corona virus btn
corona virus btn
Loading

কালো টাকার কারবারিরা আমাকে মেরে ফেলতে পারে কিন্তু কালো টাকার বিরুদ্ধে যুদ্ধ চলবেই, হুঁশিয়ারি মোদির

কালো টাকার কারবারিরা আমাকে মেরে ফেলতে পারে কিন্তু কালো টাকার বিরুদ্ধে যুদ্ধ চলবেই, হুঁশিয়ারি মোদির

জাপান থেকে ভারতে ফিরেই ফের চেনা রূপে বিরোধীদের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানালেন মোদি ৷ কালো টাকার মালিকদের বিরুদ্ধে আরও একবার হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, আগামীদিনে কালো টাকার পর বেআইনি সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার অভিযানে নামতে চলেছে কেন্দ্র ৷

  • Share this:

#পানাজি: জাপান থেকে ভারতে ফিরেই ফের চেনা রূপে বিরোধীদের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানালেন মোদি ৷ কালো টাকার মালিকদের বিরুদ্ধে আরও একবার হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, আগামীদিনে কালো টাকার পর বেআইনি সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার অভিযানে নামতে চলেছে কেন্দ্র ৷ একই সঙ্গে দেশবাসীদের আরেকটু কষ্ট সহ্য করার আর্জি জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন আগামী ৫০ দিনের মধ্যে তিনি যে কাজ হাতে নিয়েছেন তা শেষ করে দেখাবেন ৷

কালো টাকা দমনে আরও জোরালো ধাক্কা দিতে চলেছে সরকার, বার্তা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির। দুর্নীতি রোধে আরও নানা পরিকল্পনা তাঁর মাথায় রয়েছে বলে জানিয়েছেন মোদি। এবার সরকারের নজর বেনামি সম্পত্তিতেও বলে জানিয়েছেন তিনি। বিঁধেছেন রাহুল গান্ধি সহ কংগ্রেস নেতাদের। অর্থমন্ত্রীর মতো প্রধানমন্ত্রীও এদিন মেনে নিয়েছেন আচমকা নোট বাতিলের সিদ্ধান্তে দুর্ভোগে পড়েছেন সাধারণ মানুষ ৷ তাই আরও একবার মোদি জনতার কাছে আবেদন করেছেন, ‘সাধারণের হয়রানি বুঝতে পারছি ৷ এই যন্ত্রণা আর ৫০ দিনের ৷’

টাকা জোগাড়ে মানুষ ধৈর্ষহারা হতেই ময়দানে নেমেছে বিরোধীরা। মাঠ খোলা না রেখে এবার পালটা আক্রমণে প্রধানমন্ত্রী। কালো টাকা উদ্ধার নিয়ে সরকারের সঙ্গে জুড়ে দিলেন জনতার আবেগ। বললেন, ‘দেশের থেকে ৫০ দিন সময় চাইছি। ৩০ ডিসেম্বর-এর পর কোনও ভুল হলে আপনারা যা সাজা দেবেন মাথা পেতে নেব। কালো টাকা রুখতে এটা বড় পদক্ষেপ ৷ আমরা ঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছি ৷ কালো টাকার বিরুদ্ধে সরব দেশবাসী ৷ দুর্নীতি রোখার প্রতিশ্রুতি পূরণ করেছি ৷ মানুষ জানতেন, যে কঠোর পদক্ষেপ করব ৷’

সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের পর, মোদির নোট বাতিলের মতো ঐতিহাসিক সিদ্ধান্তও তারিয়ে তারিয়ে উপভোগ করছে বিজেপি শিবির। সরকার যে আরও জোরালো ধাক্কা দিতে চলেছে, রবিবার তার ইঙ্গিত দিয়ে রাখলেন প্রধানমন্ত্রী। মোদি বলেন, দেশে ভ্রষ্টাচার, দুর্নীতি রোধে আরও অনেক পরিকল্পনা আছে তাঁর ৷

নোটবদলের লাইনে দাঁড়িয়ে চমক দিয়েছিলেন রাহুল গান্ধি। নাম না করেই কংগ্রেস সহ-সভাপতিকে বিঁধলেন মোদি। রাহুলকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘যাঁদের কোটি কোটি টাকা আছে ৷ তাঁদের জোর করে লাইনে দাঁড়াতে হয় ৷ একজনকে তো ব্যাঙ্কের লাইনে দাঁড়াতে হয় ৷ ৪ হাজার টাকার জন্য লাইনে দাঁড়াতে হয় ৷ যাঁরা বড়সড় দুর্নীতিতে জড়িত, তাঁদেরকে আজ ৪ হাজার টাকা বদলানোর জন্য ব্যাঙ্কের লাইনে দাঁড়াতে হয় ৷’

ভাষণ চলাকালীন আবেগতাড়িত হয়ে মোদি বলেন, ‘নিজের গদি বাঁচাতে চাই না ৷ দেশের জন্য ঘর-সংসার ছেড়েছি ৷ ৭০ বছরের রোগ সারাতেই হবে ৷ হঠাৎ এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি ৷ ১০ মাস ধরে গোপনে কাজ চলেছে ৷ কালো টাকার কারবারিরা আমাকে মেরে ফেলতে পারে ৷ কিন্তু কালো টাকার বিরুদ্ধে যুদ্ধ চলবেই ৷ সৎ, সাধারণ মানুষ পাশে আছেন ৷ বেনামি সম্পত্তিও উদ্ধার করব ৷’

এদিন আরও একবার সরকারের পূর্বপরিকল্পিত প্রকল্পগুলির কথাও মনে করিয়ে দেন মোদি ৷ বলেন, জনধন যোজনায় দেশের সব নাগরিককে অ্যাকাউন্ট খুলিয়েছিলাম কেন, এখন মানুষ তার সুফল হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছে ৷

নির্বাচনের আগে বিদেশ থেকে কালো টাকা উদ্ধারের প্রতিশ্রুতি সরকারের কাছে এখন প্রত্যাশার চাপ। সেই চাপ কাটিয়ে উঠতে দলের রণং দেহি ভাবমূর্তিই তুলে ধরছেন নরেন্দ্র মোদি।

First published: November 13, 2016, 3:58 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर