corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনা মোকাবিলায় কেরল মডেল, দেশের মধ্য়ে সবচেয়ে সফল এই মডেল

করোনা মোকাবিলায় কেরল মডেল, দেশের মধ্য়ে সবচেয়ে সফল এই মডেল
প্রতীকী চিত্র৷ PHOTO- FILE

আক্রান্তদের সুস্থ হওয়ার নিরিখেও দেশের শীর্ষে কেরল

  • Share this:

#কলকাতা: করোনা মোকাবিলায় দেশকে পথ দেখাতে পারে কেরল মডেল। একসময়ে করোনার তালিকায় শীর্ষে থাকা দক্ষিণের এই রাজ্যটি, ভাইরাসের সংক্রমণ অনেকটাই ঠেকিয়ে দিয়েছে। আক্রান্তদের সুস্থ হওয়ার নিরিখেও দেশের শীর্ষে কেরল।

- করোনা মোকাবিলায় কেরল মডেল - দেশের মধ্য়ে সবচেয়ে সফল কেরল মডেল

তখন জানুয়ারির শেষ দিক। দেশে প্রথম নোভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্তের হদিশ মেলে কেরলে। মার্চের মাঝামাঝি করোনা আক্রান্তের নিরিখে দেশের শীর্ষে ছিল কেরল। তবে একমাসের মধ্যেই পুরোপুরি পালটে গিয়েছে ছবিটা। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের হিসেব অনুযায়ী, সোমবার পর্যন্ত কেরলে

- মোট করোনা আক্রান্ত ৩৭৯ জন - এরমধ্যে সুস্থ হয়ে গিয়েছেন ১৯৮ জন করোনা আক্রান্ত - মাত্র ৩ করোনা আক্রান্তের মৃত্যু হয়েছে কেরলে   পরিসংখ্যানই বলে দিচ্ছে কেরলের সাফল্যের কাহিনি। মোট আক্রান্তের নিরিখে মহারাষ্ট্র, দিল্লি, গুজরাত, তেলঙ্গনা এমনকি প্রতিবেশী তামিলনাড়ুর চেয়েও অনেকটা পিছিয়ে কেরল। কেরল মডেল

- দেশের প্রথম করোনা আক্রান্তের সন্ধান মেলে কেরলেই - তারপরেও করোনা আক্রান্তদের সুস্থতার নিরিখে দেশের শীর্ষে কেরল - আক্রান্তের মধ্যে মৃত্যুর হারও কেরলে অনেক কম

এই অসাধ্যসাধন সম্ভব হল কীভাবে? বিশেষজ্ঞরা বলছেন কেরলের স্বাস্থ্য পরিকাঠামো এবং সরকারি তৎপরতাই সাফল্যের চাবিকাঠি। কেরল মডেল

- শুরুতেই চিন ফেরত নাগরিকদের বাধ্য়তামূলক কোয়ারান্টিনে পাঠিয়েছে রাজ্য সরকার - লাগাতার পরীক্ষা, আক্রান্তদের গতিবিধি ট্র্যাকিং, দীর্ঘমেয়াদী কোয়ারান্টিনে জোর দেওয়া হয়েছে - ভিনরাজ্যের শ্রমিকদের জন্য কয়েক হাজার শিবির গড়েছে রাজ্য সরকার - দেশে সবচেয়ে বেশি করোনা পরীক্ষা হয়েছে কেরলে - র‍্যাপিড টেস্টের নিরিখেও দেশের শীর্ষে কেরল

  এর সঙ্গে রয়েছে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার। একসঙ্গে অনেক মানুষের কাছে পৌঁছানোর প্রয়াস। করোনা মোকাবিলায় কেরলের সব জেলায় খোলা হয়েছে কোভিড কন্ট্রোল সেল। প্রতিটি জেলায় একাধিক ছোট ছোট গ্রিড। প্রতিটি গ্রিডে সারাক্ষণের নজরদারি। করোনা মোকাবিলায় এই কেরল মডেলকেই অনুসরণ করতে চায় দেশের অন্য রাজ্যগুলি।  
First published: April 15, 2020, 4:06 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर