রূপোলি পর্দায় নায়িকা থেকে তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী জয়ললিতা

তিনি ভারতীয় রাজনীতির আম্মা। দেশের রাজনীতিতে অন্যতম কুশলি কিং মেকারও। দক্ষিণী রাজনীতির পরম্পরা মেনেই রাজনীতিতে হাতেখড়ি জয়ারামন জয়ললিতার।

তিনি ভারতীয় রাজনীতির আম্মা। দেশের রাজনীতিতে অন্যতম কুশলি কিং মেকারও। দক্ষিণী রাজনীতির পরম্পরা মেনেই রাজনীতিতে হাতেখড়ি জয়ারামন জয়ললিতার।

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #চেন্নাই: তিনি ভারতীয় রাজনীতির আম্মা। দেশের রাজনীতিতে অন্যতম কুশলি কিং মেকারও। দক্ষিণী রাজনীতির পরম্পরা মেনেই রাজনীতিতে হাতেখড়ি জয়ারামন জয়ললিতার। রূপোলি পর্দায় নায়িকা থেকে তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী হয়ে ওঠা। তাই বোধহয় জয়ললিতার রাজনীতি মানেই নাটক। উত্থান আর পতন। কখনও দুর্নীতির দায়ে হাজতবাস আবার কখনও বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস। একসময় এমজি রামচন্দ্রনের নায়িকা হিসাবে একের পর এক সুপারহিট ছবিতে অভিনয় করেছেন। রাজনীতিতে তিনিই জয়ললিতার গুরু। এমজিআরের হাত ধরেই এআইএডিএমকে একের পর এক ধাপ পেরিয়ে দ্রুত দলের দ্বিতীয় সবোর্চ্চ পদ দখল করেন জয়ললিতা। এমজিআরের মৃত্যু, দলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব, ভাঙন - সব সামলে জয়ললিতার নেতৃত্বে তামিলনাড়ুতে  ক্ষমতায় ফেরে এআইএডিএমকে। -১৯৯১ সালের ২৪ জুন প্রথমবার মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নেন জয়ললিতা -তিনিই তামিলনাড়ুর প্রথম মহিলা মুখ্যমন্ত্রী -১৯৯৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে কার্যত ডিএমকের কাছে ধরাশায়ী হয় এআইএডিএমকে -বারগুর বিধানসভা থেকে হার হয় জয়ললিতারও মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালীন সৎ ছেলের বিয়েতে বিপুল খরচ নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল। এনিয়ে দুর্নীতির অভিযোগে মামলার মুখে পড়তে হয় এআইএডিএমকে নেত্রীকে। দেশের ইতিহাসে একমাত্র তাঁকেই দুর্নীতির অভিযোগে মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে সরতে হয়েছে। একবার নয়। তিনবার। -১৯৯৬ এর ৭ ডিসেম্বর প্রথমবার দুর্নীতির অভিযোগে গ্রেফতার - টিভি বিলি প্রকল্পে সাড়ে ১০ কোটি ঘুষ নেওয়ার অভিযোগে মামলা - ২০০০ সালের ৩০ মে এই মামলায় তাঁকে নির্দোষ ঘোষণা করে আদালত - ২০০১ সালে দ্বিতীয়বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচিত হন - ২০১১ সালে তৃতীয়বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী হন দুর্নীতি আর জনপ্রিয়তা দুই-ই ৩০ বছর ধরে তাঁর সঙ্গী। ক্ষমতা বদলেও সেই ছবিটা বদলায়নি। ১৯৯৮ সালে ১৩ দিনের বাজপেয়ী সরকার ফেলার পিছনে তিনি। আবার ২০০৪ সালে বিজেপির ভারত উদয় ফিকে হওয়ার পিছনেও ফ্যাক্টর সেই আম্মা। ২০১৫ সালে যখন দুর্নীতির অভিযোগে আবার জেলে যেতে হচ্ছে, তার কনভয়ের পিছনে ছুটেছিল ১০ হাজার ভক্ত। একের পর এক আত্মহত্যা করেন জয়ললিতা ভক্তরা।

    First published: