• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • বার্ড ফ্লু’র আতঙ্কে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ হল কানপুর চিড়িয়াখানা

বার্ড ফ্লু’র আতঙ্কে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ হল কানপুর চিড়িয়াখানা

এপর্যন্ত দেশের সাত রাজ্যে দেখা মিলেছে বার্ড ফ্লু’র। কেরল, রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, উত্তরপ্রদেশ, হিমাচল প্রদেশ, হরিয়ানা এবং গুজরাতে।

এপর্যন্ত দেশের সাত রাজ্যে দেখা মিলেছে বার্ড ফ্লু’র। কেরল, রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, উত্তরপ্রদেশ, হিমাচল প্রদেশ, হরিয়ানা এবং গুজরাতে।

এপর্যন্ত দেশের সাত রাজ্যে দেখা মিলেছে বার্ড ফ্লু’র। কেরল, রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, উত্তরপ্রদেশ, হিমাচল প্রদেশ, হরিয়ানা এবং গুজরাতে।

  • Share this:

    #কানপুর (উত্তরপ্রদেশ): বার্ড ফ্লু’র জেরে এবার অনির্দিষ্টকালে জন্য বন্ধ রাখা হচ্ছে কানপুর চিড়িয়াখানা। রবিবার, চিড়িয়াখানায় আসা এক ব্যক্তি জানান, “রবিবার আমরা ঘুরতে এসেছিলাম চিড়িয়াখানায়। কিন্তু দেখলাম বন্ধ রাখা হয়েছে। কিছুটা আশাহত হয়েছি।”

    শনিবার, কেন্দ্রীয় মৎস্য, পশুপালন এবং ডেয়ারি মন্ত্রকের তরফে নিশ্চিত করা হয়েছে পরিযায়ী পাখিদের মধ্যে অ্যাভিয়ান ইনফ্লুয়েঞ্জা’র ঘটনা। এপর্যন্ত দেশের সাত রাজ্যে দেখা মিলেছে বার্ড ফ্লু’র। কেরল, রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, উত্তরপ্রদেশ, হিমাচল প্রদেশ, হরিয়ানা এবং গুজরাতে।

    আক্রান্ত রাজ্যগুলিতে বার্ড ফ্লু যাতে আরও ছড়িয়ে না পড়ে, সে কারণে কেন্দ্রীয় মন্ত্রকের তরফে জারি করা হয়েছে বিশেষ নির্দেশিকা। বন এবং পরিবেশমন্ত্রী দারা সিংহ চৌহান জানিয়েছেন, বার্ড ফ্লু ছড়িয়ে পড়ার গতি রুখতে গত বছরের ২৪ নভেম্বর বনদফতর থেকে চিড়িয়াখানা গুলিকে দেওয়া হয়েছিল বিশেষ নির্দেশিকা। তিনি এবিষয়ে জানিয়েছেন, “বার্ড ফ্লু-এর ঘটনা নিশ্চিত হওয়ার পর, গত ২৪ নভেম্বর উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ এবং রাজ্যের বনদফতরের পক্ষ থেকে সতর্ক করে দেওয়া হয় চিড়িয়াখানাগুলিকে।” তিনি আরও বলেন, “কানপুর চিড়িয়াখানায় সম্ভবত বার্ড ফ্লু-এর প্রভাব দেখা দিয়েছে, সে কারণেই জনসাধারণের বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে চিড়য়াখানা। এভাবেই হয়তো আমরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পারব।”

    রাজ্যের প্রধান বন সংরক্ষক জানিয়েছেন, “সম্প্রতি ১০টি পাখি মারা গিয়েছে কানপুর চিড়িয়াখানায়। বার্ড ফ্লু সন্দেহে, পরীক্ষার জন্য স্যাম্পল পাঠানো হয়েছে ভোপালে। এর মধ্যে দু’টি রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে।” শনিবার, এই রিপোর্ট আসার পরই, তড়িঘড়ি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে চিড়িয়াখানা। চলছে স্যানিটাইজেশনের কাজ।

    Published by:Antara Dey
    First published: