• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • KISHTWAR CLOUDBURST 7 DEAD 17 INJURED AFTER CLOUDBURST IN JAMMU KASHMIR RC

Kishtwar Cloudburst: মেঘভাঙা বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত কাশ্মীরি গ্রাম, উদ্ধার ৭ মৃতদেহ! নিখোঁজ প্রায় ৪০

মেঘভাঙা বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত কাশ্মীরি গ্রাম, উদ্ধার ৭ মৃতদেহ! নিখোঁজ প্রায় ৪০ (প্রতীকী ছবি।)

বুধবার ভোর থেকে জম্মু-কাশ্মীরের প্রত্যন্ত গ্রাম কিস্তওয়ারে মেঘভাঙা বৃষ্টিতে (Kishtwar Cloudburst) ভয়ানক পরিস্থিতি।

  • Share this:

    #কিস্তওয়ার: বুধবার ভোর থেকে জম্মু-কাশ্মীরের প্রত্যন্ত গ্রাম কিস্তওয়ারে মেঘভাঙা বৃষ্টিতে (Kishtwar Cloudburst) ভয়ানক পরিস্থিতি। এখনও পর্যন্ত ৭ জনের মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে। রিয়াসি জেলার ছেনাব নদীর জলস্তর ভয়ংকর বেড়ে গিয়েছে। ফলে গোটা গ্রাম ভেসে যাওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। ইতিমধ্যেই সালাল জলাধারের গেট খুলে দেওয়া হয়েছে। বুধবার সকাল থেকে কিস্তওয়ারের ডাচান তেহসিল গ্রামে মেঘভাঙা বৃষ্টি শুরু হয়েছে। ঘুমের মধ্যেই ভেসে গিয়েছেন প্রায় ৩০-৪০ জন গ্রামবাসী। এই এলাকায় পৌঁছনোর কোনও রাস্তা নেই।

    সূত্রের খবর, গুরুতর আহত অবস্থায় ৫ জনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এখনও পর্যন্ত আহত মোট ১৭ জন। ১৯টি বাড়ি ও ২১টি গোয়ালঘর একেবারে ভেসে গিয়েছে। মুষলধারে বৃষ্টির জন্য আপাতত উদ্ধারকাজ বন্ধ রাখা হয়েছে। কিস্তওয়ারের জেলাশাসক অশোক কুমার শর্মা জানিয়েছেন, 'ধ্বংসস্তূপ থেকে একাধিক দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ৮-৯টি বাড়ি একেবারে ভেঙে গিয়েছে। ভারতীয় সেনা ও পুলিশ এলাকায় উদ্ধারকাজে হাত লাগিয়েছে।'

    কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জিতেন্দ্র সিং ভারতীয় বায়ুসেনাকে কিস্তওয়ারে উদ্ধারকাজে হাত লাগাতে অনুরোধ করেছেন। স্থানীয় বাসিন্দারাও উদ্ধারকাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। জেলাশাসক জানিয়েছেন, 'ভারতীয় বায়ুসেনা কিস্তওয়ারে বন্যাবিধ্বস্ত এলাকা থেকে স্থানীয়দের উদ্ধার করার কাজ শুরু করেছে।' এই ঘটনায় বার্তা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও। তিনি ট্যুইট করে জানিয়েছেন, 'কেন্দ্রীয় সরকার কিস্তওয়ার ও কার্গিলের মেঘভাঙা বৃষ্টির ঘটনায় নজর রেখেছে। বিপর্যস্ত এলাকায় সাহায্যের কাজ শুরু করা হয়েছে। সবার সুরক্ষা ও নিরাপত্তা আশা করছি।'

    মঙ্গলবার থেকেই লাদাখ কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের কার্গিলের দুটি এলাকায় মেঘভাঙা বৃষ্টি ও হড়পা বান শুরু হয়েছে। দিল্লির মৌসম ভবন সূত্রে খবর, এখনই জম্মু-কাশ্মীরের এই দুর্যোগ কাটছে না। বিশেষ সতর্কতার কথা বলা হয়েছে রাজৌরি, রিয়াসি ও সংলগ্ন বেশ কিছু এলাকায়। সেখানে অতি ভারী বৃষ্টি পূর্বাভাস রয়েছে। বন্যা ও ধসের আশঙ্কা রয়েছে।

    Published by:Raima Chakraborty
    First published: