras HC on EC: সঠিক পদক্ষেপ না করলে ২ মে ভোট গণনা বন্ধ, কমিশনকে চরম হুঁশিয়ারি মাদ্রাজ হাইকোর্টের

প্রতীকী ছবি৷

কমিশনের আধিকারিকদের বিরুদ্ধে খুনের মামলা দায়ের করা উচিত বলেও মন্তব্য করেছেন মাদ্রাজ হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়৷

  • Share this:

    #কলকাতা: করোনা পরিস্থিতির অবনতির জন্য একমাত্র দায়ী নির্বাচন কমিশন৷ এ দিন এমনই কড়া মন্তব্য করেছে মাদ্রাজ হাইকোর্ট৷ শুধু তাই নয়, কমিশনের আধিকারিকদের বিরুদ্ধে খুনের মামলা দায়ের করা উচিত বলেও মন্তব্য করেছেন মাদ্রাজ হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়৷ একই সঙ্গে কমিশনকে সতর্ক করে মাদ্রাজ হাইকোর্ট জানিয়েছে, ভোট গণনার দিন করোনা বিধি মানতে তারা কী ব্যবস্থা নিচ্ছে, তা ৩০ এপ্রিলের মধ্যে আদালতে জানাতে হবে কমিশনকে৷ তা না হলে প্রয়োজনে ২ মে ভোট গণনাও আদালত বন্ধ করে দেবে বলে কমিশনকে সতর্ক করে দিয়েছে মাদ্রাজ হাইকোর্ট৷

    এ দিন মাদ্রাজ হাইকোর্ট স্পষ্ট জানিয়েছে, রাজনৈতিক দলগুলিকে কোভিড বিধি মানতে বাধ্য করাতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ নির্বাচন কমিশন৷ সাংবিধানিক একটি প্রতিষ্ঠান হিসেবে এক্ষেত্রে তারাই করোনা পরিস্থিতির অবনতির জন্য় সবথেকে বেশি দায়ী বলে মনে করে আদালত৷

    কমিশনকে তীব্র ভর্ৎসনা করে মাদ্রাজ হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় এবং সেনথিলকুমার রামমূর্তির ডিভিশন বেঞ্চ বলে, 'আজকে দেশে যে পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে তার জন্য় একমাত্র আপনারাই দায়ী৷ আপনারা নিজেদের হাতে থাকা কোনও ক্ষমতারই প্রয়োগ করেননি ৷  করোনা বিধি মানার জন্য বার বার এই আদালত আপনাদের সতর্ক করেছে, কিন্তু তার পরেও বিধি ভেঙে সভা, মিছিল করার জন্য কোনও রাজনৈতিক দলের বিরুদ্ধে আপনারা পদক্ষেপ করেননি৷'

    এর পরেই আরও কড়া সুরে ডিভিশন বেঞ্চ কমিশনকে চরমসীমা বেঁধে দিয়ে জানায়, 'এবার ২ মে-র আগে কীভাবে কোভিড বিধি মানা হবে, তার ব্লুপ্রিন্ট যদি আপনারা আদালতে জমা না দেন, তাহলে আমরা আপনাদের আশ্বস্ত করছি যে আমরা ভোট গণনা বন্ধ করে দেব৷ যাতে আপনাদের অপদার্থতার মাশুল এই রাজ্যকে আর না দিতে হয়৷ '

    প্রসঙ্গত পশ্চিমঙ্গ সহ যে পাঁচ রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন চলছে, তার মধ্য়ে রয়েছে তামিলনাড়ুও৷ তবে তামিলনাড়ুতে একদফায় গত ৬ এপ্রিল ভোট গণনা শেষ হয়েছে৷ ফলপ্রকাশ হবে আগামী ২ মে৷

    আদালত পর্যবেক্ষণে আরও জানিয়েছে, কোনও অবস্থাতেই ২ তারিখের ভোট গণনার কারণে তামিলনাড়ুর করোনা সংক্রমণের হার আর বাড়তে দেওয়া হবে না৷ প্রয়োজনে পর্যায়ক্রমে ফলপ্রকাশের কথাও বলেন বিচারপতিরা৷ আদালত জানায়, 'এই মুহূর্তে জনস্বাস্থ্যের বিষয়টিই সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ৷ একটি সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানকে এই কথা মনে করিয়ে দিতে হচ্ছে, তা হতাশাজনক৷'

    তামিলনাড়ুর পরিবহণ মন্ত্রী এম আর বিজয়ভাস্করের করা একটি আবেদনের শুনানি চলাকালীনই এই পর্যবেক্ষণের কথা জানায় আদালত৷ বিজয়ভাস্কর দাবি করেছিলেন, তামিলনাড়ুর কারুর বিধানসভা কেন্দ্রের ভোট গণনায় স্বচ্ছতা বজায় রাখতে কমিশন যাতে পদক্ষেপ করে, তা নিশ্চিত করুক আদালত৷ কারণ, ওই কেন্দ্রে মোট ৭৭ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: