Home /News /national /
উৎক্ষেপণ হল ভারতের ৪২ তম কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট, বড় সাফল্য ইসরোর

উৎক্ষেপণ হল ভারতের ৪২ তম কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট, বড় সাফল্য ইসরোর

নতুন স্যাটেলাইটের মধ্যে প্রথমটি হল ‘সিএমএস-০১’ যা ভারত, আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ এবং লাক্ষাদ্বীপে পরিষেবা দেবে।

  • Last Updated :
  • Share this:

#বেঙ্গালুরু: ২০২০র শেষের দিকে ভারতের জন্য সুখবর৷ ইন্টারনেট ও টেলি যোগাযোগ ব্যবস্থা আরও উন্নততর করতে কৃত্রিম উপগ্রহ বা স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করল ভারত৷ অর্থাৎ বড় সাফল্য পেল ইসরো৷কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট ‘সিএমএস-০১’ উৎক্ষেপণ করা হয়েছে। যে কৃত্রিম উপগ্রহ ২০১১ সালে উৎক্ষেপিত ‘জিস্যাট-১২’-এর পরিবর্তে কাজ শুরু করবে।

ইসরো সূত্রে খবর, ‘সিএমএস-০১’ মিশনের কাউন্টডাউনটি বৃহস্পতিবার বিকেল ৩.৪১ মিনিটে শ্রীহরিকোটার সতীশ ধাওয়ান স্পেস সেন্টারের দ্বিতীয় লঞ্চ প্যাড থেকে কৃত্রিম উপগ্রহটি উৎক্ষেপণ করা হয়। ভারতের আধুনিকতম রকেট পিএসএলভি-সি৫০-র পিঠে চাপিয়ে সেই উপগ্রহটি পাঠিয়েছে ইসরো। যা ইতিমধ্যে সফলভাবে কক্ষপথে প্রতিস্থাপিত হয়েছে। চারদিন পর উপগ্রহটির ‘লিক্যুইড অ্যাপোজি মোটর’ (ইঞ্জিন) চালু হবে। বৃত্তাকার পথে ঘোরার পর ৩৬,০০০ কিলোমিটারের একটি কক্ষপথে উপগ্রহটি প্রতিস্থাপিত হবে। এটি প্রায় ৭বছর বা তার বেশি সময় ধরে কাজ করবে৷ এর আগে সঠিক আবহাওয়ার অভাবে উপগ্রহ উৎক্ষেপণ সম্ভবপর হয়নি৷

নতুন স্যাটেলাইটের মধ্যে প্রথমটি হল ‘সিএমএস-০১’ যা ভারত, আন্দামান ও নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ এবং লাক্ষাদ্বীপে পরিষেবা দেবে। এর ফলে দেশের ই-লার্নিং, টেলিমেডিসিন এবং বিপর্যয় মোকাবিলা পরিষেবার উন্নতি হবে। উৎক্ষেপণ হওয়া সিএমএস ০১ হল ভারতের ৪২ তম কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট।

সফলভাবে উৎক্ষেপণের পর ইসরোর প্রধান কে শিভান জানিয়েছেন, তাঁরা এই কাজে সফল হয়েছেন, নিখুঁতভাবে নির্দিষ্ট কক্ষপথে প্রতিস্থাপিত হয়েছে ‘সিএমএস-০১’। সঠিকভাবে কাজ করছে উপগ্রহটি। গোটা ইসরোর দলকে অভিনন্দন জনিয়েছেন তিনি।

Published by:Simli Dasgupta
First published:

Tags: ISRO