দেশ

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

আনুগত্যের পুরস্কার‍! ভোটের মুখে বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতির পদে মুকুল রায়

আনুগত্যের পুরস্কার‍! ভোটের মুখে বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতির পদে মুকুল রায়
বড় দায়িত্ব পেলেন মুকুল রায়।PTI

শনিবার মুকুল রায়কে বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি হিসেবে বেছে নিলেন বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: দীর্ঘ দিন নীরবে দলের জন্য ঘুঁটি সাজিয়েছেন। লোকসভা ভোটে বাংলায় বিজেপির অবস্থান বদলে দিয়েছে তাঁর কবজির জোর। এবার সেই সাফল্যেরই পুরস্কার পাচ্ছেন মুকুল রায়। শনিবার মুকুল রায়কে বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি হিসেবে বেছে নিলেন বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা। পাশাপাশি যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হিসেবে অভিষিক্ত হয়েছেন অনুপম হাজরাও। জাতীয় মুখপাত্র হিসেবে দায়িত্ব পেলেন দার্জিলিংয়ের সাংসদ রাজু বিস্তা।

সময়টা ২০১৭ সাল। মুকুলের অঙ্গুলিহেলনেই উল্টে যায় ঘাসফুল শিবিরের সমস্ত সমীকরণ। একে একে মুকুল অনুরাগীরা তাঁর কথায় বেরিয়ে আসেন দল ছেড়ে। বিজেপিতে নাম লেখান অনুপম হাজরা, সৌমিত্র খান, নিশীথ প্রামাণিক, অর্জুন সিংরা। অধরা সাফল্যও ধরা দেয় হাতের মুঠোয়। বাংলার বুকে ১৮টা আসন পায় বিজেপ। এর পর গঙ্গার বুকে কয়েক হাজার কিউসেক জল বয়ে গিয়েছে। বাংলায় বিজেপির অস্তিত্ব মজবুত হলেও, মুকুল অনুরাগীরা আড়ালে আবডালে বলেছেন, তাঁর কৃতিত্ব মান্যতা পেল না।

কী কারণ এমন মনে হওয়ার? কখনও বলা হয়েছে দিলীপ ঘোষের সঙ্গে দূরত্ব কখনও আবার বলা হয়েছে, দিল্লির সঙ্গে দূরত্ব রাখছেন মুকুল নিজেই। এমনকি কানাঘুষো চলতে থাকে ভোটের আগে মুকুলের ফের দলছাড়া নিয়েও। কিন্তু এদিনের ঘোষণা সমস্ত জল্পনাতেই জল ঢেলে দিল। ২০২১-এর ভোটের আগে সর্বভারতীয় স্তরে মুকুল রায়ের গুরুত্ব যে অনেকটা বাড়ল তা মানছে সব পক্ষই। পাশাপাশি অপেক্ষাকৃত তরুণ, মুকুল ঘনিষ্ঠ অনুপম হাজরার গুরুত্বও বাড়ল অনেকটা।

শনিবার বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা দলে বেশ কয়েকটি সাংগঠনিক রদবদল আনেন। রাম মাধব, পি মুরলিধর রাও, সরোজ পান্ডে, অনিল জৈনের মতো অভিজ্ঞ নেতাদের সরিয়ে জেনারেল সেক্রেটারি পদে আনা হয়েছে দুশ্মন্ত কুমার গৌতম, ডি পুরন্দরেশ্বেই, সি টি রবি, তরুন কফ, দিলীপ সাইকাদের। আগের পদেই বগাল থাকছেন, অরুন সিং, কৈলাস বিজয়বর্গীয়, ভূপেন্দ্র যাদবরা। আগুনঝরা বক্তব্যের জন্য খ্যাত সাসংদ তেজস্বী সূর্য পুনম মহাজনের জায়গায় যুব শাখার সভাপতি হচ্ছেন।

অন্য দিকে রাজ্যে ইতিমধ্যেই ভোটের দামামা বেজে গিয়েছে। এর মধ্যেই মুকুলের এই শক্তিবৃদ্ধি মুকুল ব্রিগেডকে যে ভোটবাজারে চাঙ্গা করবে, তা নিঃসন্দেহে বলা যায়।

Published by: Arka Deb
First published: September 26, 2020, 6:24 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर