• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • দলজিতের কটাক্ষের পালটা, গায়ককে 'করণ জোহরের পোষা’ বলে আক্রমণ কঙ্গনার

দলজিতের কটাক্ষের পালটা, গায়ককে 'করণ জোহরের পোষা’ বলে আক্রমণ কঙ্গনার

কৃষক আন্দোলন নিয়ে কটাক্ষ কঙ্গনার

কৃষক আন্দোলন নিয়ে কটাক্ষ কঙ্গনার

কৃষক আন্দোলন নিয়ে কটাক্ষ কঙ্গনার

  • Share this:

    #মুম্বই: বলিউড হোক কি রাজনীতি... যে- কোনও বিষয়েই প্রতিবাদী মনোভাব নিয়ে মন্তব্য করা অভ্যেস হয়ে গিয়েছে বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াতের। কৃষি আইনের প্রতিবাদে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে কৃষকদের বিক্ষোভ নিয়েও মুখ খুললেন বলিউডের কুইন । এক ট্যুইটার ইউজার তাঁর পোস্টে কমেন্ট করেন, কৃষকদের বিক্ষোভে সামিল হয়েছে শাহিনবাগ দাদি হিসেবে পরিচিত ৮২ বছরের বৃদ্ধা বিলকিস বানো, তিনি এও দাবি করেন, দৈনিক ভাড়া দিলেই বিলকিস বানো আজকাল এ ধরনের বিক্ষোভে সামিল হয়ে যাচ্ছেন।

    এই পোস্টটিকে কেন্দ্র করেই সুর চড়ান কঙ্গনা। তিনি ব্যঙ্গের সুরে লেখেন, 'তিনিই সেই দাদি যিনি টাইম ম্যাগাজিনে ভারতের শক্তিশালী ব্যক্তি হিসাবে চিহ্ণিত হন এবং তাঁকে ১০০ টাকায় পাওয়া যায়।’ কঙ্গনা আরও বলেন, "পাকিস্তানি" সাংবাদিকরা ভারতের জনসংযোগ আধিকারিককে খুব বিব্রতকর উপায়ে হাইজ্যাক করেছেন।"

    কিন্তু গত বুধবার, কৃষক আন্দোলনে বিক্ষোভকারী সেই মহিলাকে শাহিন বাগের বিলকিস বানো বলে যে পরিচয় দেন অভিনেত্রী তা আসলে ভুল। যদিও কঙ্গনা পরে ট্যুইটটি ডিলিট করে দেন, কিন্তু ততক্ষণে যা হওয়ার হয়ে গিয়েছে। পঞ্জাবি পপ স্টার দলজিৎ দোসাঞ্জ এবং আরও অনেক তারকারা ‘ক্যুইন’-এর বিরুদ্ধে তোপ দাগেন। দলজিৎ ওই বৃদ্ধার একটি ভিডিও শেয়ার করে লেখেন, মহিলা আসলে মাহিন্দর কৌর, তাঁর নাম বিলকিস বানো নয়। গায়ক বলেন, ‘কঙ্গনা টিম অন্ধের মতো যা খুশি বলে যাচ্ছে।’

    দলজিতের এই মন্তব্যে চুপ থাকার পাত্রী নন কঙ্গনা রানাওয়াত। পালটা জবাব দিতে তিনি দিলজিতকে সম্বোধন করলেন ‘করণ জোহরের পোষা’ বলে। নিজের ট্যুইটে তিনি বলেন, তিনি যে 'বিলকিস বানো’কে শাহিন বাগে নিজের নাগরিকত্ব নিয়ে লড়তে দেখেছিলেন, সেই মহিলাকেই তিনি দেখেন কৃষক আন্দোলনে বিক্ষোভ দেখাতে। এই মাহিন্দর কৌর কে, তা তিনি জানেন না। তিনি আরও বলেন, ‘এইসব কি নাটক চলছে? এখনই বন্ধ হোক এগুলো।’ সম্প্রতি কৃষক আন্দোলন নিয়ে বেশ সরব হয়েছিলেন কঙ্গনা। তাঁর বক্তব্য ছিল, ১০০ টাকা পারিশ্রমিকের বিনিময়ে এই বিলকিস দাদিকে কৃষক আন্দোলনের মুখপাত্র করা হয়েছে। এরপর চলতে থাকে ট্যুইটের পর ট্যুইট। দলজিৎ বলেন, ‘আপনি জানেন না কি ভবে কারও মা-বোনের সঙ্গে কথা বলতে হয়। নিজে একজন মহিলা হয়েও আপনি বলছেন যে আরেকজন মহিলা ১০০ টাকার বিনিময়ে নিজেকে বেঁচে দিয়েছেন। আমাদের পঞ্জাবি মায়েরা আমাদের কাছে ভগবান। আপনি মৌচাকে হাত দিয়ে ফেলেছেন।’

    ANTARA DEY

    Published by:Rukmini Mazumder
    First published: