corona virus btn
corona virus btn
Loading

সামাজিক দূরত্ব শিকেয়! কর্ণাটকের মন্দিরের উৎসবে হাজার হাজার মানুষের ঢল

সামাজিক দূরত্ব শিকেয়! কর্ণাটকের মন্দিরের উৎসবে হাজার হাজার মানুষের ঢল

একটি ভিডিওতে দেখা গিয়েছে, প্রথাগত গরুর গাড়ির একটি রীতি পালিত হচ্ছে সেই উৎসাহী জনতার মধ্যেই

  • Share this:

#‌‌হাভেরি:‌ করোনা সংক্রমণ রুখতে এখন ভরসা সামাজিক দূরত্ব। লকডাউন উঠে যাওয়ায় মানুষের চেতনার ওপরেই ভরসা করতে হবে সবাইকে। কিন্তু কোথায় সেই চেতনা?‌ করোনা সংক্রমণের ভয়কে উপেক্ষা করেই কর্ণাটকের হাভেরি জেলার এক ধর্মীয় অনুষ্ঠানে অংশ নিলেন হাজার হাজার মানুষ। প্রশাসনের নির্দেশের তাঁরা তোয়াক্কা করলেন না মোটে।

প্রতি বছর গ্রীষ্মকালের সমাপ্তি আর বর্ষার শুরুতে এক উৎসবের আয়োজন করা হয় স্থানীয় ব্রহ্মলিঙ্গেশ্বর মন্দিরে। এবারে আর পাঁচটা ধর্মীয় উৎসবের মতোই উচিত ছিল এই ধর্মীয় অনুষ্ঠান বাতিল করা। কিন্তু তা করা হয়নি। বরং জাঁকজমক একই রেখে আয়োজিত হয়েছে উৎসব। প্রতিবছর তিনদিন ধরে হয়, এবার তার বদলে দু’‌দিন ধরে এই উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। ৯ আর ১১ জুন পালিত হয়েছে এই উৎসব।

আর সেই কারণেই জড়ো হয়েছেন হাজার হাজার হাজার মানুষ। একটি ভিডিওতে দেখা গিয়েছে, প্রথাগত গরুর গাড়ির একটি রীতি পালিত হচ্ছে সেই উৎসাহী জনতার মধ্যেই। রাস্তার ধারে সার দিয়ে শয়ে শয়ে লোক দাঁড়িয়ে তো আছেই, রাস্তার পাশের বাড়ির ছাদেও হাজির হয়েছেন অসংখ্য মানুষ। করোনা সংক্রমণের ভয়ডর যেন কিছুই তাঁদের নেই। পুলিশ, নিরাপত্তা, সব কিছুকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে মহানন্দে উৎসবে মেতেছে উপস্থিত জনতা।

ঘটনার পরেই অবশ্য নড়েচড়ে বসেছে প্রশাসন। হাভেরির ডেপুটি কমিশনার কৃষ্ণ বাজপেয়ি জানিয়েছেন, ঘটনার পর মন্দির কমিটির ৩০ জনের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করা হয়েছে। কিন্তু কেন আগে থেকে ব্যবস্থা নেয়নি প্রশাসন?‌ নিউজ১৮ এর কাছে রয়েছে একটি চিঠি, যেটি ২৬ মে লিখেছিলেন এলাকার তহশিলদার। চিঠিতে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল, সোশ্যাল ডিস্ট্যান্সিংয়ের নিয়ম মেনে এই উৎসবের আয়োজন করা সম্ভব নয়। তাই এই উৎসবের অনুমতি দেওয়া উচিত না। তাও, এককথায় নীরব রইল প্রশাসন।

Published by: Uddalak Bhattacharya
First published: June 12, 2020, 8:11 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर