ভোট বড় বালাই! টিকিট না পেয়ে মাথা মুড়িয়ে দল ছাড়লেন কংগ্রেস নেত্রী

টিকিটের আশাতেই কি জনসেবার এত হিড়িক!

টিকিটের আশাতেই কি জনসেবার এত হিড়িক!

  • Share this:
    #নয়াদিল্লি: টিকিট বড় বালাই! সেই টিকিট না পেলে কি আর মান থাকে! টিকিটের আশাতেই কি জনসেবার এত হিড়িক! যাই হোক, টিকিট না পেয়ে দল ছাড়লেন কংগ্রেস নেত্রী লতিকা সুভাষ। মহিলা কংগ্রেসের সভাপতি পদে ছিলেন তিনি। সেই পদ থেকে ইস্তফা তো দিলেনই। সঙ্গে মাথাও মুড়িয়ে নিলেন। জানালেন, দলের বিরুদ্ধে এটাই তাঁর তীব্র প্রতিবাদ। আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে তাঁর টিকিট পাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু কংগ্রেস তাঁর আশায় জল ঢেলে দিয়েছে। তাই প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হতেই ক্ষোভে ফেটে পড়েন তিনি। দল ছাড়ার ঘোষণা করেন। লতিকার দাবি, এতদিন পর্যন্ত কংগ্রেসের হয়ে রাস্তায় নেমে লড়াই করা মহিলাদের সঙ্গে বঞ্চনা করেছে দল। প্রার্থী তালিকায় মহিলাদের একেবারেই প্রাধান্য দেওয়া হয়নি। কেরলের এত্তুমানুর থেকে প্রার্থী হতে চেয়েছিলেন লতিকা। কিন্তু কংগ্রেস তাঁকে টিকিট দেয়নি। প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালে কেরলের মহিলা কংগ্রেসের সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পেয়েছিলেন লতিকা। রাহুল গান্ধী নিজে তাঁর নাম ঘোষণা করেছিলেন। এমন নেত্রীকে কেন প্রার্থী করল না কংগ্রেস! সদুত্তর নেই পার্টির অনেক নেতার কাছেই। লতিকা অবশ্য বলছেন, গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের শিকার হয়েছেন তিনি লতিকা এদিন জানিয়েছেন, কুড়ি বছরের বেশি সময় ধরে তিনি কংগ্রেসের হয়ে মানুষের সেবা করছেন। তাই দলের এমন সিদ্ধান্ত তাঁর পক্ষে মেনে নেওয়া কঠিন। তিনি যে এখনই অন্য কোনও দলে যাচ্ছেন না, সেটাও স্পষ্ট করেছেন। কেরলের নির্বাচনে কংগ্রেসের প্রার্থী তালিকা নিয়ে দলের অভ্যন্তরে ক্ষোভ-বিক্ষোভ শুরু হয়েছে। কংগ্রেসের কার্যকরী সভাপতি কে সুধাকরণ অভিযোগ করেছেন, প্রার্থী বাছাইয়ের ক্ষেত্রে পক্ষপাতিত্ব করেছে দল। এমনকী, শীর্ষ নেতৃত্বের কাছের লোক হিসাবে পরিচিতদের টিকিট দেওয়া হয়েছে বলেও অভিযোগ করেছেন তিনি।
    Published by:Suman Majumder
    First published: