২৬ বছরে এমন পঙ্গপালের হানা দেখেনি দেশ, পোকা মারতে ড্রোনের ব্যবহার শুরু

২৬ বছরে এমন পঙ্গপালের হানা দেখেনি দেশ, পোকা মারতে ড্রোনের ব্যবহার শুরু
রাজস্থান, পঞ্জাব, গুজরাত, মধ্যপ্রদেশ আর উত্তরপ্রদেশের চাষের জমি নিমেষে ছেয়ে ফেলেছে এই সর্বনাশা পোকার দল । যারা একদিনে আড়াই হাজার মানুষের খাদ্য নিঃশেষ করে দিতে পারে ।

রাজস্থান, পঞ্জাব, গুজরাত, মধ্যপ্রদেশ আর উত্তরপ্রদেশের চাষের জমি নিমেষে ছেয়ে ফেলেছে এই সর্বনাশা পোকার দল । যারা একদিনে আড়াই হাজার মানুষের খাদ্য নিঃশেষ করে দিতে পারে ।

  • Share this:

    #রাজস্থান: দেশে একের পর এক আঘাত এসেই চলেছে । কখনও তা ভয়ানক করোনার রূপ নিয়ে, কখনও বা ভূমিকম্প, কখনও দাবানল, কখনও ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড়, আবার কখনও তা পঙ্গোপালের হানা । সতর্কবার্তা ছিল আগে থেকেই । সেই মত উত্তর ভারতে শুরু হয়ে গেল ২৬ বছরের মধ্যে ভয়ঙ্করতম পঙ্গোপালের হানা ।

    দেশে ঢুকে পড়েছে বিশাল পঙ্গপালের ঝাঁক। আর যার জন্য বিপুল পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা রয়েছে। ক’‌দিন আগেই খবর এসেছিল, পঞ্জাবের পাকিস্তান সীমান্ত দিয়ে পঙ্গপাল দেশে ঢুকে পড়তে পারে। সেই আশঙ্কাকে সত্যি করেই মারাত্মক সংখ্যায় পঙ্গপালের আবির্ভাব ঘটেছে।

    এই পোকাকে মারতে তাই ড্রোনের ব্যবহার শুরু করতে চলেছে কেন্দ্রীয় কৃষি মন্ত্রক । এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় কৃষি মন্ত্রী কৈলাস চৌবে রাজ্য সরকারের সঙ্গে আলোচনা করছেন । ইতিমধ্যেই ড্রোনের সাহায্যে কীটনাশক স্প্রে করতে রাজস্থান সরকার টেন্ডার ডেকেছে । এই প্রথম বারের জন্য কীটনাশক স্প্রে করতে ড্রোনের ব্যবহার করতে চলেছে দেশ ।


    রাজস্থান, পঞ্জাব, গুজরাত, মধ্যপ্রদেশ আর উত্তরপ্রদেশের চাষের জমি নিমেষে ছেয়ে ফেলেছে এই সর্বনাশা পোকার দল । যারা একদিনে আড়াই হাজার মানুষের খাদ্য নিঃশেষ করে দিতে পারে । মরুভূমির এই পঙ্গপালরা নিজেদের শরীরের ওজনের সমান প্রতিদিন খায়৷ মাত্র তিনটি প্রজনন সময়ে এদের সংখ্যা লাফিয়ে ১৬ হাজার বেড়ে যায়৷ আর্দ্রতা যুক্ত সবুজেই এরা প্রজনন ঘটায়৷ তাই পঙ্গপালদের লক্ষ্য থাকে সবুজ ফসল জমিতেই৷ মাঠ ভর্তি সবুজ ফসল খেয়ে শেষ করে ফেলতে এদের বেশি সময় লাগে না৷অন্যদিকে, ঝাঁসি জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, দমকলকে বিশেষ কীটনাশক নিয়ে তৈরি থাকতে । যাতে কোনওভাবেই পঙ্গপাল ফসলের ক্ষতি না করতে পারে, তার ব্যবস্থা করছে প্রশাসন।

    Published by:Simli Raha
    First published:

    লেটেস্ট খবর