• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • প্রয়োজন ২০০০ কোটি, মিলেছে মাত্র ৫০০ কোটি, কেরলের ত্রাণ প্যাকেজে অস্বস্তিতে মোদি সরকার

প্রয়োজন ২০০০ কোটি, মিলেছে মাত্র ৫০০ কোটি, কেরলের ত্রাণ প্যাকেজে অস্বস্তিতে মোদি সরকার

Photo Courtesy: Reuters

Photo Courtesy: Reuters

  • Share this:

    #তিরুঅনন্তপুরম: এখনই প্রয়োজন ২০০০ কোটি টাকার। আশ্বাস মিলেছে মাত্র পাঁচশো কোটির। কেরলের বন্যায় ত্রাণের প্যাকেজে অস্বস্তিতে মোদি সরকার। তথ্য দিয়ে কেরলের অর্থমন্ত্রীর দাবি, ৫০০ কোটি টাকায় তিনদিন ত্রাণকাজ চালানোও সম্ভব নয়। এদিনই ১০ কোটি টাকা আর্থিক সাহায্যের কথা ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী বন্দ্যোপাধ্যায়। একমাসের বেতন দিচ্ছেন এরাজ্যের বাম বিধায়করাও ।

    একই রকম প্রাকৃতিক বিপর্যয়। অথচ দুরাজ্যে দু'রকম নিয়ম। গুজরাতের বেলায় ২০০০ কোটি। একটি বাম শাসিত। অন্যটি বিজেপি শাসিত বলেই কী এই তফাৎ ? কেরলের ক্ষেত্রে মাত্র ৫০০ কোটি। কীভাবে এতবড় বিপর্যয় মোকাবিলায় ৫০০ কোটি টাকা দেওয়ার আশ্বাস দিয়ে দায় সারল কেন্দ্র ? সোশ্যাল মিডিয়া থেকে জাতীয় রাজনীতি -- প্রশ্নের মুখে অস্বস্তিতে কেন্দ্র।

    আরও পড়ুন-কেরলে বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩৬০, আগামী কয়েকদিন আবহাওয়ার কী পূর্বাভাস ?

    কেরলে বন্যাদুর্গতদের পাশে দাঁড়াতে ১০ কোটির আর্থিক সাহায্য ঘোষণা রাজ্যের। ট্যুইটে সেই ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷

    কেরলে বন্যার সঙ্গে যাঁরা লড়াই করছেন, তাদের পাশে রয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার।  মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে ১০ কোটি টাকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের মোকাবিলা করার জন্য প্রয়োজনীয় সবরকম সাহায্য করতেও তৈরি রাজ্য।

    পরিস্থিতি সামাল দিতে কত টাকা খরচ হয়েছে ? কেরলের অর্থমন্ত্রী প্রাথমিকভাবে সেই হিসাব দিয়েছেন:-

    ত্রাণ ও উদ্ধারে প্রয়োজন ১২০০ কোটি প্রতিদিন এই খাতে খরচ ২০০ কোটি ওষুধ ও চিকিৎসায় ১ হাজার কোটি পানীয় জল, আশ্রয় ও খাবারে সরবরাহে ১১০০ কোটি আগামী সাতদিন আরও ৪৫০০ কোটি খরচ বাড়ি তৈরি ও মেরামতেও বিপুল অর্থ লাগবে

    এই অবস্থায় ৫০০ কোটির প্যাকেজ নিয়ে প্রশ্নের মুখে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। কেন্দ্রের আশ্বাস, চূড়ান্ত হিসাব স্পষ্ট হলে আরও টাকা বরাদ্দ হতে পারে। কিন্তু প্রতিদিন বিপুল ত্রান ও উদ্ধারকাজের খরচ আসবে কোত্থেকে ? বিদেশে থাকা কেরলবাসীদের কাছেও আর্থিক সাহায্যের আবেদন মুখ্যমন্ত্রী পিনরাই বিজয়নের।

    First published: