corona virus btn
corona virus btn
Loading

শহরে কার্ফু, পায়ে হেঁটে হিন্দু বন্ধুর বাড়িতে খাবার পৌঁছে দিলেন মুসলিম দম্পতি

শহরে কার্ফু, পায়ে হেঁটে হিন্দু বন্ধুর বাড়িতে খাবার পৌঁছে দিলেন মুসলিম দম্পতি

কাশ্মীরের বিভিন্ন এলাকা যখন জ্বলছে তখন হিন্দু বন্ধুর বাড়িতে প্রাণের ঝপঁকি নিয়ে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দিয়ে নজির গড়লেন এই মুসলিম দম্পতি ৷

  • Share this:

#শ্রীনগর: হিজবুল কমান্ডার বুরহান ওয়ানির মৃত্যু ঘিরে গত চারদিন ধরে অগ্নিগর্ভ কাশ্মীর ৷ মৃত্যুর প্রতিবাদে কাশ্মীর জুড়েই বিক্ষোভ দেখায় অসংখ্য মানুষ। কুলগাঁও এবং অনন্তনাগ জেলায় নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে সংঘর্ষে নিহত অন্তত ৩০ জন ৷ আহত সাতশোর বেশি নিরাপত্তারক্ষীও। ঘটনার জেরে বেশ কিছু জায়গায় জারি করায় হয় কার্ফু ৷ বন্ধ রাখা হয়েছে দোকানবাজার ও যানচলাচাল ৷ এরকম উত্তপ্ত পরিস্থিতিতে নিজেদের জীবনের ঝঁকি নিয়ে রাস্তায় বেড়িয়ে পড়েন এক মুসলিম দম্পতি ৷  কাশ্মীরের বিভিন্ন এলাকা যখন জ্বলছে তখন হিন্দু বন্ধুর বাড়িতে প্রাণের ঝপঁকি নিয়ে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দিয়ে নজির গড়লেন এই মুসলিম দম্পতি ৷

জুবেদা বেগম ও তার স্বামীকে দিওয়ানচাঁদ পন্ডিত নামে তাদের এক হিন্দু বন্ধু  ফোন করে জানান যে তার বাড়িতে কোনও খাবার নেই ৷  আচমকা অশান্তি শুরু হওয়ার পর বাড়িতে খাবার শেষ হয়ে যাওয়ায়  না খেয়ে থাকতে হচ্ছিল তাদের ৷ বন্ধুর ফোন পেয়ে কার্ফুকে উপেক্ষা করে জুবেদা ও তার স্বামী জনমানবহীন রাস্তায় বেড়িয়ে পড়ে বন্ধুর বাড়িতে খাবার পৌঁছে দেওয়ার উদ্দেশ্যে ৷

সংবাদমাধ্যমকে জুবেদা জানান যে তার বন্ধুর বাড়িতে রয়েছেন বৃদ্ধা ঠাকুমা ৷ খাবার ছাড়া বৃদ্ধা ঠাকুমা অসুস্থ হয়ে পড়তে পারেন ৷ তাই তিনি বন্ধুর বাড়িতে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করছেন ৷ তিনি জানেন যে এটা সহজ নয় তাও তিনি চেষ্টা করেছেন ৷ শেষে দীর্ঘ পথ পায়ে হেটে অতিক্রম করে বন্ধুর বাড়িতে খাবার পৌঁছে দিতে সফলও হয়েছে ওই দম্পতি ৷ তাদের খাবার নিয়ে আসতে দেখে খুশিতে উচ্ছ্বসিত হয়ে পড়েন দিওয়ানচাঁদের পরিবার ৷ দিওয়ানচাঁদের স্ত্রী ও জুবেদা স্থানীয় একটি স্কুলে পড়ান ৷ দ্বিওয়ানচাঁদের পরিবার বহু বছর ধরে কাশ্মীরে রয়েছেন ৷  ধর্ম, জাতপাতকে উপেক্ষা করে বিপদের দিনের বন্ধুকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়াকেই মানবতা বলে ৷

First published: July 12, 2016, 5:10 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर