Prashant Kishor for Punjab Assembly Election: টাকা দিলেই ভোটের টিকিট দেবেন প্রশান্ত কিশোর? অবশেষে রহস্য ফাঁস

প্রশান্ত কিশোরের নামে প্রতারণা

তাঁর নাম ভাঙিয়ে নির্বাচনে টিকিট পাইয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতিতে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ আগেই পেয়েছিল পুলিশ। সেই সূত্রে তদন্ত এগিয়েই অবশেষে সেই প্রতারণা চক্রের পর্দাফাঁস করল পঞ্জাব পুলিশ (Punjab Police)।

  • Share this:

    #পঞ্জাব: বাংলার বিধানসভা ভোটে BJP-কে ধুলিসাৎ করেছে তৃণমূল। কিন্তু তৃণমূলের সেই বিরাট জয়ে মাস্টারমাইন্ড হিসেবে উঠে আসছে এক এবং একমাত্র নির্বাচনী স্ট্র্যাটেজিস্ট প্রশান্ত কিশোরের (Prashant Kishor) নাম। এমনকী এবছর তামিলনাড়ুতেও ডিএমকে-র নির্বাচনী কৌশলী ছিলেন তিনি। তাঁর আগের রেকর্ডও ঈর্ষণীয়। এবার সেই প্রশান্ত কিশোরের নাম করেই শুরু হয়েছে প্রতারণা চক্র। টাকা দিলেই নাকি প্রার্থী করে দেবেন প্রশান্ত কিশোর। তাঁর নাম ভাঙিয়ে নির্বাচনে টিকিট পাইয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতিতে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ আগেই পেয়েছিল পুলিশ। সেই সূত্রে তদন্ত এগিয়েই অবশেষে সেই প্রতারণা চক্রের পর্দাফাঁস করল পঞ্জাব পুলিশ (Punjab Police)। ঘটনায় দু’‌জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

    সামনেই পঞ্জাব বিধানসভা নির্বাচন। ইতিমধ্যেই প্রশান্ত কিশোরকে মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিংয়ের পরামর্শদাতা নিয়োগ করা হয়েছে প্রশান্ত কিশোরকে। সেই সূত্রেই আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে কংগ্রেসের টিকিট পাইয়ে দেওয়ার নাম করে একাধিক নেতার সঙ্গে জালিয়াতি করা হয়েছে বলে অভিযোগ। এরপরই আসরে নেমে পুলিশ রাকেশভূষণ ভাসিন ও রজতকুমার রাজা নামে দুজনেক গ্রেফতার করে পুলিশ। জানা গিয়েছে, তাঁরা দুজনেই শিবসেনা (সূর্যবংশী) নামে একটি দলের সদস্য।

    রাকেশভূষণ ও রজতকুমারের সঙ্গে গৌরব শর্মা নামে আরও এক ব্যক্তি মিলে মোট ৫ কোটি টাকা হাতিয়েছেন বলে প্রমাণ পেয়েছে পুলিশ। গৌরব শর্মাই ছিলেন গোটা চক্রের মাথা। ইতিমধ্যেই পঞ্জাবের বাটালার বিদায়ী বিধায়ক, সঙ্গরুরের দুই স্থানীয় নেতা ও জালন্ধরের মেয়রের কাছ গৌরবরা ওই বিপুল টাকা তুলেছিলেন বলে অভিযোগ পেয়েছে পুলিশ। তাঁদের পরবর্তী লক্ষ্য ছিলেন লুধিয়ানার বিধায়ক। কিন্তু তার আগেই পুলিশের জালে চলে আসে চক্রটি।

    পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, নেতাদের কাছে গৌরব নিজে ফোন করে বলত, 'আগামী নির্বাচনে প্রার্থী খোঁজার জন্য কংগ্রেস আমাকে দায়িত্ব দিয়েছে। সেক্ষেত্রে প্রার্থী হতে চাইলে টাকা দিলেই টিকিট পাকা। দলের অনেক নেতাই আমাদের ভরসা করে টাকাও দিয়েছেন।' এইভাবেই পাঁচ কোটি টাকা হাতিয়ে নেয় গৌরব ও তাঁর সঙ্গীরা। কিন্তু শেষমেশ কোনও লাভ হল না। পুলিশের জালে নকল প্রশান্ত কিশোর ও তাঁর দল।

    Published by:Suman Biswas
    First published: