• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • বাথটাবে অজ্ঞান হয়ে পড়েছিলেন শ্রীদেবী, মৃত্যুর ১৫ মিনিট আগে ঠিক কী ঘটেছিল ?

বাথটাবে অজ্ঞান হয়ে পড়েছিলেন শ্রীদেবী, মৃত্যুর ১৫ মিনিট আগে ঠিক কী ঘটেছিল ?

Sridevi in relative's wedding in Dubai

Sridevi in relative's wedding in Dubai

হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে অকালেই চলে গেলেন আশির দর্শকের হার্টথ্রব শ্রীদেবী। দুবাইয়ে বিয়েবাড়ির অনুষ্ঠান সেরে শনিবার রাতে হোটেলে ফিরে যান সপরিবারে।

  • Share this:

    #দুবাই: হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে অকালেই চলে গেলেন আশির দর্শকের হার্টথ্রব শ্রীদেবী। দুবাইয়ে বিয়েবাড়ির অনুষ্ঠান সেরে শনিবার রাতে হোটেলে ফিরে যান সপরিবারে। সেখানেই হৃদরোগে আক্রান্ত হন তিনি। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা হয়। কিন্তু, ততক্ষণে হাজারও পুরুষের বুকে ঝড় তোলা শ্রীদেবীর লাব-ডুব থেমে গিয়েছে চিরতরে।

    এরপর থেকেই একে একে করে সামনে আসছে মৃত্যু আগে ঘটে যাওয়া ঘটনাগুলি ৷ সংযুক্ত আরব আমিরশাহীর একটি সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনে জানা গিয়েছে মৃত্যুর আগে হোটেল রুমে ঠিক কী ঘটেছিল শ্রীদেবীর সঙ্গে।জানা গিয়েছে, দুবাইয়ে আত্মীয়র বিয়েতে গিয়েছিলেন তিনি ৷ তিনি একদম ফিট ও খুশি ছিলেন ৷ কিন্তু আচমকা শনিবার রাতে খবর আসে যে তার হার্ট অ্যাটাক হয়েছে ৷ মৃত্যুর ১৫ মিনিট আগে যা ঘটেছিল বলিউডের প্রথম মহিলা সুপারস্টারের সঙ্গে তা আরও বেদনাদায়ক ৷

    দুবাইয়ে বিয়ের অনুষ্ঠানের পর মুম্বই ফিরে এসেছিলেন বনি কাপুর ৷ শনিবার তিনি আবার দুবাই ফিরে যান ৷ শ্রীদেবী না জানিয়ে সেখানে পৌঁছে তাকে সারপ্রাইজ দিতে চেয়েছিলেন ৷ খলিজ টাইমসের রিপোর্ট অনুযায়ী, মৃত্যুর কয়েক ঘণ্টা আগে বনি কাপুরের সঙ্গে ডিনার ডেটে যাওয়ার জন্য তৈরি হচ্ছিলেন তিনি ৷ এদিনের ডিনার ডেট শ্রীদেবীর ড্রিম ডেট হওয়ার কথা ছিল ৷ বিকেল ৫:৩০ তার সঙ্গে দেখা করতে হোটেলে পৌঁছন বনি কাপুর৷ দু’জনে হোটেলের রুমেই ছিলেন ৷

    বনি কাপুর শ্রীদেবীকে ডিনার ডেটে যাওয়ার কথা বলেন ৷ এই নিয়ে দু’জনের মধ্যে ১৫ মিনিট কথা বার্তা চলে ৷ এরপর শ্রীদেবী বাথরুমে চলে যান ৷ অনেকক্ষণ পরও শ্রীদেবী বাথরুম থেকে আসছেন না দেখে দরজা ধাক্কায় বনি কাপুর ৷ কোনও শব্দ না পাওয়ায় দপজা ভেঙে বাথরুমে ঢুকতেই শ্রীদেবীকে অজ্ঞান অবস্থায় বাথটবে পড়ে থাকতে দেখেন ৷

    তড়িঘড়ি তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকেরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে ৷ এরপর ঘটনাটি পুলিশে জানানো হয় ৷

    First published: