• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • করোনার মধ্যে তিন মাসে ৩৫০ কোর্স! বিশ্বরেকর্ড ভারতীয় তরুণীর

করোনার মধ্যে তিন মাসে ৩৫০ কোর্স! বিশ্বরেকর্ড ভারতীয় তরুণীর

আরতির কীর্তিতে স্তম্ভিত সকলে। ছবির উৎস-ফেসবুক

আরতির কীর্তিতে স্তম্ভিত সকলে। ছবির উৎস-ফেসবুক

আরতীর ঝুলিতে রয়েছ জন হপকিনস বিশ্ববিদ্যালয়, ডেনমার্ক টেকনিক্যাল ইন্সটিটিউট, কোপেনহেগেন বিশ্ববিদ্যালয়, নিউইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রি।

  • Share this:

    #কোচি: করোনায় ঘরবন্দি জীবন। কিছুতেই মন বসে না কাজে। অবসাদ যেন ঘিরে ধরে। এমন মানুষের সংখ্যা নিছক কম নয়। দেশ-রাজ্যভেদে সেই সব মানুষের ঘুরে দাঁড়াবার অনুপ্রেরণা তিনি। তিন মাসে ৩৫০টি কোর্স করে গড়ে ফেলেছেন বিশ্বরেকর্ড।

    কোচির বাসিন্দা আরতি রঘুনাথ। বায়োকেমিস্ট্রিতে স্নাতকোত্তর স্তরের ছাত্রী। লকডাউনে ঘরে বসে সময় নষ্ট হচ্ছিল রা পাঁচজনের মতোই। এই সময়েই অপচয়টা বুঝতে পেরে শুরু করেন অনলাইনে নানাবিধ কোর্স করা। আর ক্রমে সেই সংখ্যাটা পৌঁছে যায় সাড়ে তিনশোয়! বিশ্বের নানা খ্যাতনামা বিশ্ববিদ্যালয়ের অনলাইন কোর্সে অংশগ্রহণ করেছেন আরতি, আর তাতেই কিস্তিমাত। ইউনিভার্সাল রেকর্ড ফোরামের তরফে জুটেছে স্বীকৃতি।

    তাঁর এই কীর্তিতে অভিভাবক ও শিক্ষকেরা খুশি তো বটেই, বিস্মিতও! আরতি অবশ্য নিজে কৃতিত্ব নিতে চান না। তাঁর কথায়, "আমার শিক্ষকরাই আমায় এই অনলাইন ক্লাসের দিশা দেখিয়েছিলেন। আমার কলেজের প্রিন্সিপাল আজিম মহম্মদ, কোর্স কো অর্ডিনেটর হানিফা কেজি, ক্লাস টিউটর নীলিমা টি কে-এর সহায়তায় আমি কোর্সগুলি শেষ করতে পেরেছি।

    আরতীর ঝুলিতে রয়েছ জন হপকিনস বিশ্ববিদ্যালয়, ডেনমার্ক টেকনিক্যাল ইন্সটিটিউট, কোপেনহেগেন বিশ্ববিদ্যালয়, নিউইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রি। ঈর্ষণীয় বললেও কম বলা হয়, তাঁর এই যাত্রাপথ। বহু মানুষই তাঁর গল্পে নতুন করে বাঁচার অনুপ্রেরণা পাচ্ছেন।

    Published by:Arka Deb
    First published: