• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • KARL ROCK POPULAR YOUTUBER BLACKLISTED BY INDIA FOR VIOLATING VISA NORMS DMG

Karl Rock Blacklisted: জনপ্রিয় ইউটিউবার কার্ল রককে কালো তালিকাভুক্ত করল ভারত, কেন বাতিল হল ভিসা?

ভারতীয় স্ত্রীর সঙ্গে কার্ল রক৷ Photo-Karl Rock/Twitter

কার্ল রকের (Karl Rock Blacklisted) স্ত্রী একজন ভারতীয়৷ ইতিমধ্যেই কেন্দ্রীয় বিদেশ মন্ত্রকের এই পদক্ষেপের বিরুদ্ধে দিল্লি হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেছেন তিনি৷

  • Share this:

    #দিল্লি: জনপ্রিয় ইউটিউবার কার্ল রককে কালো তালিকাভুক্ত করল ভারত৷ ফলে এই নির্দেশিকা কার্যকর হওয়া থেকে এক বছর পর্যন্ত এ দেশে প্রবেশ করতে পারবেন না কার্ল এডওয়ার্ড রাইস নামে এই ইউটিউবার৷ সোশ্যাল মিডিয়ায় অবশ্য তিনি কার্ল রক বলেই বেশি জনপ্রিয়৷ শুক্রবার নিজেই সোশ্যাল মিডিয়ায় এই অভিযোগ করেছেন কার্ল রক৷

    কার্ল রকের স্ত্রী একজন ভারতীয়৷ ইতিমধ্যেই কেন্দ্রীয় বিদেশ মন্ত্রকের এই পদক্ষেপের বিরুদ্ধে দিল্লি হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেছেন তিনি৷ শুক্রবার ইউটিউবে একটি ভিডিও আপলোড করে কার্ল রক অভিযোগ করেন, ভারত সরকার তাঁকে কালো তালিকাভুক্ত করায় ২৬৯ দিন তিনি স্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে পারেননি৷

    আদতে নিউজিল্যান্ডের বাসিন্দা কার্ল রক ট্যুরিস্ট ভিসা নিয়ে ভারতে এসেছিলেন৷ দিল্লির বাসিন্দা মনীষা মালিক নামে এক তরুণীকে বিয়ে ২০১৯ সাল থেকে ভারতেই বসবাস করেন তিনি৷ ২০২০ সালের অক্টোবর মাস পর্যন্ত দিল্লিতে ছিলেন তিনি৷

    কার্ল রকের অভিযোগ, গত বছর অক্টোবর মাসে ভারত থেকে দুবাই এবং পাকিস্তানে যান তিনি৷ তখনই তাঁর ভিসা বাতিল করে দেওয়া হয়৷ যদিও তার কারণ তাঁকে জানানো হয়নি৷ দুবাই থেকেই নতুন ভিসার আবেদন করেন তিনি৷ তখনই তাঁকে জানানো হয় যে তাঁকে কালো তালিকাভুক্ত করেছে ভারত সরকার৷ ফলে এখনই আর এ দেশে ফিরতে পারবেন না তিনি৷

    জনপ্রিয় ওই ইউটিউবারের আরও অভিযোগ, কাউকে ব্ল্যাকলিস্ট বা কালো তালিকাভুক্ত করার আগে নোটিস পাঠিয়ে আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ দেওয়া হয়৷ কিন্তু এ ক্ষেত্রে তাও করা হয়নি৷

    যদিও কার্ল রকের অভিযোগ খণ্ডন করে বিদেশ মন্ত্রকের তরফে সংবাদ সংস্থাকে জানানো হয়েছে, ভিসার একাধিক শর্ত ভঙ্গ করার কারণেই তাঁকে কালো তালিকাভুক্ত করা হয়েছে৷ কার্ল রকের বিরুদ্ধে অন্যতম অভিযোগ,ট্যুরিস্ট ভিসা নিয়ে ভারতে এসে ব্যবসা শুরু করেন তিনি৷

    ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের একটি প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, ভারতীয় নাগরিককে বিয়ে করায় কার্ল রককে এক্স-২ ভিসা দেওয়া হয়েছিল, যা ২০২৪ সাল পর্যন্ত বৈধ ছিল৷ এই ভিসার শর্ত অনুযায়ী, প্রতি ১৮০ দিন অন্তর কার্ল রককে ভারত ছেড়ে যেতে হত৷ অথবা বিদেশিদের জন্য আঞ্চলিক নথিভুক্তিকরণ অফিসে নিজের অবস্থান জানাতে হত৷ কিন্তু সরকারি নথি অনুযায়ী ২০১৯ সালের নভেম্বর মাসে শেষ বার ভারতে প্রবেশ করেছিলেন কার্ল রক৷ অর্থাৎ ছ' মাসের বেশি ভারতে একটানা থেকেছিলেন তিনি৷

    এর পর কার্ল রক যখন দুবাই এবং পাকিস্তান যাওয়ার জন্য ২০২০ সালের অক্টোবর মাসে ভারত ছাড়েন, তখন বিমানবন্দরেই তাঁর ভিসা বাতিল করা হয়৷ দুবাই থেকে যখন তিনি ফের ভিসার আবেদন করেন, তখনই ভারতীয় দূতাবাসে ডেকে তাঁকে কালো তালিকাভুক্ত করার কথা জানানো হয়৷ গত বছর ভারতে করোনা আক্রান্তদের জন্য প্লাজমা দান করে এ দেশে জনপ্রিয়তার শিখরে পৌঁছন কার্ল রক৷ দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীবালও সেই সময় কার্ল রকের প্রশংসা করেছিলেন৷

    গত কয়েক বছর ধরেই ভারতে যাতায়াত ছিল শহরে৷ এ দেশে এসে লম্বা সময় থাকতেনও তিনি৷ ভারতের বিভিন্ন শহরে ঘুরে ঘুরে সেখানকার বিভিন্ন তথ্য, বৈশিষ্ট্য এবং দর্শনীয় স্থান নিয়ে ভিডিও ব্লগ তৈরি করতেন কার্ল রক৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: