৩৭০ ধারা বিলোপ-দ্বিখণ্ডিত কাশ্মীর, কী বলছেন কাশ্মীরি ছাত্র-ছাত্রীরা?

দিল্লি ল' ফ্যাকাল্টির কাশ্মীরি পণ্ডিত ছাত্র ইশান মিচুর বাড়ি শ্রীনগরে৷ তাঁর কথায়, 'সরকারের এই সিদ্ধান্ত কাশ্মীরে নতুন সূর্যোদয়৷ অনেক দিন পর এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হল৷

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Aug 06, 2019 10:17 AM IST
৩৭০ ধারা বিলোপ-দ্বিখণ্ডিত কাশ্মীর, কী বলছেন কাশ্মীরি ছাত্র-ছাত্রীরা?
কাশ্মীর নিয়ে দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিবাদ
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Aug 06, 2019 10:17 AM IST

#নয়াদিল্লি: হাজার হাজার সেনার ভারী বুটে শব্দ৷ ১৪৪ ধারা৷ একাধিক নেতার গ্রেফতারি৷ থমথমে কাশ্মীর উপত্যকা নিয়ে সোমবারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের ঘোষণা গোটা বিষয়টিকে অন্য মাত্রা দিয়েছে৷ ৩৭০ ধারা কাশ্মীর থেকে তুলে দেওয়ার এই সিদ্ধান্তে দিল্লিতে কাশ্মীরি ছাত্র-ছাত্রীরা কী বলছেন? News18-কে মিশ্র প্রতিক্রিয়া জানালেন তাঁরা৷

দিল্লি ল' ফ্যাকাল্টির কাশ্মীরি পণ্ডিত ছাত্র ইশান মিচুর বাড়ি শ্রীনগরে৷ তাঁর কথায়, 'সরকারের এই সিদ্ধান্ত কাশ্মীরে নতুন সূর্যোদয়৷ অনেক দিন পর এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হল৷ ৩৭০ ও ৩৫এ ধারা সব সময়ই অস্থায়ী হিসেবে ছিল৷ সোমবরা আইনের জয় হল৷ কাশ্মীরে নতুন সূর্যোদয় হল৷'

নরেন্দ্র মোদি ও অমিত শাহ নরেন্দ্র মোদি ও অমিত শাহ

তাঁর দাবি, ৩৭০ ধারার বিলোপ জম্মু-কাশ্মীরের অর্থনৈতিক উন্নতি ঘটাবে৷ ইশান বলছেন, 'বছরের পর বছর কাশ্মীর অর্থনৈতিক ভাবে ধুঁকছে৷ এ বার কাশ্মীরে চাকরির সুযোগ হবে৷ অন্য রাজ্যের ছেলেমেয়েরাও আসবেন চাকরি করতে৷' হিন্দু কলেজের ছাত্র সৌরভ সিংয়ের কথায়, 'কেন্দ্রের সিদ্ধান্তে আমি খুশি৷ কাশ্মীরে কাজ করার ইচ্ছে আছে৷ জম্মু-কাশ্মীর অনেক পরিকাঠামোগত, শিক্ষাগত নানা ভাবে পিছিয়ে৷ কিন্তু এ বার ঘুরে দাঁড়াবে৷ এই তো শুরু৷'

জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া-র এক কাশ্মীরি ছাত্র ইরফানের কথায়, 'আমার মনে হয় না ৩৭০ ধারা কোনও হিংসার সৃষ্টি করবে না কাশ্মীরে৷ বর্তমানে কাশ্মীরে কর্মসংস্থানের সুযোগ নেই৷ প্রচুর দুর্নীতি৷'

Loading...

আরেক কাশ্মীরি ছাত্র দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতকোত্তরের ছাত্র ওমরের কথায়, 'সরকার কাশ্মীর নিয়ে এই সিদ্ধান্তের প্রভাব ফেস করবেই৷ এখন, না হলে পরে৷ যেমন নোটবন্দির সিদ্ধান্ত ছিল৷' দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের আরেক কাশ্মীরি ছাত্র তীব্র সমালোচনা করে বলেন, 'কাশ্মীরের বাসিন্দাদের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করল সরকার৷'

First published: 10:17:16 AM Aug 06, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर