corona virus btn
corona virus btn
Loading

INX মিডিয়া মামলা: এ বার চিদম্বরমের বিরুদ্ধে লুকআউট নোটিস জারি করল সিবিআই

INX মিডিয়া মামলা: এ বার চিদম্বরমের বিরুদ্ধে লুকআউট নোটিস জারি করল সিবিআই
পি চিদম্বরম

সুপ্রিম কোর্ট জানিয়ে দিয়েছে, শুক্রবার প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীর আগাম জামিনের আবেদনের শুনানি হবে৷ ফলে সিবিআই ও ইডি তার আগে গ্রেফতার করতে পারবে চিদম্বরমকে৷

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: ইডি আগেই করেছে৷ প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরমের বিরুদ্ধে এ বার লুকআউট নোটিস জারি করল সিবিআই৷ বিদেশে যেতে পারবেন না চিদম্বরম৷ দেশ ছাড়তে অনুমতি নিতে হবে সিবিআই-এর৷ সুপ্রিম কোর্ট জানিয়ে দিয়েছে, শুক্রবার প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীর আগাম জামিনের আবেদনের শুনানি হবে৷ ফলে সিবিআই ও ইডি তার আগে গ্রেফতার করতে পারবে চিদম্বরমকে৷

আগামী ৪৮ ঘণ্টায় গ্রেফতারিতে কোনও রক্ষাকবচ নেই চিম্বরমের৷ আজ মামলার শুনানি হয়নি সুপ্রিম কোর্টে৷ ত্রুটিপূর্ণ থাকায় চিদম্বরমের আর্জি খারিজ করে দেয় শীর্ষ আদালত৷ ফের আবেদন করতে বলে সুপ্রিম কোর্ট৷

INX মিডিয়া মামলায় প্রাক্তন পি চিদম্বরমের বিরুদ্ধে ইতিমধ্যেই লুক আউট নোটিস জারি করেছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)৷ দিল্লি হাইকোর্টে চিদম্বরমের আগাম জামিনের আবেদন খারিজ হওয়ার পরেই মঙ্গলবার সন্ধ্যায় চিদম্বরমের বাড়িতে যায় সিবিআই ও ইডি৷

চিদম্বরমের আগাম জামিনের আর্জি ত্রুটিপূর্ণ বলে জানিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট৷ সেই ত্রুটি সংশোধন করে প্রধানবিচারপতির কাছে মামলার ফাইল পাঠিয়েছেন চিদম্বরমের আইনজীবী৷ লুক-আউট নোটিসে বলা হয়েছে, চিম্বরম যেন কোনও ভাবেই ভারতের সীমান্ত পেরতে না পারেন ইডি-র অনুমতি ছাড়া৷ ইডি জানিয়েছে, চিদম্বরম ঠিক কোথায় আছেন, তা এখনও জানা যায়নি৷ INX মিডিয়া মামলায় তদন্তের জন্য চিদম্বরমকে প্রয়োজন৷ চিদম্বরমের আগাম জামিনের আবেদনের তড়িঘড়ি শুনানির আবেদনও বাতিল করে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট৷ গ্রেফতারি এড়ানোর বিশেষ রক্ষাকবচও আর নেই৷

INX মিডিয়া মামলায় চিদম্বরমের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী থাকাকালীন, INX মিডিয়া কর্তৃপক্ষ বিদেশি বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ৩০৫ কোটি টাকা পেয়েছিল। অনুমতি দিয়েছিল ফরেন ইনভেস্টমেন্ট প্রমোশন বোর্ডের কাছ থেকে। ওই পরিমাণ অর্থ আইএনএক্স মিডিয়াকে পাইয়ে দিতে কী ভূমিকা ছিল পি চিদাম্বরমের পুত্র কার্তি চিদম্বরমের, তা-ও খতিয়ে দেখছে তদন্তকারীরা। ওই সময় চিদম্বরমের সঙ্গে বৈঠকও হয়েছিল ইন্দ্রাণী মুখোপাধ্যায় ও পিটার মুখোপাধ্যায়ের।

এই মামলায় ২০১৭ সালের ১৫ মে এফআইআর করে সিবিআই৷ টাকা পাওয়ার ক্ষেত্রে ফরেন ইনভেস্টমেন্ট প্রমোশন বোর্ডের অনুমতি কী ভাবে মিলেছিল, তার তদন্ত করছে সিবিআই৷ আর্থিক তছরুপের তদন্ত করছে ইডি৷ ২০০৭ সালে INX মিডিয়া তৈরির সময় দুই অন্যতম কর্ণধার ছিলেন পিটার মুখোপাধ্যায় ও ইন্দ্রাণী মুখোপাধ্যায়৷ কার্তি চিদম্বরমের সঙ্গে মিলে অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রের অভিযোগে তদন্ত চলছে দু জনের বিরুদ্ধেই৷ এছাড়া মেয়ে সিনা বোরাকে খুনেও মূল অভিযুক্ত ইন্দ্রাণী৷

First published: August 21, 2019, 7:42 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर