সোশ্যাল মিডিয়া-ডিজিটাল নিউজ থেকে OTT প্ল্যাটফর্ম, সরকারের একগুচ্ছ গাইডলাইন জানুন বিশদে

সোশ্যাল মিডিয়া-ডিজিটাল নিউজ থেকে OTT প্ল্যাটফর্ম, সরকারের একগুচ্ছ গাইডলাইন জানুন বিশদে

সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলির জন্য তথ্য প্রযুক্তি (Intermediary Guidelines and Digital Media Ethics Code) নিয়মবিধি ২০২১-এ একাধিক নতুন নিয়ম যুক্ত হয়েছে।

সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলির জন্য তথ্য প্রযুক্তি (Intermediary Guidelines and Digital Media Ethics Code) নিয়মবিধি ২০২১-এ একাধিক নতুন নিয়ম যুক্ত হয়েছে।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: নানা ধরনের বিভ্রান্তিকর ও মানহানিকর সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট ঘিরে আজকাল উত্তাল দেশ। নানা ইস্যুতেই বার বার একাধিক সমাজমাধ্যমে একের পর এক পোস্টের বন্যা বইছে। সুপ্রিম কোর্ট থেকে শুরু করে সংসদ পর্যন্ত গড়িয়েছে জল। সেই সূত্র ধরে সোশ্যাল মিডিয়াগুলিকে নিয়ন্ত্রণ করার জন্য গতকাল একগুচ্ছ গাইডলাইন জারি করল সরকার। তবে শুধু সোশ্যাল মিডিয়া নয়, ডিজিটাল নিউজ মিডিয়া ও OTT কনটেন্টগুলিতেও জারি হচ্ছে একাধিক বিধিনিষেধ।

    সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলির জন্য তথ্য প্রযুক্তি (Intermediary Guidelines and Digital Media Ethics Code) নিয়মবিধি ২০২১-এ একাধিক নতুন নিয়ম যুক্ত হয়েছে। এর পাশাপাশি অনলাইন নিউজ সেক্টরের জন্যও রয়েছে নানা বিধিনিয়ম। এক্ষেত্রে গতকালের সাংবাদিক বৈঠকে আইন মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ (Ravi Shankar Prasad) জানিয়েছেন, ২০১৮ সালের সুপ্রিম কোর্টের অবজারভেশন, ২০১৯ সালের সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ, ২০১৮ সালে রাজ্য সভায় আলোচনা ও বিশেষ কমিটির রিপোর্ট অনুযায়ী অনলাইন মাধ্যমগুলিকে নিয়ন্ত্রণ করতে একটি গাইডলাইন তৈরি করা হচ্ছে। প্রায় তিন বছর ধরে এই গাইডলাইনের উপরে কাজ করছে সরকার। সম্প্রতি কৃষক আন্দোলন, লালকেল্লার ঘটনার পর এই বিষয়টি কোথাও যেন আরও তাৎপর্যপূর্ণ হয়ে উঠেছে। এই পরিস্থিতিতে একগুচ্ছ গাইডলাইন আনা হচ্ছে। এবার বিশদে জেনে নেওয়া যাক এই গাইডলাইন।

    https://twitter.com/PIB_India/status/1364882870876078092

    গাইডলাইন অনুযায়ী, সোশ্যাল মিডিয়া থেকে কোনও কনটেন্ট সরিয়ে দেওয়ার নিয়ম রয়েছে কি?

    এক্ষেত্রে ১০টি ক্যাটাগরির কনটেন্ট রয়েছে। যা কোনও সোশ্যাল মিডিয়ায় হোস্ট করা উচিৎ নয়। যদি কোনও পোস্ট, ছবি বা বক্তব্য দেশের ঐক্য, সার্বভৌমত্ব, সংহতি, প্রতিরক্ষা, নিরাপত্তা, অন্য দেশগুলির সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক, কোনও বিশেষ জনমতে আঘাত করে, তাহলে সেই ধরনের পোস্ট থেকে সোশ্যাল মিডিয়াগুলিকে বিরত থাকতে হবে। সেই সূত্র ধরেই মানহানি, পর্নোগ্রাফি, কোনও বিশেষ লিঙ্গকে বঞ্চনা করা-সহ একাধিক বিষয় উঠে আসে। এক্ষেত্রে সোশ্যাল মিডিয়াগুলিতে করা কোনও পোস্টের মাধ্যমে যদি বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি তৈরি হয়, তাহলে ৩৬ ঘণ্টার মধ্যে সেই কনটেন্টকে সরিয়ে দিতে হবে।

    তথ্য আদান-প্রদান ও গোপনীয়তা লঙ্ঘণের ক্ষেত্রে কোনও সংস্থার জন্য কী কী নিয়ম রয়েছে?

    IT আইন অনুযায়ী, সংস্থার ক্ষেত্রে কোনও তথ্য তছরুপ, কম্পিউটার হ্যাক, কোনও গোপনীয় নথি ছড়িয়ে পড়লে সর্বোচ্চ সাত বছরের জেল ও ২ লক্ষ টাকা পর্যন্ত জরিমানা হতে পারে।

    যদি কোনও কর্মী ইচ্ছাকৃত ভাবে বা নিজের কোনও অভিসন্ধি চরিতার্থ করতে গোপন কোনও তথ্য লেনদেন করেন বা নষ্ট করেন, তাহলে ২ লক্ষ টাকা পর্যন্ত জরিমানা ও তিন বছরের জেল হতে পারে।

    IT আইনের ধারা ৬৬ অনুযায়ী, সংশ্লিষ্ট অনুমতি ব্যতীত কোনও তথ্য নষ্ট করলে বা তথ্য ছড়িয়ে দিলে ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত জরিমানা ও তিন বছরের জেল হতে পারে।

    IT আইনের ধারা ৬৭ A অনুযায়ী, কোনও গোপন তথ্য ছড়ানোর মাধ্যমে যদি কারও মানহানি হয় বা কেউ শারীরিক ও মানসিক ভাবে লাঞ্ছনার শিকার হয়, তাহলে ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত জরিমানা ও পাঁচ বছর পর্যন্ত জেল হয়।

    ইন্টারনেটে ডেটা প্রাইভেসি সম্পর্কিত কী নিয়ম রয়েছে? সোশ্যাল মিডিয়া ইউজারদের ক্ষেত্রেই বা কোন কোন নির্দেশ জারি রয়েছে?

    ২০০০ সালের IT আইন অনুযায়ী, নির্দিষ্ট করে সে ভাবে কোনও নিয়ম-কানুন বা ধারা নেই। তবে, এই আইনের কয়েকটি ধারায় তথ্য ও প্রাইভেসি লঙ্ঘণের বিষয়ে জোর দেওয়া হয়েছে।

    এক্ষেত্রে কোনও গুরুতর গোপনীয়তা ভঙ্গের অভিযোগে ৪৩ A ধারায় বিচার করা হয়।

    IT আইনের ৭২ ধারায় যদি কোনও সরকারি কর্মীর ক্ষেত্রে এই ধরনের ঘটনা ঘটে, তাহলে জেল-জরিমানা পর্যন্ত হতে পারে।

    OTT পরিষেবার ক্ষেত্রে নিয়মগুলি ও গ্রাহকদের ক্ষেত্রে এর ভূমিকা-

    বয়সের উপরে নির্ভর করে YouTube, Netflix বা এই জাতীয় OTT প্ল্যাটফর্মগুলির কনটেন্ট ক্লাসিফিকেশন নির্দিষ্ট করেছে সরকার। এক্ষেত্রে ওয়েব কনটেন্টগুলিকে পাঁচটি ক্যাটাগরিতে ভাগ করা হয়।

    শিশু ও সমস্ত বয়সের কথা ভেবে কিছু কনটেন্টকে U মার্ক, সাত বছর বা তার বেশি বয়সের জন্য মূলত বাবা-মায়ের অভিভাবকত্বে দেখা যাবে এমন কনটেন্টকে U/A 7+ মার্ক দেওয়া হয়েছে।

    ঠিক এভাবেই ১৩ বছর বা তা বেশি বয়সের জন্য মূলত বাবা-মায়ের অভিভাবকত্বে দেখা যাবে এমন কনটেন্টকে U/A 13+ মার্ক দেওয়া হয়েছে। ১৬ বছর বয়সী দর্শকদের ক্ষেত্রেও একই নিয়ম। রয়েছে U/A 16+ মার্ক।

    এর পর কঠোর ভাবে প্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য কনটেন্টকে A মার্ক দেওয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে এজ ভেরিফিকেশন মেকানিজমও ( Age Verification Mechanism) রয়েছে।

    শোভন চন্দ

    First published:
    0

    লেটেস্ট খবর