দেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

ভবিষ্যতের যুদ্ধগুলি দেশীয় অস্ত্রেই জিতবে ভারত, দাবি বিপিন রাওয়াতের

ভবিষ্যতের যুদ্ধগুলি দেশীয় অস্ত্রেই জিতবে ভারত, দাবি বিপিন রাওয়াতের
ভবিষ্যতের যুদ্ধগুলি দেশীয় অস্ত্রেই জিতবে ভারত, দাবি বিপিন রাওয়াতের

অস্ত্র নির্মাণের জন্য এখন দেশীয়করণেই জোর দিচ্ছে ভারত৷ ভবিষ্যতের যুদ্ধগুলি দেশে তৈরি হওয়া অস্ত্রেই জিতবে বিশ্বের অন্যতম সামরিক শক্তিশালী দেশ৷ দাবি বিপিন রাওয়াতের

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: অস্ত্র নির্মাণের জন্য এখন দেশীয়করণেই জোর দিচ্ছে ভারত৷ ভবিষ্যতের যুদ্ধগুলি দেশে তৈরি হওয়া অস্ত্রেই জিতবে বিশ্বের অন্যতম সামরিক শক্তিশালী দেশ৷ শুক্রবার একটি অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে এমনটাই মন্তব্য করলেন ভারতের সিডিএস (চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফ) বিপিন রাওয়াত।

এদিন এই বিষয়ে ডিআরডিও-র (ডিফেন্স রিসার্চ অ্যান্ড ডেভলপমেন্ট অর্গানাইজেশন) বিজ্ঞানীদের ভূয়সী প্রশংসা করেন দেশের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং। বিপিন রাওয়াত বলেন, "বর্তমানে এমন একটা সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি আমরা, যেখানে দেশের বেসরকারি কোম্পানিগুলিও আমাদের দেখে অনুপ্রাণিত হয়েছে। তাদের সমর্থন করা প্রয়োজন। তাহলেই ভবিষ্যতের যুদ্ধগুলি দেশীয় অস্ত্র দিয়েই জিতবে ভারত।"

অন্যদিকে মিলিটারি লেকচার ফেস্টিভ্যাল-২০২০ শীর্ষক একটি ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে ডিআরডিও-র বিজ্ঞানী ও প্রধান জি সতীশ রেড্ডির দ্বরাজ প্রশংসা করেছেন রাজনাথ সিং৷ তিনি বলছেন, "সময়ের পরিবর্তনের সঙ্গেই হুমকি ও যুদ্ধের ধরনও বদলাচ্ছে৷ আরও নিরাপত্তি জনিত বিষয় ভবিষ্যতে ভারতের সামনে আসবে৷ যেটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ আমাদের কাছে৷ নরেন্দ্র মোদির সরকার আগামী দিনে ভারতকে একটি সুপার পাওয়ার বানাতে চাইছে৷ আমার ইচ্ছা ভবিষ্যত আমাদের প্রজন্ম দেশের ইতিহাসটা বুঝুক, বিশেষত সীমান্তের ইতিহাস৷ জানুক তার সঙ্গে যুদ্ধের কী সম্পর্ক! আমি চাই দেশের সাধারণ মানুষ সেনা সংক্রান্ত পড়াশোনা করে এই সম্পর্কে জ্ঞান অর্জন করুক৷"

গত বছর ডিসেম্বরে রাওয়াত বলেছিলেন, 'নন-কনট্রাক্ট ওয়ারফেয়ার'-এর (সংস্পর্শহীন যুদ্ধ) উথ্থান ভারতের জন্য ভবিষ্যতের যুদ্ধে অ্যাডভান্টেজ হতে চলেছে৷ কোয়ান্টাম প্রযুক্তি, সাইবার, স্পেস ও আর্টিফিসিয়াল ইনটেলিজেন্সকে তিনি প্রতিরক্ষার বাস্তুতন্ত্রের উদ্দেশ্যসাধনের সুবিধার্থেই ব্যবহার করতে চেয়েছেন৷

Published by: Subhapam Saha
First published: December 18, 2020, 6:43 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर