corona virus btn
corona virus btn
Loading

আন্তর্জাতিক সুরক্ষা নীতি লঙ্ঘন নয়, দেশের সুরক্ষা মজবুত করাই উদ্দেশ্য, জানালেন মোদি

আন্তর্জাতিক সুরক্ষা নীতি লঙ্ঘন নয়, দেশের সুরক্ষা মজবুত করাই উদ্দেশ্য, জানালেন মোদি
  • Share this:

#নয়াদিল্লি: ভোটের মুখে স্পেস ওয়ারফেয়ারে বড়সড় মাইলস্টোন ছুঁল ভারত। অ্যান্টি স্যাটেলাইট মিসাইলের সাহায্যে অব্যবহৃত কৃত্রিম উপগ্রহ ধ্বংস করল নয়াদিল্লি। আজ জাতির উদ্দেশে ভাষণে এই সাফল্যের কথা জানান প্রধানমন্ত্রী। এরআগে আমেরিকা, রাশিয়া ও চিনের হাতে ছিল এ-স্যাট প্রযুক্তি। বিশ্বের চতুর্থ দেশ হিসেবে এবার শক্তিশালী সেই ক্লাবে নাম লেখাল ভারতও। তবে এর জন্য আন্তর্জাতিক সুরক্ষা নীতি লঙ্ঘন করা হয়নি ৷ দেশের সুরক্ষা মজবুত করাই ছিল উদ্দেশ্য ৷ দেশের নিরাপত্তার স্বার্থেই এই মিশন৷ শান্তি প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্যে আরও একটি পদক্ষেপ৷

এদিন মোদি বলেন,

‘মহাকাশ গবেষণায় নয়া কীর্তি ভারতের ৷ মহাকাশ যুদ্ধে ভারতের নতুন মুকুট ৷ ভারতের কাছে আজ গর্বের দিন ৷ ভারত আজ মহাকাশে অন্যতম শক্তি ৷ বিশ্বের মধ্যে চতুর্থ দেশ ভারত ৷ আমেরিকা,রাশিয়া,চিনের পর ভারত ৷ মহাকাশে কৃত্রিম স্যাটেলাইট ধ্বংস ৷ লো অরবিট স্যাটেলাইট ধ্বংস ৷ অ্যান্টি স্যাটেলাইট মিসাইল দিয়ে ধ্বংস ৷ ভারতে প্রথম এই মিসাইল ব্যবহার ৷ ৩ মিনিটেই ধ্বংস অব্যবহৃত মিসাইল ৷ অপারেশনের নাম ছিল মিশন শক্তি ৷ ভারতেই তৈরি এ স্যাট মিসাইল ৷ অস্ত্র প্রতিযোগিতার বিপক্ষে ভারত ৷ দেশবাসীর নিরাপত্তায় মহাকাশ গবেষণা ৷ এই সাফল্য দেশকে সুরক্ষিত করবে৷’

 তিনি জানিয়েছেন, মহাকাশে প্রায় তিনশো কিলোমিটার দূরের একটি 'লো অরবিট স্যাটেলাইট' ধ্বংস করা হয়েছে। দেশের প্রতিরক্ষা গবেষণা সংস্থা DRDO-র তৈরি অ্যান্টি স্যাটেলাইট মিসাইলের সাহায্যে ধ্বংস করা হয়েছে কৃত্রিম উপগ্রহটি। গোটা অপারেশনের নাম ছিল মিশন-শক্তি। এরআগে শুধুমাত্র মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া ও চিনের হাতে ছিল অত্যাধুনিক এই প্রযুক্তি। এবার সেই ক্লাবে নাম লেখাল ভারতও। প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞদের মতে, এ-স্যাট মিসাইল প্রযুক্তি হাতে থাকায় স্পেস ওয়ারফেয়ারে বিশ্বের অন্যতম শক্তি হিসেবে উঠে এল ভারত।

First published: March 27, 2019, 1:24 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर