• হোম
  • »
  • খবর
  • »
  • দেশ
  • »
  • JAGANNATH TEMPLE IN ODISHAS PURI RESUMED TODAY AFTER AROUND 9 MONTHS AS THE TEMPLE WAS CLOSED FOR DEVOTEES SS

বুধবার খুলে গেল পুরীর জগন্নাথ দেবের মন্দির, বছর শেষে ভক্তকুলের জন্য সুখবর

বুধবার খুলে গেল পুরীর জগন্নাথ দেবের মন্দির, বছর শেষে ভক্তকুলের জন্য সুখবর

৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত এভাবেই প্রতিদিন মন্দির খোলা থাকবে। কিন্তু মন্দিরে প্রবেশাধিকার সীমাবদ্ধ থাকবে শুধুমাত্র স্থানীয়দের জন্যই।

৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত এভাবেই প্রতিদিন মন্দির খোলা থাকবে। কিন্তু মন্দিরে প্রবেশাধিকার সীমাবদ্ধ থাকবে শুধুমাত্র স্থানীয়দের জন্যই।

  • Share this:

#পুরী: দীর্ঘ নয় মাসের অপেক্ষার অবসান। অবশেষে বুধবার এল সেই মাহেন্দ্রক্ষণ। কোভিড বিপর্যয় কাটিয়ে খুলে গেল পুরীর জগন্নাথদেবের মন্দিরের দরজা। তবে সাধারণ ভক্তকুলকে মহাপ্রভুর দর্শনের জন‍্য আপাতত আরও কয়েকটা দিন অপেক্ষা করতে হবে। বুধবার থেকে মহাপ্রভুর দর্শন পাবেন শুধুমাত্র স্থানীয় ভক্তরাই। আম ভক্তকুলের জন্য জগন্নাথ দেবের মন্দির খুলে যাবে ৩ জানুয়ারি থেকে।

কোভিড পরবর্তী পর্যায়ে মন্দিরের আবহ ধাপে ধাপে স্বাভাবিক করে তোলার প্রক্রিয়া শুরু হল বুধবার থেকে। এতদিন শুধুমাত্র ন্যূনতম সংখ্যায় সেবায়েতরাই নির্ঘণ্ট মেনে দেবসেবার জন‍্য মন্দিরে ঢুকতে পারতেন। রথযাত্রার পুণ‍্য তিথিতেও ভক্তকুলের জন্য বন্ধই ছিল পুরীর জগন্নাথ দেবের মন্দিরের দরজা। সেই দিক থেকে বুধবার বড় স্বস্তি কোটি কোটি ভক্তকুলের জন্য।

৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত এভাবেই প্রতিদিন মন্দির খোলা থাকবে। কিন্তু মন্দিরে প্রবেশাধিকার সীমাবদ্ধ থাকবে শুধুমাত্র স্থানীয়দের জন্যই।জানুয়ারি মাসের প্রথম ও দ্বিতীয় দিন মন্দির বন্ধ রাখা হবে। তারপর ৩ জানুয়ারি ভক্তকুলের জন্য খুলে দেওয়া হবে জগন্নাথ দেবের মন্দিরের দরজা। প্রথম সপ্তাহে প্রতিদিন ৫ হাজার করে দর্শনার্থী মন্দিরে প্রবেশ করতে পারবেন। এরপর পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে দর্শনার্থীর সংখ‍্যা ধাপে ধাপে বাড়ানোর পরিকল্পনা রয়েছে মন্দির কমিটির।

পুরীর জগন্নাথ দেবের মন্দির কমিটির পক্ষ থেকে মুখ্য দৈতাপতি রাজেশ দৈতাপতি ও মন্দির দৈতাপতি নিয়োগ কমিটির রাজেশ মহাপাত্র জানান, "কোভিড বিধি মেনেই জগন্নাথ দেবের দর্শন করতে হবে দর্শনার্থীদের। দর্শনার্থীদের প্রত্যেকের মুখে মাস্ক থাকা বাধ্যতামূলক। ব্যবহার করতে হবে হ্যান্ড স্যানিটাইজার। মানতে হবে শারীরিক দূরত্ব বিধি। মন্দিরের ভিতরে ও বাইরে উভয় চত্বরেই নির্দিষ্টভাবে এই বিধি প্রযোজ্য। মন্দিরে পুজো দেওয়ার সময় ফুল ও প্রদীপ আনার বিষয়েও আরোপ করা হয়েছে নানারকম বিধি নিষেধ। প্রয়োজনে যে কোনও ভক্তকে দাখিল করতে হতে পারে ৪৮ ঘণ্টা আগের কোভিড নেগেটিভ সার্টিফিকেট।সব মিলিয়ে বছর শেষের মুখে কোটি কোটি ভক্তকুলের জন্য মন্দির খুলে যাওয়ার খবরে স্বস্তির আমেজ।’’

PARADIP GHOSH 

Published by:Siddhartha Sarkar
First published: