• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • বছরের পর বছর পাকিস্তানের জেলে পচেছেন, বাড়ি ফিরে সেই বীভৎসতার বর্ণনা দিলেন এই ভারতীয়

বছরের পর বছর পাকিস্তানের জেলে পচেছেন, বাড়ি ফিরে সেই বীভৎসতার বর্ণনা দিলেন এই ভারতীয়

ঘরে ফিরে চোখে জল সামসুদ্দিনের।

ঘরে ফিরে চোখে জল সামসুদ্দিনের।

এখন সামসুদ্দিনের গ্রামে খুশির হাওয়া। সামসুদ্দিন বলছেন, "গ্রামে থেকে চাষবাস করব, তবু আর প্রাণ থাকতে পাকিস্তান যাব না।"

  • Share this:

    #করাচি: পাকিস্তানের জেলে পড়ে পচেছেন ৮ বছর। শত্রু ধরে নিয়ে কুৎসিত ব্যবহার করেছে অন্য জেলবন্দিরা। কিন্তু আজ আর সেই দুঃসহ দিনের কথা মনে করতে চান না সামসুদ্দিন। চোখে যে বিন্দু বিন্দু জল তা দুঃখের নয়, আনন্দাশ্রু, পরিবারের কাছে ফিরতে পারার বিহ্বলতা।

    সার্কেল অফিসার ত্রিপুরারি পান্ডে সামসুদ্দিনের কথা বলতে গিয়ে বলেছিলেন, "বাড়ি ফিরে পাগলের মতো কাঁদছিলেন সামসুদ্দিন। কাঁদছিল ওঁর পরিবারও। প্রলাপের মতো বলছিল, পাকিস্তানে যাওয়াটাই মস্ত ভুল হয়েছে। তবে কানপুরের কাঙ্গি মোহাল গ্রামে এই দিনটায় ছিল উৎসবের মেজাজ। পরিবার ওঁকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেয়।"

    ১৯৯২ সালে নব্বই দিনের ভিসা নিয়ে পাকিস্তানে যান সামসুদ্দিন। । পাকাপাকি ভাবে থাকা শুরু হয় ১৯৯৪ থেকে। নাগরিকত্ব পেয়ে গিয়েছিলেন তিনি।

    এরপর ২০১২ সালে পাক সরকার তাঁকে চরবৃত্তির অভিযোগে গ্রেফতার করে। ঠাঁই হয় করাচির জেলে। সামসুদ্দিন স্পষ্ট বলেন, তাঁকে শত্রু ভেবেই অত্যাচার করা হয়েছে দিনের পর দিন। এরপর বহু বসন্ত এসেছে গিয়েছে ওয়াঘার উপর দিয়ে। অবশেষে ৮ বছরের মাথায় তাঁকে ছাড়া হয়। ওয়াঘা পেরিয়ে গত ২৬ অক্টোবর দেশে ফেরেন তিনি। কোয়ারেন্টাইনে কিছুদিন কাটিয়ে নিজের গ্রামে পা রাখেন রবিবার।

    এখন সামসুদ্দিনের গ্রামে খুশির হাওয়া। সামসুদ্দিন বলছেন, "গ্রামে থেকে চাষবাস করব, তবু আর প্রাণ থাকতে পাকিস্তান যাব না।"

    Published by:Arka Deb
    First published: