দেশের লজ্জা! রাস্তায় নেমে দেশি মদ বিক্রি করছেন জাতীয় স্তরে সোনাজয়ী এই ক্রীড়াবিদ

দেশের লজ্জা! রাস্তায় নেমে দেশি মদ বিক্রি করছেন জাতীয় স্তরে সোনাজয়ী এই ক্রীড়াবিদ

বিমলা মুণ্ডা।

দিন গুজরান করতে বিক্রি করছেন দেশি মদ। এমন ছবিই এখন নেটদুনিয়ায় ভাইরাল।

  • Share this:

    #রাঁচি: জগৎজোড়ো খ্যাতি তাঁর। দেশের ক্রীড়ামহল তাঁকে এক কথায় কুর্নিশ জানায়। কিন্তু কোভিড বড় বালাই, জাতীয় ক্যারাটে আইকন রাঁচির বিমলা মুণ্ডা আপাতত ক্যারেটে রিং থেকে নেমে এসেছেন ফুটপাথে। দিন গুজরান করতে বিক্রি করছেন দেশি মদ। এমন ছবিই এখন নেটদুনিয়ায় ভাইরাল।

    ২০১১ সালের ৩৪ তম জাতীয় গেমসে ঝাড়খণ্ডের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেন বিমলা। জিতে নেন রুপো। এক পরেও অক্ষয় কুমার আয়োজিত চতুর্থ কুডো কম্পিডিশনে বিমলা পেয়েছিলেন সোনা। রাশি রাশি মেডেল পেয়েছেন বিমলা। জয়ের হাত ধরেই আসে আশ্বাস আর প্রতিশ্রুতি। খোদ ঝাড়খণ্ড সরকারই তাঁকে চাকরির প্রতিশ্রুতি দেয়। কথা ছিল ফেব্রুয়ারিতে তিনি চাকরিতে যোগ দিতে পারবেন। কিন্তু সেই প্রতিশ্রুতি এখন বিশ বাঁও জলে। কোনও চিঠিই পাননি তিনি। বাধ্য হয়েছেন রাস্তায় বসতে দেশি মদ বিক্রি করতে।

    বাড়ির কাছেই আখার তৈরি করেই ক্যারাটে শেখাতেন বিমলা। কিন্তু বাধ সাধে করোনা। বিকল্প খুঁজতে থাকেন তিনি।

    ক্ষোভ উগরে দিয়ে বিমলা বলেন, "মনপ্রাণ দিয়ে খেলেছিলাম, ভেবেছিলাম সরকার পাশে থাকবে, চাকরি পাব। সরকার কোনও নজরই দেয়নি। আমরা আদিবাসী, হাঁড়িয়া বিক্রি আমাদের অনেকদিনের প্রথা। সেই কাজই করছি।"

    এই ঘটনার ছবি ভাইরাল হতেই সরব হয়েছেন নেটাগরিকরা। বিক্ষোভের ঢেউ আছড়ে পড়েছে প্রশাসনের দেওয়ালেও।

    ঘটনার অভিঘাতে নড়েচড়ে বসেছেন ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেনও। তিনি নিজে ভিডিওটি শেয়ার করে উপযুক্ত ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছেন।
    Published by:Arka Deb
    First published:

    লেটেস্ট খবর