• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • ব্রিকসের মঞ্চে পাকিস্তানকে একঘরে করতে তৎপর ভারত

ব্রিকসের মঞ্চে পাকিস্তানকে একঘরে করতে তৎপর ভারত

অর্থনীতি নয়। দক্ষিণ এশিয়ার সন্ত্রাস-পরিস্থিতিই গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু হয়ে উঠতে চলেছে ব্রিকসে।

অর্থনীতি নয়। দক্ষিণ এশিয়ার সন্ত্রাস-পরিস্থিতিই গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু হয়ে উঠতে চলেছে ব্রিকসে।

অর্থনীতি নয়। দক্ষিণ এশিয়ার সন্ত্রাস-পরিস্থিতিই গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু হয়ে উঠতে চলেছে ব্রিকসে।

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #বেনালিম: অর্থনীতি নয়। দক্ষিণ এশিয়ার সন্ত্রাস-পরিস্থিতিই গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু হয়ে উঠতে চলেছে ব্রিকসে। কাল থেকে গোয়ায় শুরু হচ্ছে ব্রিকস গোষ্ঠীর অষ্টম বার্ষিক সম্মেলন। সেখানে সন্ত্রাস ইস্যুতে পাকিস্তানকে আরও একঘরে করাই লক্ষ্য নয়াদিল্লির। তবে পাক-প্রশ্নে চিনকে কতটা পাশে পাওয়া যাবে, তা নিয়ে সন্দেহ খোদ সাউথ ব্লকের অন্দরেই।

    উপলক্ষ ব্রিকস গোষ্ঠীর অষ্টম বার্ষিক সম্মেলন। শনিবার থেকে গোয়ায় শুরু হচ্ছে দু’দিনের মহাযজ্ঞ। ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চিন এবং দক্ষিণ আফ্রিকার রাষ্ট্রপ্রধানদের আলোচনায় খাতায়-কলমে অর্থনীতিই মূল বিষয়বস্তু। কিন্তু উরি পরবর্তী সময়ে দক্ষিণ এশিয়ার সন্ত্রাস-পরিস্থিতিই মূল অ্যাজেন্ডা হতে চলেছে ব্রিকসের।

    ব্রিকসকে হাতিয়ার করে পাকিস্তানকে আরও একঘরে করতে চায় ভারত ৷ পাশে পেতে চায় রাশিয়া-চিনের মতো প্রভাবশালী দেশকে ৷ যৌথ বিবৃতিতে পাকিস্তানের নাম করে নিন্দা প্রস্তাব আনা লক্ষ্য ভারতের ৷ সন্ত্রাস মোকাবিলায় আন্তর্জাতিক মেকানিজম তৈরিতেও তৎপর নয়াদিল্লি ৷

    ব্রিকসের পাশাপাশি রবিবার গোয়ায় বিমসটেক গোষ্ঠীভুক্ত দেশগুলিরও বৈঠক রয়েছে। বাংলাদেশ, ভুটান, শ্রীলঙ্কা, মায়ানমারের মতো ভারতের প্রতিবেশী যার সদস্য। সেখানেও সন্ত্রাসবাদ ইস্যুতে পাকিস্তানকে একঘরে করতে চায় নয়াদিল্লি। তবে ব্রিকসের মঞ্চে ভারতের লক্ষ্যপূরণে পথের কাঁটা চিন। অর্থনৈতিক-সামরিক ও কূটনৈতিক দিক থেকে ইসলামাবাদের সবচেয়ে ঘনিষ্ঠ সঙ্গী বেজিং। তাই পাক-প্রশ্নে চিনকে যে পাশে পাওয়া যাবে না, সেবিষয়ে কার্যত নিশ্চিত সাউথ ব্লক। কূটনৈতিক স্বার্থে সম্প্রতি পাকিস্তানের সঙ্গে নতুন করে সম্পর্ক তৈরি করছে রাশিয়াও। তাই মুখে সন্ত্রাসবাদের সমালোচনা করলেও, বাস্তবে রাশিয়া কতটা পাশে থাকবে, তা নিয়ে সন্দেহ থেকেই যাচ্ছে। ব্যুরো রিপোর্ট, ইটিভি নিউজ বাংলা।

    First published: