corona virus btn
corona virus btn
Loading

কাশ্মীর মধ্যস্থতায় মার্কিন হস্তক্ষেপ মানতে নারাজ ভারত

কাশ্মীর মধ্যস্থতায় মার্কিন হস্তক্ষেপ মানতে নারাজ ভারত

ট্রাম্প প্রশাসন যাই বলুন, কাশ্মীরে তৃতীয় পক্ষের হস্তক্ষেপ মানছে না ভারত। ওবামা প্রশাসনের নীতি থেকে ১৮০ ডিগ্রি ঘুরে ভারত-পাক সম্পর্কে মধ্যস্থতার প্রস্তাব দিয়েছে ট্রাম্প প্রশাসন।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: ট্রাম্প প্রশাসন যাই বলুন, কাশ্মীরে তৃতীয় পক্ষের হস্তক্ষেপ মানছে না ভারত। ওবামা প্রশাসনের নীতি থেকে ১৮০ ডিগ্রি ঘুরে ভারত-পাক সম্পর্কে মধ্যস্থতার প্রস্তাব দিয়েছে ট্রাম্প প্রশাসন। দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের খাতিরেই সরাসরি এনিয়ে আমেরিকার সরাসরি বিরোধিতা করছে না কেন্দ্র। তবে কাশ্মীর সহ দ্বিপাক্ষিক বিষয়ে আমেরিকা বা অন্য কারোর হস্তক্ষেপ মানার প্রশ্ন নেই। একবারে সবোর্চ্চ স্তরে মার্কিন প্রশাসনকে এই বার্তা দেওয়ার কৌশল মোদি সরকারের। জোরকা ধাক্কা ধীরেসে লাগে। জনপ্রিয় এই প্রবাদ যে কূটনীতিতেও বাস্তব, মঙ্গলবারই তার প্রমাণ মিলল। কথা নেই, বার্তা নেই হঠাৎ ভারত-পাক  নিয়ে মধ্যস্থতার প্রস্তাব এল ট্রাম্প প্রশাসনের তরফে। কাশ্মীর নিয়ে যে প্রেসিডেন্ট একটা সিদ্ধান্ত নিতে চান, তা স্পষ্ট করলেন রাষ্ট্রপুঞ্জে  মার্কিন দূত নিকি হ্যালে। রাষ্ট্রসংঘে মার্কিন দূত নিকি হ্যালে জানিয়েছেন, ভারত-পাক সম্পর্কে উত্তেজনা কমানো প্রয়োজন। তাতে যদি আমেরিকা কোনও ভূমিকা নিতে পারে, তা হলে আমরা তার জন্য তৈরি।

মার্কিন প্রশাসন বলছে, ভারত-পাক সম্পর্ক শুধরোতেই তাদের এই প্রস্তাব। কিন্তু দুই দেশের সম্পর্কে মূল ইস্যু তো কাশ্মীর। তা হলে কি দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের নামে কাশ্মীরে নজর ট্রাম্প প্রশাসনের? বিতর্কিত অথচ  অবস্থানগতভাবে গুরুত্বপূর্ণ এই এলাকায় কি মার্কিন সেনা মোতায়েন করতে চায় ট্রাম্প প্রশাসন? ঘটনা কিন্তু সেই সম্ভাবনার দিকেই ইঙ্গিত করছে। না হলে, পাকিস্তানের সন্ত্রাসবাদী দেশ তকমা দেওয়ার পক্ষপাতী যিনি, সেই প্রেসিডেন্টের ট্রাম্প হঠাৎ পাক দাবির পক্ষেও সওয়াল করছেন কেন? ভারত বরাবরই কাশ্মীরে তৃতীয় পক্ষের নাক গলানোর বিরোধী। পাকিস্তান ঠিক উলটোটা চেয়ে এসেছে। জর্জ বুশ এমনকী ওবামা জমানাতেও কাশ্মীরে সরাসরি হস্তক্ষেপ করতে চায়নি আমেরিকা।  ট্রাম্প মত বদলালেও ভারত নিজের অবস্থানে অনড়। বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্রের দাবি, কাশ্মীরে আমেরিকা বা অন্য কোনও পক্ষের মধ্যস্থতার প্রশ্ন নেই।  ট্রাম্প প্রশাসনের কাছে এই বার্তা স্পষ্ট করার দায়িত্ব বিদেশসচিব জয়শঙ্করের কাঁধে।

First published: April 5, 2017, 8:21 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर