দেশ

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

নতুন কৃষি আইন বাতিলের দাবি, সুপ্রিম কোর্টে দায়ের হল মামলা

নতুন কৃষি আইন বাতিলের দাবি, সুপ্রিম কোর্টে দায়ের হল মামলা
দিল্লিতে ইন্ডিয়া গেটের সামনে ট্র্যাক্টর পুড়িয়ে কৃষকদের বিক্ষোভ৷ Photo-PTI

অন্যদিকে পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং জানিয়েছেন, তাঁর সরকারও নতুন এই তিনটি কৃষি আইনের বিরুদ্ধে শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হবে৷

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: নতুন তিনটি কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে এবার মামলা দায়ের হল সুপ্রিম কোর্টে৷ কেরলের কংগ্রেস সাংসদ টি এন প্রথাপন এই আইনগুলিকে সংবিধান বিরোধী বলে অভিযোগ করে শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন৷ পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিংও জানিয়েছেন, তাঁর সরকারও নতুন কৃষি আইনের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হবেন৷

রবিবারই সদ্য সংসদে পাশ হওয়া দ্য ফার্মার্স (এমপাওয়ারমেন্ট অ্যান্ড প্রোটেকশন) এগ্রিমেন্ট অফ প্রাইস অ্যাসিওরেন্স অ্যান্ড ফার্ম সার্ভিসেস বিল ২০২০-তে সই করেছেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ৷ এই আইন কার্যকর হলে উৎপাদিত কৃষিপণ্য মার্কেটিং কমিটির অবলুপ্তি ঘটবে৷ ব্যবসায়ীরা যাতে কোনও ভাবে কৃষকদের না ঠকাতে পারেন এবং বাজারে উৎপাদিত পণ্যের দামও যাতে লাগামহীন ভাবে না বাড়ে, সেই দায়িত্ব থাকে এই কমিটির উপরেই৷

সুপ্রিম কোর্টে দায়ের করা আবেদনে কংগ্রেস সাংসদ দাবি করেছেন, নতুন এই কৃষি আইন কার্যকর হলে কৃষকদের জীবনে বিপর্যয় নেমে আসবে৷ কারণ এর ফলে সমান্তরাল বাজারের সৃষ্টি হবে যা নিয়ন্ত্রণের ক্ষমতা থাকবে শুধুমাত্র কয়েকজন পুঁজিপতি এবং কর্পোরেটদের হাতে৷ আরও অভিযোগ করা হয়েছে, নতুন এই বিল সংবিধানেরও পরিপন্থী৷ কারণ এই আইনের প্রস্তাব অনুযায়ী কোনও বিবাদ সৃষ্টি হলে তার নিষ্পত্তির জন্য আদালত নয়, সাব ডিভিশনাল ম্যাজিস্ট্রেটের কাছেই আবেদন জানাতে পারবেন কৃষকরা৷

কংগ্রেস সাংসদ আরও অভিযোগ করেছেন, নতুন আইনে মজুতদারির ঊর্ধ্বসীমা উঠে যাওয়ায় কৃত্রিম চাহিদা তৈরি করা হবে৷ রপ্তানিকারী এবং ব্যবসায়ীরাই মজুত করে রাখা ফসলের দাম নির্ধারণ করবেন৷ যার ফলে বাজারে লাগামহীন ভাবে বাড়বে সব্জি বা খাদ্যশস্যের দাম৷ উৎপাদিত কৃষিপণ্য মার্কেটিং কমিটির অবলুপ্তি না ঘটিয়ে বরং কৃষকদের স্বার্থে তার হাতে আরও ক্ষমতা দেওয়ার দাবি জানানো হয়েছে সুপ্রিম কোর্টে দায়ের হওয়ার মামলার আবেদনে৷

অন্যদিকে পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং জানিয়েছেন, তাঁর সরকারও নতুন এই তিনটি কৃষি আইনের বিরুদ্ধে শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হবে৷ তিনি আরও আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন, দেশজুড়ে কৃষকদের বিক্ষোভকে কাজে লাগিয়ে তা উস্কে দিতে পারে পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই৷ পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রীর দাবি, নতুন এই আইন পঞ্জাবে সীমান্তের নিরাপত্তাকেও ঝুঁকির মুখে ফেলে দিয়েছে৷ কারণ আইএসআই সবসময় এমন সুযোগের অপেক্ষাতেই থাকে৷ পঞ্জাব সহ গোটা দেশে যেভাবে কৃষকরা আন্দোলনে নেমেছেন, তাকেই এবার আইএসআই কাজে লাগাতে পারে মনে করছেন পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী৷

Published by: Debamoy Ghosh
First published: September 28, 2020, 11:44 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर